বাংলা নিউজ > ক্রিকেট > এশিয়া কাপ > বিরাটের থেকে প্রশংসা পাওয়াটা গর্বের- ইন্দো-পাক দ্বৈরথের আগে আবেগপ্রবণ বাবর

বিরাটের থেকে প্রশংসা পাওয়াটা গর্বের- ইন্দো-পাক দ্বৈরথের আগে আবেগপ্রবণ বাবর

বাবর আজম এবং বিরাট কোহলি।

কয়েক দিন আগেই বাবর আজমকে সমস্ত ফর্ম্যাট মিলিয়ে সেরা ব্যাটারের অ্যাখ্যা দিয়েছিলেন বিরাট কোহলি। সেই প্রসঙ্গেই বাবরকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, তাঁর কাছে বিরাটের থেকে প্রশংসা পাওয়াটা অত্যন্ত গর্বের বিষয়।

শুভব্রত মুখার্জি: বর্তমান সময়ে বিশ্ব ক্রিকেটের তিন ফর্ম্যাটেই অন্যতম সেরা দুই ব্যাটার বিরাট কোহলি এবং বাবর আজম। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী দুই ব্যাটারের মধ্যে ২২ গজে যেমন লড়াই রয়েছে, তেমন ২২ গজের বাইরে রয়েছে বন্ধুত্ব। এর পাশাপাশি একে অপরের প্রতি রয়েছে গভীর ভালোবাসা, শ্রদ্ধা এবং সম্মান। বারবার দুই তারকার কথাতেই তা ধরা পড়েছে। বাবর আজমের প্রশংসা করতে কোনও দিন কোন কুন্ঠাবোধ করেননি বিরাট কোহলি। জনসমক্ষে বারবার তা করেছেন। আর সেই বিষয়টি নিয়েই এবার জানতে চাওয়া হয়েছিল বাবর আজমের কাছে। যার উত্তরে বাবর জানিয়েছেন, বিরাটের থেকে প্রশংসা পাওয়া গর্বের বিষয়।

২০২২ সালেই বাবর আজমের প্রশংসা করে বিরাট কোহলি জানিয়েছিলেন, পাক অধিনায়ক এখন বড় একজন তারকা হয়ে গিয়েছেন। কিন্তু তার পরে তাঁর ব্যবহার এবং শ্রদ্ধা বিরাটের প্রতি একটুও পরিবর্তন হয়নি। বিরাট জানান, এই ধরনের ক্রীড়িবিদরা জীবনে আরও উন্নতি করেন। মানুষের কাছে অনুপ্রেরণা হয়ে ওঠেন। কয়েক দিন আগেই বিরাট ফের একবার বাবর আজমকে সমস্ত ফর্ম্যাট মিলিয়ে সেরা ব্যাটারের অ্যাখ্যা দিয়েছিলেন। সেই প্রসঙ্গেই বাবরকে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, ‘আমার কাছে এটা (বিরাটের থেকে প্রশংসা পাওয়া) অত্যন্ত একটা গর্বের বিষয়। যখন বিরাটের মতন কোনও একজন ক্রিকেটার প্রশংসা করে তাহলে আত্মবিশ্বাস অনেকটাই বেড়ে যায়।’ পাশাপাশি বাবর আরও যোগ করেছেন, ‘আমার সঙ্গে বিরাটের যখনই দেখা হয়েছে, তখনই ওর থেকে আমি কিছু না কিছু শিখেছি। সব সময়েই বিরাটের কাছ থেকে আমি শেখার চেষ্টা করি।’

প্রসঙ্গত চলতি এশিয়া কাপে ২ সেপ্টেম্বর ভারত মুখোমুখি হবে পাকিস্তানের। শ্রীলঙ্কার পাল্লিকেলেতে খেলা হবে এই ম্যাচ। যদিও ম্যাচের দিন বৃষ্টির একটা আশঙ্কা রয়েই গিয়েছে। ফলে ম্যাচ আদৌ করা সম্ভব হবে কিনা, তা নিয়েও জল্পনা থাকছে। বাবর আজম অবশ্য দুই ক্রিকেটারের প্রথম সাক্ষাতেরও স্মৃতিচারণ করেছেন। স্মৃতিচারণ করে তিনি বলেছেন, ‘২০১৯ সালের ওডিআই বিশ্বকাপে আমাদের দুই দেশের ম্যাচ হওয়ার পর আমি দেখা করতে গিয়েছিলাম বিরাটের সঙ্গে। তখন বিরাট তাঁর ফর্মের শীর্ষে ছিল। এই মুহূর্তেও তাই রয়েছে। আমি বিরাটের কাছ থেকে কিছু শিখতে চেয়েছিলাম। সে দিন আমি অনেক কিছু শিখেও ছিলাম ওর থেকে। আমি বেশ কিছু প্রশ্ন করেছিলাম। সবকটার উত্তর আমাকে সুন্দর ভাবে ব্যাখ্যা করে বুঝিয়ে দিয়েছিল।’

বন্ধ করুন