বাড়ি > কর্মখালি > বোর্ড পরীক্ষায় ফেল করেও ক্লাসে উঠতে ‘বছর বাঁচাও’ পরীক্ষার ব্যবস্থা করল ত্রিপুরা
আগামী সেপ্টেম্বর মাসে বথর বাঁচাও পরীক্ষার আয়োজন করছে ত্রিপুরা মধ্যশিক্ষা পর্ষদ।
আগামী সেপ্টেম্বর মাসে বথর বাঁচাও পরীক্ষার আয়োজন করছে ত্রিপুরা মধ্যশিক্ষা পর্ষদ।

বোর্ড পরীক্ষায় ফেল করেও ক্লাসে উঠতে ‘বছর বাঁচাও’ পরীক্ষার ব্যবস্থা করল ত্রিপুরা

  • দশম শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষায় যে সমস্ত পরীক্ষার্থী মোট ১৫০ নম্বর পেলেও দুই বিষয়ে অকৃতকার্য হয়েছে, তাদের জন্য ‘বছর বাঁচাও’ পরীক্ষার ব্যবস্থা করল ত্রিপুরা মধ্যশিক্ষা পর্ষদ।

দশম শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষায় যে সমস্ত পরীক্ষার্থী মোট ১৫০ নম্বর পেলেও দুই বিষয়ে অকৃতকার্য হয়েছে, তাদের পাশ করিয়ে পরবর্তী ক্লাসে ওঠার সুযোগ করে দিতে ‘বছর বাঁচাও’ পরীক্ষার ব্যবস্থা করল ত্রিপুরা মধ্যশিক্ষা পর্ষদ (TBSE)।

জানা গিয়েছে, আগামী সেপ্টেম্বর মাসে এই প্রথম ‘বছর বাঁচাও’ পরীক্ষা আয়োজন করতে চলেছে পর্ষদ। এই পরীক্ষায় পাশ করলে কলেজে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পাবে দশম শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষায় অকৃতকার্য পড়ুয়ারা। এ ক্ষেত্রে বোর্ড পরীক্ষার ফল প্রকাশের ৭৫ দিনের মধ্যে তাদের একটি ‘রি-টেস্ট’ দিতে হবে।

শনিবার ত্রিপুরা মধ্যশিক্ষা পর্।দের সভাপতি ডক্টর ভবতোষ সাহা জানিয়েছেন, ‘আগামী ২০ অগস্টের মধ্যেই আমরা ‘বছর বাঁচাও’ পরীক্ষা সম্পর্কে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করব। এর ফলে বছর নষ্ট না করে দ্বিতীয় বার পরীক্ষার দেওয়ার সুযোগ পাবে পরীক্ষার্থীরা। এখনও পর্যন্ত ঠিক হয়েছে, আগামী সেপ্টেম্বর মাসে এই পরীক্ষা আয়োজন করা হবে। তবে Covid-19 পরিস্থিতির কারণে পরীক্ষার দিন পরিবর্তন করা হতে পারে।’

সেি সঙ্গে বোর্ড সভাপতি জানিয়েচেন, চলতি অগস্ট মাসের মদ্যেই দশম শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষার উত্তরপত্রের রিভিউ সম্পূর্ণ হবে। 

উল্লেখ্য, ইতিমধ্যে দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির বোর্ড পরীক্ষার ফল প্রকাশ করেছে TBSE। দশম শ্রেণির পরীক্ষায় ৬৯.৪৯% এবং দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষায় ৮০.৮০% পাশের হার দেখা গিয়েছে। এ পর্যন্ত প্রায় ৫,০০০ পরীক্ষার্থী ১৭,০৮২টি উত্তরপত্র রিভিউ করতে দিয়েছে। 

এ দিন বোর্ড সভাপতি জানিয়েছেন, ‘যদি কোনও পরীক্ষার্থী ১৫০ নম্বর পেয়ে থাকে কিন্তু তিনটি বিষয়ে ফেল করে, তা হলে রিভিউ প্রক্রিয়া চলাকালীন সে বছর বাঁচাও পরীক্ষায় বসে কোনও একটি বিষয়ে পাশ নম্বর তুলতে পারে। এই কারণে রিভিউ প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার পরেই বছর বাঁচাও পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে।’

বন্ধ করুন