ছবিটি প্রতীকী।
ছবিটি প্রতীকী।

ক্লার্কশিপ পরীক্ষায় কড়া পদক্ষেপ পিএসসি-এর, জানুন বিশদে

মোট দুই পর্যায়ে ক্লার্কশিপ পরীক্ষা নেওয়া হবে। লিখিত পরীক্ষার পরে পরীক্ষার্থীদের বাংলা ও ইংরেজি টাইপের দক্ষতা যাচাই করা হবে। এই দুই পর্যায়ে সাফল্যের ভিত্তিতেই নিয়োগপত্র দেওয়া হবে।

রাজ্য সরকারের ক্লার্কশিপ পদের জন্য পরীক্ষা নিতে চলেছে পাবলিক সার্ভিস কমিশন। আগামী ২৫ জানুয়ারি এই পরীক্ষায় বসতে চলেছেন প্রায় ৮ লাখ পরীক্ষার্থী।

এই পদের জন্য পরীক্ষা কোন সংস্থা পরিচালনা করবে, তাই নিয়ে প্রথমে ধন্দ দেখা দেয়। বিশেষ করে সংশয় জাগে পরীক্ষা পরিচালক সংস্থা হিসেবে স্টাফ সিলেকশন কমিশনের নাম উঠে আসায়। অবশেষে সমস্ত অনিশ্চয়তার অবসান ঘটিয়ে ক্লার্কশিপ পরীক্ষা আয়োজন করতে চলেছে পিএসসি। উল্লেখ্য, ২০০৭ সালের পরে আবার গ্রুপ সি পদে নিয়োগের পরীক্ষা আয়োজন করতে চলেছে পিএসসি।

কোন শর্তে ভারতীয় নাগরিকত্ব, জানালেন কেন্দ্রের উচ্চপদস্থ আধিকারিক

জানা গিয়েছে, মোট দুই পর্যায়ে ক্লার্কশিপ পরীক্ষা নেওয়া হবে। লিখিত পরীক্ষার পরে পরীক্ষার্থীদের বাংলা ও ইংরেজি টাইপের দক্ষতা যাচাই করা হবে। এই দুই পর্যায়ে সাফল্যের ভিত্তিতেই নিয়োগপত্র দেওয়া হবে।

ক্লার্কশিপ পরীক্ষার জন্য গত ফেব্রুয়ারি মাসে বিজ্ঞপ্তি দিয়েছিল পিএসসি। পরীক্ষার আয়োজনে এর মধ্যেই প্রশাসনিক কর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেছে কমিশন। প্রতিটি জেলার জেলাশাসক ও পুলিশ কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের পরে পরীক্ষার দিন ক্ষণ চূড়ান্ত করা হয়েছে।

নিয়োগ পরীক্ষায় স্বচ্ছতা আনতে বেশ কিছু কড়া পদক্ষেপ নিয়েছে পিএসসি। পরীক্ষা কেন্দ্রে মোবাইল নিষিদ্ধ করা হয়েছে। উত্তরপত্রে পরীক্ষার্থীর নাম অথবা রোল নম্বর লিখলে ১০% নম্বর কাটা হবে বলে জানিয়েছে কমিশন।

বন্ধ করুন