বাড়ি > কর্মখালি > আবাসিক পড়ুয়াদের হস্টেল ছাড়ার জন্য জোর করা হবে না, জানাল IIT খড়্গপুর
শিক্ষার্থীদের হোস্টেল খালি করার নির্দেশ দিলেও এখনও প্রায় ৪০০ পড়ুয়া খড়গপুর আইআইটি-র ছাত্রাবাসে আছেন।
শিক্ষার্থীদের হোস্টেল খালি করার নির্দেশ দিলেও এখনও প্রায় ৪০০ পড়ুয়া খড়গপুর আইআইটি-র ছাত্রাবাসে আছেন।

আবাসিক পড়ুয়াদের হস্টেল ছাড়ার জন্য জোর করা হবে না, জানাল IIT খড়্গপুর

  • বাড়ি ফিরে যেতে যদি পড়ুয়াদের সমস্যা থাকে, ইনস্টিটিউট তাঁদের কখনই জোর করবে না বলে জানিয়েছেন রেজিস্ট্রার।

২০ জুনের মধ্যে শিক্ষার্থীদের হোস্টেল খালি করার নির্দেশ দিলেও এখনও প্রায় ৪০০ পড়ুয়া খড়গপুর আইআইটি-র ছাত্রাবাসে আছেন। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, দুটি হোস্টেলে স্নাতক ও স্নাতকোত্তর স্তরের এই সব পড়ুয়াদের বেশিরভাগের বাড়ি অনেক দূরে।

IIT খড়গপুরের রেজিস্ট্রার বি এন সিং বলেন, ‘শিক্ষার্থীরা আমাদের সন্তানের মতো। তাই এখন বাড়ি যাওয়ার ক্ষেত্রে যদি তাদের অসুবিধে থাকে আমরা জোর করতে পারি না। তবে পরবর্তী সেমিস্টার শুরু হতে এখনও দু মাসেরও বেশি সময় বাকি আছে। তাই পড়াশোনার চাপ তেমন নেই। তাই শিক্ষার্থীদের কাছে আমাদের আর্জি, তাঁরা হোস্টেল ছেড়ে পরিবারের সঙ্গে থাকুন। নতুন উদ্যম নিয়ে আবার সেপ্টেম্বর মাসে ফিরে আসুন।’

১৫ দিন আগে হোস্টেলের ২৪০০ জন শিক্ষার্থী ও গবেষকদের মধ্যে ২০০০ জন বাড়ি ফিরে যান। তাঁদের যাতায়াতের ব্যবস্থা করে দেয় ইনস্টিটিউট ।

বাকি পড়ুয়ারা সামাজিক দূরত্ব মেনে দুটি হোস্টেলে আছেন। ধীরে ধীরে তাঁরাও বাড়ি চলে যাবেন। তবে বাড়ি ফিরে যেতে যদি তাঁদের সমস্যা থাকে ইনস্টিটিউট তাঁদের কখনই জোর করবে না বলে জানিয়েছেন রেজিস্ট্রার।

হোস্টেল কর্মীরা সকলেই বাড়ি চলে গেছেন। তাই কর্তৃপক্ষের সহায়তায় পড়ুয়াদের সবকিছু করতে হবে।

ছাত্রাবাসের ১২৫০০ জন শিক্ষার্থীর মধ্যে লক ডাউনের শুরুতে মার্চ মাসের শেষে ৫৪০০জন হোস্টেলে ছিলেন। এঁদের মধ্যে ৩০০০ শিক্ষার্থী মে মাসে নিজেদের বাড়ি চলে যান। ২৪০০ জন হোস্টেলে থেকে যান।

১৪ জুন ইনস্টিটিউটের তরফে শিক্ষার্থীদের ২০ জুনের মধ্যে হোস্টেল খালি করার কথা বলা হয়। 

বন্ধ করুন