বাড়ি > কর্মখালি > কবে রেজাল্ট? কবে পরীক্ষা? #SpeakUpForSSCRailwayStudents ট্রেন্ড করে ক্ষোভপ্রকাশ চাকরিপ্রার্থীদের
#SpeakUpForSSCRailwayStudents-এ উত্তাল নেটদুনিয়া (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)
#SpeakUpForSSCRailwayStudents-এ উত্তাল নেটদুনিয়া (ছবিটি প্রতীকী, সৌজন্য পিটিআই)

কবে রেজাল্ট? কবে পরীক্ষা? #SpeakUpForSSCRailwayStudents ট্রেন্ড করে ক্ষোভপ্রকাশ চাকরিপ্রার্থীদের

বিষয়টি নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে চিঠিও পাঠানো হয়েছে।

২০১৮ সালে প্রকাশিত হয়েছিল বিজ্ঞপ্তি। তারপর দু'বছর কেটে গিয়েছে। নিয়োগ তো দূর অস্ত, কম্বাইনড গ্র্যাজুয়েট লেভেল টিয়ার ৩-এর ফলই ঘোষণা করে উঠতে পারেনি স্টাফ সিলেকশন কমিশন (এসএসসি)।

কাট টু আরআরবি এনটিপিসি পরীক্ষা ২০১৯। এসএসসি তো তাও পরীক্ষা নিয়েছে, রেলের অবস্থা তো আরও খারাপ। গত বছর ফেব্রুয়ারিতে আরআরবি (রেলওয়ে রিক্রুটমেন্ট বোর্ড) এনটিপিসি পরীক্ষার বিজ্ঞপ্তি জারি হয়েছিল। তারপর ১৭ মাস কেটে গেলেও পরীক্ষা হয়নি। কবে হবে, জানেন না চাকরিপ্রার্থীরাও।

সেই দীর্ঘসূত্রতার জেরে এতদিন ধরে ক্ষোভ পুঞ্জীভূত হচ্ছিল। গত কয়েকদিন ধরে আগ্নেয়গিরির লাভার মতো সোশ্যাল মিডিয়ায় সেই ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে। গত কয়েকদিন ধরে টুইটারে #SpeakUpForSSCRailwayStudents ট্রেন্ড হচ্ছে। ফেসবুকের দেওয়ালেও ক্ষোভ ঝরে পড়েছে।

সৌতিক দাস নামে তেমনই একজন ফেসবুকে লেখেন, 'এই সরকারই করোনা পরিস্থিতির মধ্যেও দেশজুড়ে ২৬ লাখ জয়েন্ট, নিট প্রার্থীর পরীক্ষা নিতে উঠেপড়ে লেগেছে। কিন্তু রেলের প্রায় ২ কোটি ৪১ লাখ পরীক্ষার্থী (রেলের তথ্য অনুযায়ী, এনটিপিসিতে ৩৫,০০০-এর মতো শূন্যপদের জন্য আবেদন জমা পড়েছিল ১,২৬,৩০,৮৮৫) ৫০০/২৫০ টাকা দিয়ে ফর্ম ফিলআপ করে যে আজ প্রায় ১ বছর ৬ মাস অপেক্ষা করে বসে আছেন, তাঁদের আর পরীক্ষা নিতে পারছে না।'

গত বছর ডিসেম্বরে এসএসসি সিজিএলের (২০১৮) টিয়ার ৩ পরীক্ষা হয়েছিল। কিন্তু এখনও টিয়ার ৩ পরীক্ষার ফল ঘোষণা করতে পারেনি। যে নিয়োগ প্রক্রিয়ায় গ্রুপ 'সি' এবং 'ডি' পদে ১১,০০০-এর বেশি শূন্যপদে নিয়োগ করা হবে। তা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই চাকরিপ্রার্থীদের মধ্যে ক্ষোভের আগুন ধিকিধিক করে জ্বলছিল। তারইমধ্যে করোনাভাইরাস পরিস্থিতিতে সর্বভারতীয় ইঞ্জিনিয়ারিং প্রবেশিকার (জেইই মেন) ও মেডিক্যালের সর্বভারতীয় অভিন্ন প্রবেশিকা পরীক্ষা (নিট) নেওয়ার ক্ষেত্রে কেন্দ্রের অবস্থানে চাকরিপ্রার্থীদের ধৈর্যের বাঁধ ভেঙে যায়।

টুইটারে এক নেটিজেন বলেন, 'আমি সরকারকে অনুরোধ করছি যে দয়া করে আমাদের দু'তিন বছরের কঠোর পরিশ্রম বৃথা যেতে দেবেন না। এসএসসি ও আরআরবির ব্যবহারে আমাদের সুবর্ণ সময় নষ্ট হচ্ছে। এই ভাঁওতাবাজি এবং দীর্ঘসূত্রতা বন্ধ করুন।'

বছর দুয়েক সিজিএল এবং বছরে দেড়েক আগে আরআরবি এনটিপিসির ফর্ম পূরণ করেছিলেন কলকাতার বাসিন্দা মেঘা চক্রবর্তী। ফেসবুকে #SpeakUpForSSCRailwayStudents ট্যাগেও পোস্ট করছেন। তাঁর কথায়, '৮৫০ দিনের বেশি হয়ে গেল। কিন্তু সিজিএল ২০১৮-র পরীক্ষার ফল প্রকাশ হল না। আরআরবি এনটিপিসির বিজ্ঞপ্তির পর ৫৫০ দিন অতিক্রান্ত। কিন্তু পরীক্ষার দিনের কোনও বালাই নেই। এটা বন্ধ হওয়া উচিত।'

নিয়োগ পরীক্ষা নিয়ে দীর্ঘসূত্রতা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে ইতিমধ্যে মেল পাঠিয়েছে জাতীয় বাংলা সম্মেলন। পাশাপাশি বাংলার সব সাংসদের কাছেও সেই মেল পাঠানো হয়েছে। সংসদের আসন্ন অধিবেশনে বিষয়টি উত্থাপন করার আর্জি জানানো হয়েছে।

যদিও সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রবল ক্ষোভের মুখে পড়ে কিছুটা নড়েচড়ে বসেছে এসএসসি। একটি বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করে জানানো হয়েছে, আগামী ৪ অক্টোবর ২০১৮ সালের সিজিএল পরীক্ষার টিয়ার ৩ পরীক্ষার ফল প্রকাশ হতে পারে। যদিও আরআরবি এনটিপিসি পরীক্ষা নিয়ে এখনও মুখে কুলুপ এঁটেছে রেল।

বন্ধ করুন