বাংলা নিউজ > কর্মখালি > ধাপে ধাপে SAIL-এর লক্ষ্মীলাভ, কীভাবে ফোর্বসের সেরার তালিকায় এলেন সোমা মন্ডল

ধাপে ধাপে SAIL-এর লক্ষ্মীলাভ, কীভাবে ফোর্বসের সেরার তালিকায় এলেন সোমা মন্ডল

গ্রাফিক্স: হিন্দুস্তান টাইমস বাংলা (HT Bangla)

সাধারণ শিক্ষানবিশ থেকে ধাপে ধাপে সংস্থার ডিরেক্টর। তারপর আরেক রাষ্ট্রায়ত্ত্ব সংস্থার প্রথম মহিলা চেয়ারপার্সন। সেখানেও দুর্দান্ত সাফল্য। স্টিল অথরিটি অফ ইন্ডিয়ার(SAIL) চেয়ারপার্সন সোমা মন্ডল নতুন প্রজন্মের কাছে অনুপ্রেরণা স্বরূপ।  

Forbes' Asia's Power Businesswomen 2022: একজন সাধারণ শিক্ষানবিশ থেকে ধাপে ধাপে সংস্থার ডিরেক্টর। তারপর আরেক রাষ্ট্রায়ত্ত্ব সংস্থার প্রথম মহিলা চেয়ারপার্সন। সেখানেও দুর্দান্ত সাফল্য। স্টিল অথরিটি অফ ইন্ডিয়ার(SAIL) চেয়ারপার্সন সোমা মন্ডল নতুন প্রজন্মের কাছে অনুপ্রেরণা স্বরূপ। আর সেই কারণেই, ব্যবসা ক্ষেত্রে এশিয়ার সবচেয়ে ক্ষমতাশালী ২০ জন মহিলার তালিকায় স্থান পেলেন বাংলার মেয়ে। ফোর্বসের এশিয়াস পাওয়ার বিজনেস ওমেন ২০২২ তালিকায় নাম রয়েছে তাঁর। তিনি ছাড়া আরও ২ ভারতীয় মহিলা উদ্যোক্তা এই তালিকায় রয়েছেন। তাঁরা হলেন প্রসাধনী সংস্থা মামাআর্থের সহ-প্রতিষ্ঠাতা গজল আলাঘ এবং এমকিউর ফার্মার একেজিকিউটিভ ডিরেক্টর নমিতা থাপার। আরও পড়ুন: এশিয়ার সেরা ২০ মহিলা ব্যবসায়ীর তালিকায় বঙ্গতনয়া-সহ ৩ ভারতীয়! আছেন 'শার্ক'-ও

ছোট থেকেই কৃতি পড়ুয়া হিসাবে পরিচিত সোমা মন্ডল। অঙ্ক, বিজ্ঞানে আগ্রহ দারুণ দখল। ১৯৮৪ সালে রৌরকেল্লার ন্যাশনাল ইন্সটিটিউট অফ টেকনোলজি থেকে ইলেক্ট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং পাশ করেন। তারপর ন্যাশনাল অ্যালুমিনিয়াম কোম্পানিতে(NALCO) যোগ দেন স্নাতক ইঞ্জিনিয়ার শিক্ষানবীশ হিসাবে। কিন্তু তিনি যে আর পাঁচজনের তুলনা আলাদা ধাতুতে গড়া, তা নিজের কাজ দিয়েই পরিচয় দেন। 

কঠোর পরিশ্রম ও অধ্যাবসায়ের ফলও পান হাতেনাতে। ধাপে ধাপে কেরিয়ারের বিভিন্ন স্তর পেরিয়ে ন্যালকোর বাণিজ্যিক ডিরেক্টরের পদে আসীন হন। এরপর ২০১৭ সালে এই একই পদে যোগ দেন সেইলে(SAIL)। প্রায় ৪ বছর পর ২০২১ সালে সংস্থার চেয়ারপার্সন হিসাবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন সোমা মন্ডল।

দায়িত্ব গ্রহণের পরপরই স্পষ্ট জানিয়ে দেন, চেয়ারপার্সন হিসাবে সংস্থার শীর্ষ এবং নিচু, উভয় স্তরেই উন্নতিতে নজর দেবেন তিনি। পরিকাঠামোগতভাবে সেইল-কে আরও উন্নত করে তোলার ডাক দেন।

এর আগেও সেইল-এর হয়ে বেশ কিছু গুরুত্বপূর্ণ ব্যবসায়িক সিদ্ধান্ত নেন তিনি। এমন কিছু সিদ্ধান্ত, যা সংস্থাকে আধুনিক বাজারের সঙ্গে খাপ খাওয়াতে ও আর্থিক ভিত শক্ত করতে সাহায্য করে। সেইল-এর এক বিবৃতি অনুযায়ী, তাঁরই নেতৃত্বে এসইকিউআর টিএমটি বার এবং নেক্স (‌স্ট্রাকচারাল)‌ বাজারে আনা হয়। আর এর ফলেই তুমুল লক্ষীলাভ হয় সংস্থার। আরও পড়ুন: 

তাঁর নেতৃত্বে, ইস্পাত প্রস্তুতকারী সংস্থার বার্ষিক আয় ৫০ শতাংশ বৃদ্ধি পেয়ে ১.০৩ লক্ষ কোটি টাকারও বেশি হয়ে যায়। ৩১শে মার্চ শেষ হওয়া শেষ অর্থবর্ষে সংস্থার মোট মুনাফা বেড়েছে ১২ হাজার কোটি টাকা।

বন্ধ করুন