পাত্র বাবাজীবন অবশ্য বেকার (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
পাত্র বাবাজীবন অবশ্য বেকার (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

চাই চরমপন্থী-সহানুভূতিশীল পাত্রী, বেকার পাত্রের লম্বা তালিকায় ভিরমি নেটিজেনদের

  • তবে ভাববেন না যে পাত্র বাবাজীবন নেহাত ফেলনা! একদমই না। সে বিডিএস তথা দাঁতের সার্জেন। যদিও এখন হাতে চাকরি নেই - বেকার।

চরমপন্থী, দয়ালু, দেশভক্ত হতে হবে। প্রতিরক্ষা ও খেলাধূলায় ভারতের দক্ষতা বৃদ্ধিতে আগ্রহ থাকতে হবে। তবেই 'আবেদন' জানানো যাবে।

না, না কোনও রাজনৈতিক দলের নথিভুক্তের প্রক্রিয়া চলছে না, এটা এক 'গুণধর' পাত্রের বিয়ের বিজ্ঞাপন। তবে পাত্রবাবু অবশ্য কয়েকটা 'গুণ'-এ সন্তুষ্ট হওয়ার বান্দা নয়। তার তালিকা আরও লম্বা। পাত্রীকে হতে হবে খুব ফর্সা, সুন্দর, অত্যন্ত বিশ্বস্ত, বিশ্বাসযোগ্য, সাহসী, স্নেহময়, ধনী, ক্ষমতাশালী ও যত্নবান।

শুধু তাই নয়, একইসঙ্গে বাচ্চা মানুষ করায় পারদর্শী, অসাধারণ রাঁধুনি হতে হবে। তাতেও মন ভরবে না 'হেভিওয়েট' পাত্রের। তাই ব্রাক্ষণ ও চাকুরে পাত্রীর খোঁজে বিজ্ঞাপন দিয়েছে সে। এছাড়াও মিলতে হবে কুণ্ডলী ও ৩৬ গুণ।

সেইসব 'গুণ' থাকলে তবেই 'আবেদন' জানানো যাবে। তবে ফোন ধরে না আবার। তাই মেসেজ করতে হবে। তবে ভাববেন না যে পাত্র বাবাজীবন নেহাত ফেলনা! একদমই না। সে বিডিএস তথা দাঁতের সার্জেন। যদিও এখন হাতে চাকরি নেই - বেকার। তাই হয়তো একইসঙ্গে চরমপন্থী একইসঙ্গে সহানুভূতিশীল পাত্রীর খোঁজ করছে সে।

সম্প্রতি সোশ্যাল মিডিয়ায় এরকম সেই বিজ্ঞাপনের ছবি ঘুরে বেড়াচ্ছে। তা নিয়ে রীতিমতো হাসির রোল উঠেছে। পাশাপাশি তৈরি হয়েছে ক্ষোভ। কেউ কেউ তো বলছেন, বিজ্ঞাপনে দেওয়া ফোন নম্বরে ফোন করা উচিত। পাত্র ও তার পরিবারের মানসিকতা নিয়েও প্রশ্ন তুলেছেন অনেকে।

অনেকে কটাক্ষের সুরে আবার বলছেন, ঝাড়খণ্ড ও বিহারের মহিলারা ছাড়া বাকিদের আক্ষেপ তো কিছুতেই মিটছে না। কারণ পাত্রবাবু চায়, তার শ্বশুরবাড়ি ঝাড়খণ্ড ও বিহারের বাইরে না হোক।


বন্ধ করুন