বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ > ‘স্বাধীন খালিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চান কেজরিওয়াল’, বিস্ফোরক কুমার বিশ্বাস
‘স্বাধীন খালিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চান কেজরিওয়াল’, বিস্ফোরক কুমার বিশ্বাস (ছবি সৌজন্যে এএনআই)

‘স্বাধীন খালিস্তানের প্রধানমন্ত্রী হতে চান কেজরিওয়াল’, বিস্ফোরক কুমার বিশ্বাস

  •  কুমার বিশ্বাস দাবি করেন যে তাঁর প্রাক্তন সহকর্মী তথা দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী কেজরিওয়াল বিচ্ছিনতাবাদীদের সমর্থক। 

দেশের অন্যতম জনপ্রিয় কবি তথা আম আদমি পার্টির প্রাক্তন নেতা কুমার বিশ্বাস বুধবার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী এবং তাঁর প্রাক্তন সহকর্মী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের বিরুদ্ধে একটি বড় অভিযোগ করেন। তিনি বলেন যে অরবিন্দ কেজরিওয়াল পঞ্জাবের বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সমর্থক ছিলেন। কুমার বিশ্বাস বলেন যে কেজরিওয়াল একবার তাঁকে বলেছিলেন যে তিনি হয় পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী হবেন বা স্বাধীন খালিস্তানি দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী হবেন।

দেশের অন্যতম জনপ্রিয় কবি তথা আম আদমি পার্টির প্রাক্তন নেতা কুমার বিশ্বাস বুধবার দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী এবং তাঁর প্রাক্তন সহকর্মী অরবিন্দ কেজরিওয়ালের বিরুদ্ধে একটি বড় অভিযোগ করেন। তিনি বলেন যে অরবিন্দ কেজরিওয়াল পঞ্জাবের বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সমর্থক ছিলেন। কুমার বিশ্বাস বলেন যে কেজরিওয়াল একবার তাঁকে বলেছিলেন যে তিনি হয় পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী হবেন বা স্বাধীন খালিস্তানি দেশের প্রথম প্রধানমন্ত্রী হবেন।

|#+|

নির্বাচনে জিততে বিচ্ছিন্নতাবাদীদের সাহায্য নিতে কেজরিওয়ালের কোনও দ্বিধা নেই বলে দাবি করেছেন কুমার বিশ্বাস। তিনি দাবি করেন, পঞ্জাব একটি রাজ্য নয়। পঞ্জাব একটি অনুভূতি। পঞ্জাবিয়াত সারা বিশ্বে একটি অনুভূতি। বিশ্বাস বলেন, ‘আমি তাঁকে বলেছিলাম বিচ্ছিন্নতাবাদীদের পক্ষ না নিতে।’

কুমার বিশ্বাস দাবি করেন, কেজরিওয়াল নিজের মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার ফর্মুলাও বলেছিলেন তাঁকে। সেই সময় কেজরিওয়াল বলেছিলেন যে আমি ভগবন্ত মান এবং এইচএস ফুলকার মধ্যে লড়াই লাগিয়ে দেব এবং আমি সেখানে পৌঁছে যাব। আজও তিনি সেই পথেই আছেন। একদিন কেজরিওয়াল আমাকে বলেছিলেন, তুমি চিন্তা করো না, আমি একদিন স্বাধীন দেশের প্রধানমন্ত্রী হব। আমি বিচ্ছিন্নতাবাদের কথা বলি। আমি তাঁকে বলি যে আইএসআই, মার্কিন ভিত্তিক সংগঠন শিখস ফর জাস্টিস গণভোট করে পঞ্জাবকে বিচ্ছিন্ন করার চেষ্টা চালাচ্ছে। তাতে অবশ্য কেজরিওয়ালের কোনও সমস্যা ছিল না। বিশ্বাস জানান, ২০১৭ সালের নির্বাচনের সময় কেজরিওয়ালের সঙ্গে এসব আলোচনা হয়েছিল।

উল্লেখ্য, ২০১২ সালে মণীশ সিসোদিয়া, অরবিন্দ কেজরিওয়াল ও কুমার বিশ্বাসরা একজোট হয়ে আম আদমি পার্টি শুরু করেন। তবে পরবর্তীতে কেজরিওয়ালের বিরুদ্ধে বিদ্রোহ ঘোষণা করে দল ছাড়েন কুমার বিশ্বাস। দিল্লির মুখ্যনমন্ত্রীর সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি  ঘটে কবি কুমার বিশ্বাসের। বর্তমানে সক্রিয় রাজনীতিতে না থাকলেও অরবিন্দ কেজরিওয়ালকে নিয়ে এই বিস্ফোরক দাবি করে পঞ্জাবের রাজনৈতিক মহলে হইচই ফেলে দিয়েছেন বিশ্বাস।

বন্ধ করুন