বাড়ি > কর্মখালি > ফাইনাল পরীক্ষার বদলে কলেজে গড় নম্বরের ভিত্তিতে পাশের সিদ্ধান্ত উদ্ধবের
বর্তমান পরিস্থিতিতে কলেজের চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা আয়োজন করা সম্ভব নয়, জানিয়েছেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। ছবি: এএনআই।
বর্তমান পরিস্থিতিতে কলেজের চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা আয়োজন করা সম্ভব নয়, জানিয়েছেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। ছবি: এএনআই।

ফাইনাল পরীক্ষার বদলে কলেজে গড় নম্বরের ভিত্তিতে পাশের সিদ্ধান্ত উদ্ধবের

  • নতুন শিক্ষাবর্ষ শুরু হচ্ছে। তাই শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা এবং কেরিয়ার নষ্ট হতে দিতে চান না মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী।

বিশ্ববিদ্যালয়ের চূড়ান্ত বর্ষের পড়ুয়াদের স্বস্তি দিতে উদ্যোগী হল মহারাষ্ট্র। পরীক্ষা বাতিল করে ছাত্রছাত্রীদের পূর্ববর্তী সেমিস্টারে পাওয়া মোট নম্বরের গড়ের ভিত্তিতে মূল্যায়ন করা হবে বলে জানিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। 

ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সোমবার রাজ্যের বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যদের সঙ্গে বৈঠকের পরে টুইট বার্তায় মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন, ‘বর্ষা শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে নতুন শিক্ষাবর্ষ শুরু হবে। কিন্তু এখন প্রশ্ন হল, স্কুল-কলেজ কখন খুলবে এবং কখন চূড়ান্ত বর্ষের পরীক্ষা হবে। তিনি আরও টুইট করে বলেন যে, কলেজের পরীক্ষা সংক্রান্ত বিষয়ে আমি উপাচার্যদের সঙ্গে বৈঠক করেছি। সকলেই একবাক্যে বলেছেন যে, বর্তমান পরিস্থিতিতে কলেজে পরীক্ষা আয়োজন করা সম্ভব নয়। তার ফলে লক্ষ লক্ষ শিক্ষার্থীর জীবন সংশয় হতে পারে।’

উদ্ধব ঠাকরে উল্লেখ করেন, সরকার শিগগিরই নতুন একাডেমিক অধিবেশন শুরু করার পরিকল্পনা করছে। এটি ভার্চুয়াল হতে পারে, আবার সামাজিক দূরত্বের নিয়ম মেনে সরাসরিও ক্লাস নেওয়া হতে পারে।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘এখন আমরা পরীক্ষা নেওয়ার মতো অবস্থায় নেই। ভবিষ্যতেও কখন পারব তা নিশ্চিত করা বলা যাচ্ছে না। নতুন শিক্ষাবর্ষ শুরু হচ্ছে। তাই শিক্ষার্থীদের পড়াশোনা এবং কেরিয়ার নষ্ট হতে দিতে চাই না। তাই চূড়ান্ত বর্ষের ছাত্রছাত্রীদের নতুন করে পরীক্ষা না নিয়ে পূর্ববর্তী সেমিস্টারের নাম্বারের গড় করে তাদের মূল্যায়ন করা হবে। আর যেসব শিক্ষার্থী শেষ সেমিস্টারের নম্বর নিয়ে খুশি নন, তাঁদের পরীক্ষার জন্য পরিস্থিতি স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।’

মহারাষ্ট্র সরকার ইতিমধ্যে কলেজের প্রথম এবং দ্বিতীয় বর্ষের পরীক্ষা বাতিল করেছে এবং রাজ্যের পরিস্থিতি বিবেচনা করে, তৃতীয় বর্ষের শিক্ষার্থীদের জন্যও এই সিদ্ধান্ত নিয়েছে।

 

বন্ধ করুন