বাংলা নিউজ > কর্মখালি > সোমবার থেকে খুলছে স্কুল, কোভিড সুরক্ষায় সরকারি নির্দেশিকা মেনে প্রস্তুত অসম
কোভিড সংক্রমণের মাঝেই ছয় মাস পরে সোমবার থেকে খুলতে চলেছে অসমের স্কুলগুলি।
কোভিড সংক্রমণের মাঝেই ছয় মাস পরে সোমবার থেকে খুলতে চলেছে অসমের স্কুলগুলি।

সোমবার থেকে খুলছে স্কুল, কোভিড সুরক্ষায় সরকারি নির্দেশিকা মেনে প্রস্তুত অসম

  • আপাতত সোম, বুধ ও শুক্রবার নবম ও দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের স্কুলে হাজিরা দেওয়ার ব্যবস্থা থাকবে এবং মঙ্গল, বৃহস্পতি ও শনিবার ক্লাস নেওয়া হবে দশম ও একাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের।

লাফিয়ে বেড়ে চলা কোভিড সংক্রমণের মাঝেই ছয় মাস পরে খুলতে চলেছে অসমের স্কুলগুলি। বুধবার এই বিষয়ে সবিস্তারে নির্দেশিকা জারি করেছে রাজ্য সরকার।

গত ১৫ মার্চ কোভিড সংক্রমণের জেরে সরকারি নির্দেশে বন্ধ হয়ে যায় সমস্ত স্কুল। এর মাঝে পড়ুয়ারা বাড়ি থেকে অনলাইন মাধ্যমে পঠনপাঠনের অংশগ্রহণ করে। সোমবার থেকে ফের স্কুলে নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির নিয়মিত ক্লাস নেওয়া শুরু হবে। ১৫ দিন পরে পরিস্থিতি পর্যালোচনার ভিত্তিতে পরবর্তী সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে। তবে সরকারি স্কুল চালু হলেও বেসরকারি স্কুলে নিয়মিত ক্লাস চালু করার সিদ্ধান্ত সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের উপরেই ছেড়ে দিয়েছে রাজ্য প্রশাসন।

শুক্রবার অসম মধ্যশিক্ষা পর্যদের অধিকর্তা ফণীন্দ্র জিডুং জানিয়েছেন, ‘সব রকম স্কুলের জন্যই নির্দেশিকা জারি করা হয়েছে। তবে বেসরকারি স্কুলে কবে থেকে ক্লাস চালু করা হবে, সেই সিদ্ধান্ত নেবে স্কুল কর্তৃপক্ষ। স্কুলে পড়ুয়াদের উপস্থিতি বাধ্যতামূলক নয় এবং বাবা-মায়ের অনুমোদন সাপেক্ষ। ১৫ দিন পরে পরিস্থিতি পর্যালোচনা করা হবে।’

নির্দেশিকায় বলা হয়েছে, নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের স্কুলে পঠনপাঠন চালু হলেও অন্যান্য শ্রেণির পড়াশোনা অনলাইন মাধ্যমেই চালু থাকবে। ঠিক হয়েছে, আপাতত সোম, বুধ ও শুক্রবার নবম ও দ্বাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের স্কুলে হাজিরা দেওয়ার ব্যবস্থা থাকবে এবং মঙ্গল, বৃহস্পতি ও শনিবার ক্লাস নেওয়া হবে দশম ও একাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের। 

তবে প্রতি শ্রেণির ক্ষেত্রেই এক এক দফায় শ্রেণিকক্ষে ২০ জনের বেশি পড়ুয়ার উপস্থিতি থাকবে না। যদি কোনও শ্রেণিতে কুড়ির বেশি সংখ্যক পড়ুয়া থাকে, সে ক্ষেত্রে দুই ব্যাচে ভাগ করে ক্লাস নেওয়া হবে। এ ক্ষেত্রে প্রথম ব্যাচের পড়ুয়ারা স্কুলে হাজিরা দেবে সকাল ৯টা থেকে দুপুর ১২টা পর্যন্ত এবং দ্বিতীয় ব্যাচের শিক্ষার্থীরা স্কুলে থাকবে দুপুর ১টা থেকে বিকেল ৪টে পর্যন্ত। 

স্কুল চত্বরের ভিতরে পড়ুয়া, শিক্ষক ও সমস্ত কর্মীর মাস্ক ও হ্যান্ড স্যানিটাইজার ব্যবহার এবং সামাজিক দূরত্ববিধি মেনে চলা আবশ্যিক।

স্কুলের শিক্ষক ও অশিক্ষক কর্মীর সংখ্যাও ৫০ শতাংশের বেশি থাকবে না বলে নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। যে সমস্ত পড়ুয়ার জটি শারীরিকসমস্যা রয়েছে, তাদের স্কুলে হাজিরা দেওয়ায় ছাড়দেওয়া হবে বলেও নির্দেশিকায় উল্লেখ করা হয়েছে। শিক্ষক, অশিক্ষক কর্মী ও পড়ুয়াদের দৈনিক স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য নিয়মিত পর্যবেক্ষণের জন্য স্কুল কর্তৃপক্ষকে জেলা প্রশাসনের সঙ্গে যোগাযোগ রক্ষা করতে হবে।  

পুনরায় স্কুল খোলার আগে রাজ্যজুড়ে সরকারি স্কুলের শিক্ষকদের কোভিড পরীক্ষা প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ করেছে অসম সরকার। শুধুমাত্র নেগেটিভ রিপোর্ট প্রাপ্ত শিক্ষকদেরই স্কুলে প্রবেশাধিকার দেওয়া হয়েছে। স্বাস্থ্য নিরাপত্তার খাতিরে স্যানিটাইজ করা হয়েছে স্কুল সমস্ত শ্রেণিকক্ষ-সহ গোটা চত্বর। 

অসমে এ পর্যন্ত মোট ১,৫০,৩৪৯ কোভিড পজিটিভ রোগীর সন্ধান পাওয়া গিয়েছে। তাঁদের মধ্যে ১,২১,৬১০ জন সুস্থ হয়ে উঠেছেন এবং ৫২৮ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গিয়েছে।

 

বন্ধ করুন