বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ > বালিগঞ্জের বাম প্রার্থী আদতে ব্রিটিশ? ভাইঝি সায়রার ঢাল এবার খোদ নাসিরউদ্দিন শাহ

বালিগঞ্জের বাম প্রার্থী আদতে ব্রিটিশ? ভাইঝি সায়রার ঢাল এবার খোদ নাসিরউদ্দিন শাহ

বালিগঞ্জ উপনির্বাচনে বাম প্রার্থী সায়রা শাহ হালিমের কাকা নাসিরউদ্দিন শাহ 

বালিগঞ্জ উপনির্বাচনে বাম প্রার্থী সায়রা শাহ হালিমের কাকা নাসিরউদ্দিন শাহ।

বালিগঞ্জ বিধানসভা কেন্দ্রের উপনির্বাচনে বামেরা প্রার্থী করেছে সায়রা শাহ হালিমকে। সেই সায়রা নাকি ভারতীয় নন! বরং তিনি নাকি ব্রিটিশ নাগরিক। এমনই অভিযোগ করে ভুয়ো পোস্ট ছড়িয়ে দেওয়া হয়েছিল সোশ্যাল মিডিয়ায়। এবার এই ভুয়ো তথ্য উড়িয়ে ভাইঝি সাইরার হয়ে ময়দানে নামলেন খোদ নাসিরউদ্দিন শাহ।

বালিগঞ্জে ফুয়াদ হালিমের স্ত্রী সায়রার উপর এবার বাজি রেখেছে বামেরা। তবে সায়রার নাম ঘোষণা হতেই সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে ছড়িয়ে পড়ে বহু ভুয়ো তথ্য। সায়রা বাঙালি না হওয়ায় তাঁকে কটাক্ষও করা হয়। এরই মাঝে অনেকে বাম প্রার্থীকে গুলি ফেলেন ব্রিটি সাংবাদিক তথা ডকুমেন্টারি পরিচালকের সঙ্গে।

তবে এই সব অভিযোগ উড়িয়ে শনিবার ফেসবুকে এই নিয়ে মুখ খোলেন সায়রা নিজে। লেখেন, ‘অনেকে আমাকে ব্রিটিশ সাংবাদিক এবং ডকুমেন্টারি পরিচালক সায়রা শাহের সঙ্গে গুলিয়ে ফেলেছেন। বহু সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনেও এই ভুল তথ্য জরে পড়েছে আমার। আমি স্পষ্ট করে জানাতে চাই, আমি একজন ভারতীয় নাগরিক। আমার জন্ম কলকাতায়। একজন ভারতীয় সেনা জওয়ানের মেয়ে হওয়ায় অনেকগুলি রাজ্যে থেকেছি আমি। বেড়ে ওঠার সময় দেশের বিভিন্ন স্থানে থেকেছি।’ সেই পোস্টে কমেন্ট করেন খোদ অভিনেতা নাসিরউদ্দিন শাহ। নাসিরউদ্দিন লেখেন, ‘সায়রা শাহ হালিম ইদ্রিস শাহের মেয়ে।’ এর জবাবে বাম প্রার্থী অভিনেতার উদ্দেশে লেখেন, ‘জি চাচা।’ 

উল্লেখ্য, এবার তৃণমূলের তরফে এই কেন্দ্রের প্রার্থী করা হয়েছে বাবুল সুপ্রিয়কে। বিজেপি ছেড়ে তৃণমূলে যোগ দেওয়া বাবুলকে নিয়ে অবশ্য আপত্তি রয়েছে সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের একাংশেরই। রাজ্যের ইমাম সংগঠনের প্রধান নিজে বাবুলের বিরুদ্ধে সরব হয়েছেন। তিনি দাবি করেছিলেন, বাবুলকে প্রার্থী করা হলে তিনি নিজে নির্দল হয়ে দাঁড়াবেন। এদিকে বালিগঞ্জ কেন্দ্রে সিংহভাগ ভোটার আবার সংখ্যালঘু। এই আবহে শিক্ষিত মধ্যবিত্ত বাঙালি এবং সংখ্যালঘু, উভয়ের মন জয় করতেই বামেরা ফুয়াদ-পত্নীকে বেছে নিয়েছেন। তবে তাঁর বিরুদ্ধে সোশ্যাল মিডিয়ায় ভুয়ো তথ্য ছড়িয়ে দেওয়া হচ্ছে ইচ্ছাকৃত বা অনিচ্ছাকৃত ভাবে।

বন্ধ করুন