বাংলা নিউজ > কর্মখালি > ২৮ ডিসেম্বর থেকে ত্রিপুরার স্কুলে নবম ও একাদশ শ্রেণির ক্লাস শুরু হচ্ছে
২৮ ডিসেম্বর থেকে নবম ও একাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের জন্য নিয়মিত স্কুলে ক্লাস চালু করার ঘোষণা করল ত্রিপুরার শিক্ষা দফতর।
২৮ ডিসেম্বর থেকে নবম ও একাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের জন্য নিয়মিত স্কুলে ক্লাস চালু করার ঘোষণা করল ত্রিপুরার শিক্ষা দফতর।

২৮ ডিসেম্বর থেকে ত্রিপুরার স্কুলে নবম ও একাদশ শ্রেণির ক্লাস শুরু হচ্ছে

  • ২৮ ডিসেম্বর থেকে নবম ও একাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের জন্য নিয়মিত স্কুলে ক্লাস চালু করার ঘোষণা করল ত্রিপুরার শিক্ষা দফতর।

প্রায় দিন কুড়ি হল দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্রদের স্কুলে এসে ক্লাস করার অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এবার ২৮ ডিসেম্বর থেকে নবম ও একাদশ শ্রেণির পড়ুয়াদের জন্যও নিয়মিত স্কুলে ক্লাস চালু করার ঘোষণা করল ত্রিপুরার শিক্ষা দফতর।

মঙ্গলবার রাতে ত্রিপুরার মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের যুগ্ম সচিব সাজু বাহিদ জানিয়েছেন, ‘যা বোঝা যাচ্ছে, রাজ্যে কোভিড সংক্রমণ এখন নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। সেই কারণে ২৮ ডিসেম্বর ২০২০ তারিখ থেকে নবম ও একাদশ শ্রেণির (সরকারি, সরকারি সাহায্যপ্রাপ্ত এবং বেসরকারি স্কুল) নিয়মিত ক্লাস চালু করা হবে।’ 

তবে জানা গিয়েছে, স্কুলে হাজিরা দিতে গেলে পড়ুয়াদের অভিভাবকের চিঠি আনতে হবে।

সংশ্লিষ্ট স্কুলগুলির প্রধান শিক্ষক ও অধ্যক্ষদের পড়ুয়া, শিক্ষক, অভিভাবক ও স্কুলকর্মীদের জন্য নিয়মিত স্যানিটাইজেশন. থারক্মাল স্ক্যানিং ও হাত ধোয়ার ব্যবস্থা করতে হবে। সেই সঙ্গে ৬ ফিট ব্যবধানে শিক্ষার্থীদের ক্লাসে বসার ব্যবস্থা করতেও বলা হয়েছে। 

কোভিড অতিমারীর কারণে গত মার্চ মাস থেকে সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ করার নির্দেশ দেয় কেন্দ্রীয় সরকার। সেই নির্দেশ মেনে মার্চের মাঝামাঝি থেকে ত্রিপুরার প্রায় ৪.৪০০ সরকারি ও সরকারি অনুদানে চলা স্কুল বন্ধ রাখা হয়। 

টানা ৮ মাস স্কুল-কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয় বন্ধ থাকলেও অনলাইন পঠনপাঠন চালু রাখার চেষ্টা করে ত্রিপুরা সরকার। ছাত্রদের স্বার্থে স্থানীয় টিভি চ্যানেলে শিক্ষামূলক অনুষ্ঠান, শিক্ষকদের পড়ানো, ছাত্রদের হেলপলাইন কল সেন্টার, এসএমএস ভিত্তিক ক্লাস চালু রাখা হয় এই সময়। 

স্বাস্থ্য মন্ত্রকের সাম্প্রতিক রিপোর্ট অনুযায়ী, ত্রিপুরায় মোট ৩৩,১৮৮ জন কোভিড রোগ রয়েছেন। এঁদের মধ্যে ৩৮০ জন সংক্রমণের জেরে মারা যান এবং দু’জন আত্মঘাতী হন।

বন্ধ করুন