বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ > পুরভোটের লড়াই > বিজয় মিছিলে অশান্তি হলে কড়া ব্যবস্থা, সাফ জানিয়ে দিল রাজ্য নির্বাচন কমিশন
পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য নির্বাচন কমিশনের দফতর। 

বিজয় মিছিলে অশান্তি হলে কড়া ব্যবস্থা, সাফ জানিয়ে দিল রাজ্য নির্বাচন কমিশন

  • তাতে বিজয় মিছিল নিয়ে কড়া অবস্থান জানিয়ে দিল রাজ্য নির্বাচন কমিশন।

রাজ্যে ২০ জেলার ১০৮টি পুরসভার ফলাফল ঘোষণা হতে চলেছে। ৪টি পুরসভা অবশ্য ইতিমধ্যেই দখল করে ফেলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। সেগুলি হল— কোচবিহারের দিনহাটা (১৬টি ওয়ার্ডের ১৬টিতেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী তৃণমূল কংগ্রেস), দক্ষিণ ২৪ পরগনার বজবজ (২০টি ওয়ার্ডের ১৮টিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী), বীরভূমের সিউড়ি (২১টি ওয়ার্ডের ১৬টিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী) এবং সাঁইথিয়া (১৬টি ওয়ার্ডের ১৪টিতেই বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয়ী তৃণমূল কংগ্রেস)। তবে এবার বাকি পুরসভাগুলির ফল আর কিছুক্ষণের মধ্যেই প্রকাশ পাবে। তাতে বিজয় মিছিল নিয়ে কড়া অবস্থান জানিয়ে দিল রাজ্য নির্বাচন কমিশন।

ঠিক কী জানিয়েছে নির্বাচন কমিশন?‌ এই বিজয় মিছিল নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলিকে সতর্ক কড়া হয়েছে। পুরভোটের ফল ঘোষণা হওয়ার পর বিজয় মিছিল নিয়ে রাজনৈতিক দলগুলিকে সতর্ক করেছেন রাজ্য নির্বাচন কমিশনার সৌরভ দাস। তিনি স্পষ্টভাষায় জানিয়েছেন, বিজয় মিছিলে ছাড় থাকলেও, কোনওরকম অশান্তি দেখলেই কড়া ব্যবস্থা নেবে পুলিশ। সুতরাং বিজয় মিছিল যেন অশান্তির কারণ না হয় সেটা কার্যত বুঝিয়ে দেওয়া হয়েছে।

উল্লেখ্য, পুরসভার ভোটগ্রহণ হয়েছিল গত রবিবার। আজ, বুধবার তার ফলপ্রকাশ হচ্ছে। ১০৮টি পুরসভায় মোট ওয়ার্ডের সংখ্যা ২২৭৭। তিনটি ওয়ার্ডে ভোটগ্রহণ হয়নি। তিনটিই উত্তর ২৪ পরগনায়। আইনি জটিলতায় ভোট হয়নি ভাটপাড়ার ৩ নম্বর ওয়ার্ডে। প্রার্থীর মৃত্যুতে ভোট স্থগিত হয়ে যায় দমদমের ৪ নম্বর এবং দক্ষিণ দমদমের ২৯ নম্বর ওয়ার্ডে।

পুরসভা নির্বাচনে রাজ্যজুড়ে অশান্তি হয়েছিল বলে অভিযোগ বিরোধীদের। এমনকী এই অভিযোগে বিজেপি বাংলার বন্‌ধ পর্যন্ত ডেকেছিল। তাই জয়ের পর যাতে কোনও অশান্তি না হয় তা নিয়ে সতর্ক করল রাজ্য নির্বাচন কমিশন। এই নির্বাচন নিয়ে রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় তলব করেছিলেন রাজ্য নির্বাচন কমিশনারকে। তাই গণনা নিয়েও যাতে কোনও অশান্তি না হয়, তার জন্য সতর্ক রাজ্য নির্বাচন কমিশন। অশান্তি, অপ্রীতিকর পরিস্থিতি যাতে তৈরি না হয় তার জন্য প্রস্তুত রয়েছে রাজ্য পুলিশ।

বন্ধ করুন