বাংলা নিউজ > হাতে গরম > ইন্দোনেশিয়ায় আগ্নেয়গিরির ভয়াবহ অগ্নুৎপাত, আতঙ্কে ঘর ছাড়লেন ২৭৮০ বাসিন্দা
ইন্দোনেশিয়ার আগ্নেয়গিরিতে বিস্ফোরণের জেরে আকাশে ৪ কিমি উচ্চতায় ছিটকে উঠল ঘন ধোঁয়া ও ছাই।
ইন্দোনেশিয়ার আগ্নেয়গিরিতে বিস্ফোরণের জেরে আকাশে ৪ কিমি উচ্চতায় ছিটকে উঠল ঘন ধোঁয়া ও ছাই।

ইন্দোনেশিয়ায় আগ্নেয়গিরির ভয়াবহ অগ্নুৎপাত, আতঙ্কে ঘর ছাড়লেন ২৭৮০ বাসিন্দা

  • আকাশে চার কিমি পর্যন্ত উচ্চতায় ছিটকে উঠল ঘন ধোঁয়া ও ছাই। সংলগ্ন অঞ্চল প্রচণ্ড গরম ধোঁয়া, লাভাস্রোত, লাভাধস ও বিষাক্ত গ্যাসে পূর্ণ হয়ে গিয়েছে।

ইন্দোনেশিয়ায় জেগে উঠল ভয়াবহ আগ্নেয়গিরি। ভূগর্ভ থেকে আকাশে চার কিমি পর্যন্ত উচ্চতায় ছিটকে উঠল ঘন ধোঁয়া ও ছাই। আতঙ্কে ঘর ছেড়ে পালালেন কমপক্ষে ২.৭০০ বাসিন্দা। 

রবিবার ইন্দোনেশিয়ার রাজধানী জাকার্তার থেকে ২,৬০০ কিমি দূরে অবস্থিত পূর্ব নুসা টেংগারা প্রদেশের মাউন্ট ইলে লিউওটোলক আগ্নেয়গিরির উদ্গীরণে বিপন্ন মানুষের সাহায্যে নেমেছে বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী। দুর্যোগে গৃহহীন হয়েছে ২৬টি গ্রামের প্রায় ২,৭৮০ জন বাসিন্দা।তবে এখনও কোনও হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

ইন্দোনেশিয়ায় মোট ১৩০টি সক্রিয় আগ্নেয়গিরি রয়েছে, যা বিশ্বের আর কোনও দেশে নেই। তবে এতগুলি আগ্নেয়গিরি সক্রিয় থাকলেও অগ্নুৎপাত ঘটতে কয়েক সপ্তাহ এমনকি মাসও সময় লাগে। 

সেবাদসংস্থা রয়টার্সকে স্থানীয় বাসিন্দা বছর সতেরোর মহম্মদ ইলহাম জানিয়েছে, আগ্নেয়গিরির মুখ থেকে ঝোঁয়া ও ছাইয়ের স্রোত বেরোতে শুরু করলে গোটা এলাকায় আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। গ্রামবাসীরা ভয় পেয়ে নিরাপদ আশ্রয়ের খোঁজে ছোটাছুটি শুরু  করে দেন।

দেশের আগ্নেয়গিরি ও ভূতাত্ত্বিক বিপর্যয় মোকাবিলা কেন্দ্র তাদের ওয়েবসাইটে জানিয়েছে, আগ্নেয়গিরি সংলগ্ন অঞ্চল প্রচণ্ড গরম ধোঁয়া, লাভাস্রোত, লাভাধস ও বিষাক্ত গ্যাসে পূর্ণ হয়ে গিয়েছে। সেখানে প্রাণের চিহ্ন আশা করা অর্থহীন।

বন্ধ করুন