বাড়ি > কর্মখালি > NEET 2020: পড়ুয়াদের স্বার্থে বাংলায় লকডাউন প্রত্যাহারের আর্জি জামাত প্রধানের
পরীক্ষার্থীদের স্বার্থে ১১ ও ১২ সেপ্টেম্বর লকডাউন প্রত্যাহারের আর্জি জানাল জামাত-এ-ইসলামি হিন্দ সংগঠনের পশ্চিমবঙ্গ শাখা।
পরীক্ষার্থীদের স্বার্থে ১১ ও ১২ সেপ্টেম্বর লকডাউন প্রত্যাহারের আর্জি জানাল জামাত-এ-ইসলামি হিন্দ সংগঠনের পশ্চিমবঙ্গ শাখা।

NEET 2020: পড়ুয়াদের স্বার্থে বাংলায় লকডাউন প্রত্যাহারের আর্জি জামাত প্রধানের

  • পরীক্ষার্থীদের হয়রানির আশঙ্কায় পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে ১১ ও ১২ সেপ্টেম্বরের লকডাউন প্রত্যাহারের আবেদন জানানো হয়েছে। 

বুধবার সুপ্রিম কোর্টের সিদ্ধান্তের জেরে নির্ধারিত সময়েই NEET আয়োজিত হতে চলেছে। এ দিকে পরীক্ষার ঠিক আগেই পর পর ২ দিন পশ্চিমবঙ্গে লকডাউন। পরীক্ষার্থীদের স্বার্থে তাই ১১ ও ১২ সেপ্টেম্বর রাজ্য সরকার ঘোষিত লকডাউন প্রত্যাহারের আর্জি জানাল জামাত-এ-ইসলামি হিন্দ সংগঠনের রাজ্য শাখা।

NEET পরীক্ষার্থীদের হয়রানির আশঙ্কায় পশ্চিমবঙ্গ সরকারকে লকডাউন প্রত্যাহারের আবেদন জানানো হয়েছে। জামাত-এ-ইসলামি হিন্দ-এর পশ্চিমবঙ্গ শাখার সভাপতি মওলানা আব্দুর রফিক এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, বিভিন্ন রাজ্যের আপত্তি থাকলেও শেষ পর্যন্ত সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশে ১৩ সেপ্টেম্বর সর্বভারতীয় পর্যায়ে NEET পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। কলকাতা ও শিলিগুড়ি শহরে NEET পরীক্ষা গ্রহণ করা হবে। কিন্তু পরীক্ষা নিয়ে পরীক্ষার্থীরা হয়রানির আশঙ্কা করছেন। পরীক্ষার আগের দুই দিন রাজ্যে লকডাউন ঘোষিত হয়েছে। ফলে দূরদূরান্ত থেকে পরীক্ষার্থীদের পক্ষে পরীক্ষাকেন্দ্রে পৌঁছানো বেশ দুরূহ ব্যাপার। 

আব্দুর রফিকের মতে, বিভিন্ন জেলা থেকে যে সমস্ত পরীক্ষার্থী পরীক্ষায় অংশ নিতে চলেছেন, তাঁদের অনেককেই পরীক্ষার দুই দিন আগে কলকাতা বা শিলিগুড়ি শহরে পৌঁছতে হবে। তাঁদের জন্য যানবাহন, শহরে থাকা, খাওয়াদাওয়ার ব্যবস্থা করা খুবই কষ্টকর।

তিনি আরও বলেন, ‘এই ধরনের গুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষার কথা মাথায় রেখে আমি রাজ্য সরকারের কাছে আর্জি জানাচ্ছি, পরীক্ষার্থীদের সুবিধার জন্য ঘোষিত লকডাউন প্রত্যাহার করা হোক। এর ফলে পরীক্ষার্থীরা নির্বিঘ্নে পরীক্ষা দিতে পারবেন এবং অভিভাবকরা নিশ্চিন্ত হতে পারেন।’

বন্ধ করুন