সিএএ-এর সমর্থনে শুক্রবার ভুবনেশ্বরে ভাষণ দিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। ছবি সৌজন্যে এএনআই।
সিএএ-এর সমর্থনে শুক্রবার ভুবনেশ্বরে ভাষণ দিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। ছবি সৌজন্যে এএনআই।

সিএএ নিয়ে মানুষকে ভুল বোঝাচ্ছে বিরোধীরা, দাবি অমিত শাহের

  • কংগ্রেস, মমতা দিদি, সপা, বসপা, সবাই সিএএ বিরোধিতা করছেন। ওঁরা বলছেন, এই আইন সংখ্যালঘুদের নাগরিকত্ব কেড়ে নেবে। আপনারা কেন এত মিথ্যা কথা বলেন?

সংশোধিত নাগরিকত্ব আইন সম্পর্কে মানুষকে মিথ্যা বোঝাচ্ছেন বিরোধীরা। শুক্রবার ভুবনেশ্বরের সিএএ-এর সমর্থনে এক জনসভায় জানালেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

তিনি বলেন, সিএএ-এর সুবাদে সংখ্যালঘুদের নাগরিকত্ব কেড়ে নেওয়া হবে বলে ভুল বোঝাচ্ছেন বিরোধী নেতারা।

তিনি বলেন, ‘আমি দেশবাসীকে বলতে চাই, বিরোধীরা সিএএ নিয়ে ভুল বোঝাচ্ছেন, প্ররোচনা দিচ্ছেন, যা থেকে দাঙ্গা বাধছে।’

অমিত শাহ বলেন, ‘কংগ্রেস, মমতা দিদি, সপা, বসপা, সবাই সিএএ বিরোধিতা করছেন। ওঁরা বলছেন, এই আইন সংখ্যালঘুদের নাগরিকত্ব কেড়ে নেবে। আপনারা কেন এত মিথ্যা কথা বলেন?’

এরপর বহু বার সরকারি বিজ্ঞপ্তিতে বলা কথাগুলিই তিনি বলেন, ‘আমি জানাতে চাই যে, সিএএ একজন মুসলিমেরও নাগরিকত্ব কাড়বে না। একজন সংখ্যালঘুরও নাগরিকত্ব কাড়বে না। সিএএ নাগরিকত্ব দেওয়ার আইন, কেড়ে নেওয়ার নয়।’

অমিত শাহের প্রতিবাদের ঠিক আগে ভারতের এই আইন আন্তর্জাতিক স্তরে পর্যালোচনার বিষয় হয়ে উঠেছে। ব্রিটিশ সরকারের তরফে ব্রিটিশ পার্লামেন্টে সিএএ-কে বিভাজনের আইন বলে অভিহিত করা হয়েছে। এই আইনের কী প্রভাব ভারতবাসীর উপরে পড়েছে, তা নিয়ে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে ব্রিটিশ পার্লামেন্ট। মঙ্গলবার বিকেলে বিষয়টি ব্রিটিশ পার্লামেন্টের হাউস অফ লর্ডস-এ আলোচিত হয়।

বন্ধ করুন