বেসরকারি সংস্থা নিয়ন্ত্রিত দেশের দ্বিতীয় তেজস এক্সপ্রেস চালু হতে চলেছে ২০২০ সালের ১৭ জানুয়ারি থেকে।
বেসরকারি সংস্থা নিয়ন্ত্রিত দেশের দ্বিতীয় তেজস এক্সপ্রেস চালু হতে চলেছে ২০২০ সালের ১৭ জানুয়ারি থেকে।

এবার মুম্বই-আহমেদাবাদেও ছুটবে তেজস এক্সপ্রেস, শুরু বুকিং

  • দ্বিতীয় তেজস এক্সপ্রেসের টিকিট বুকিং চালু হয়ে গিয়েছে আইআরসিটিসির নিজস্ব ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। রেল স্টেশনের কাউন্টার থেকে ট্রেনটির কোনও টিকিট বুক করা যাবে না বলে জানা গিয়েছে।

বেসরকারি সংস্থা নিয়ন্ত্রিত দেশের দ্বিতীয় তেজস এক্সপ্রেস চালু হতে চলেছে ২০২০ সালের ১৭ জানুয়ারি থেকে। ট্রেনটি গুজরাতের আহমেদাবাদ এবং মহারাষ্ট্রের মুম্বইয়ের মধ্যে চলাচল করবে বলে জানিয়েছেন নিয়ন্ত্রক সংস্থা আইআরসিটিসি।

জানা গিয়েছে, দ্বিতীয় তেজস এক্সপ্রেস বৃহস্পতিবার ছাড়া সপ্তাহের প্রতিদিনই যাতায়াত করবে। যাত্রী উন্নত স্বাচ্ছন্দ্যের কথা মাথায় রেখে ট্রেনটিতে সমস্ত রকম অত্যাধুনিক পরিষেবা থাকছে।

আগাগোড়া বাতানুকূল ট্রেনটিতে থাকছে ২টি একজিকিউটিভ চেয়ার কার, যার প্রতিটিতে ৫৬ জনের বসার ব্যবস্থা থাকছে। এ ছাড়া ৭৮ আসনযুক্ত আটটি টেয়ারকারও থাকছে তেজস এক্সপ্রেসে। ট্রেনটিতে মোট ৭৩৬ জন যাত্রীর সফর করার ব্যবস্থা থাকছে।

দ্বিতীয় তেজস এক্সপ্রেসের টিকিট বুকিং চালু হয়ে গিয়েছে আইআরসিটিসির নিজস্ব ওয়েবসাইটের মাধ্যমে। রেল স্টেশনের কাউন্টার থেকে ট্রেনটির কোনও টিকিট বুক করা যাবে না বলে জানা গিয়েছে।

আইআরসিটিসির স্বীকৃত এজেন্টের মাধ্যমেও টিকিট বুক করার ব্যবস্থা রয়েছে। এই সুবিধা পাওয়া যাবে পেটিএম, ইক্সিগো, ফোনপে, মেক মাই ট্রিপ, গুগল, ইবিবো, রেলওয়েযাত্রী ইত্যাদি সংস্থার ওয়েবসাইটে।

আয় বাড়ানোর লক্ষ্যে গত জুন মাসে রেল মন্ত্রকের ১০০ দিনের অ্যাকশন প্ল্যান অনুযায়ী, বেশ কিছু ট্রেন বেসরকারি সংস্থাকে পরিচালনার জন্য দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

পরীক্ষামূলক ভাবে নিজের অধীনস্থ সংস্থা আইআরসিটিসি-কে দিল্লি-লখনউ এবং আহমেদাবাদ-মুম্বই রুটে প্রথম দফায় ট্রেন চালানোর দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে।

বন্ধ করুন