বাড়ি > কর্মখালি > NEP 2020: বৃত্তি-সহ ৪ বছরের বিএড কোর্স চালু করছে কেন্দ্র, পাশ করলেই মিলবে চাকরি
কোর্স সম্পূর্ণ করার পরে পড়ুয়াদের মেধার ভিত্তিতে শিক্ষকতায় নিয়োগ করা হবে বলে জানা গিয়েছে।
কোর্স সম্পূর্ণ করার পরে পড়ুয়াদের মেধার ভিত্তিতে শিক্ষকতায় নিয়োগ করা হবে বলে জানা গিয়েছে।

NEP 2020: বৃত্তি-সহ ৪ বছরের বিএড কোর্স চালু করছে কেন্দ্র, পাশ করলেই মিলবে চাকরি

  • দেশের প্রতিটি অঞ্চলে এই কোর্স পড়ার সুযোগ থাকলেও প্রধান নিশানায় থাকছেন গ্রামীণ অঞ্চলের শিক্ষার্থীরা।

চিকিৎসক ও ইঞ্জিনিয়ারের মতো শিক্ষকতাকে পেশা হিসেবে বেছে নেওয়ার জন্য নবীন প্রজন্মের মধ্যে আগ্রহ তৈরি করতে বিএড প্রশিক্ষণ এবং তার পরে চাকরি নিশ্চিত করার উদ্যোগ নিল কেন্দ্রীয় সরকার। 

রাষ্ট্রীয় শিক্ষা নীতির অন্তর্গত এই প্রকল্প সম্পর্কে কিছু দিনের মধ্যে বিস্তারিত জানাতে চলেছে কেন্দ্রীয় শিক্ষা মন্ত্রক। সরকারের মূল উদ্দেশ্য, যোগ্য পড়ুয়াদের শিক্ষকতায় আকৃষ্ট করতে একটি ৪ বছরের উৎকৃষ্ট মানের বিএড কোর্স চালু করা। 

এই কোর্সে ভরতি হওয়া পড়ুয়াদের মেধার ভিত্তিতে বৃত্তি-সহ শিক্ষকতায় নিয়োগ করা হবে বলে জানা গিয়েছে। দেশের প্রতিটি অঞ্চলে এই কোর্স পড়ার সুযোগ থাকলেও প্রধান নিশানায় থাকছেন গ্রামীণ অঞ্চলের শিক্ষার্থীরা। গ্রামীণ ভারতে উন্নত মানের শিক্ষকের অভাব দূর করতেই কেন্দ্রের এই উদ্যোগ, জানিয়েছে শিক্ষা মন্ত্রক। 

রাষ্ট্রীয় শিক্ষা নীতি অনুযায়ী, চার বছরের এই বিএড কোর্স সম্পূর্ণ করা মেধাবী শিক্ষার্থীদের স্থানীয় স্তরে শিক্ষকতা করার সুযোগ দেওয়া হবে। শুধু তাই নয়, আগামী দিনের পড়ুয়াদের সামনে তাঁদের রোল মডেল হিসেবে উপস্থাপনা করার পরিকল্পনাও রয়েছে শিক্ষা মন্ত্রকের। 

মন্ত্রকের এই পদক্ষেপে গ্রামীণ অঞ্চলের সরকারি স্কুলগুলিতে উন্নত মানের শিক্ষা ব্যবস্থা স্থাপন করা যাবে বলে মনে করা হচ্ছে। 

এই পরিকল্পনা সফল করার লক্ষ্যে স্কুলের কাছাকাছি শিক্ষকদের বাসস্থান নির্দিষ্ট করা হবে বলে জানা গিয়েছে। প্রয়োজনে স্কুল চত্বরের পাশে তাঁদের থাকার ব্যবস্থাও করা হতে পারে। 

গ্রামীণ শিক্ষা ব্যবস্থায় অনলাইন পঠনপাঠনের উপরে জোর দেওয়া হবে বলে জানিয়েছে মন্ত্রক। এর জন্য শিক্ষকদের বিশেষ ইন্টারনেট প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। 

শিক্ষকদের নিয়োগ করার সময় হাতেকলমে দেখে নেওয়া হবে তাঁদের ক্লাস নেওয়ার পারদর্শিতা। এর জন্য তাঁদের স্থানীয় ভাষায় দক্ষ হওয়াও বাঞ্ছনীয়।

বন্ধ করুন