বাংলা নিউজ > ভোটের লড়াই > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > সিবিআই ঢোকার আগে অভিষেকের বাড়িতে গিয়ে রুজিরাকে কী বলেছেন মমতা?‌ জানালেন শুভেন্দু
বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। ফাইল ছবি
বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী। ফাইল ছবি

সিবিআই ঢোকার আগে অভিষেকের বাড়িতে গিয়ে রুজিরাকে কী বলেছেন মমতা?‌ জানালেন শুভেন্দু

  • অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে শুভেন্দুর কটাক্ষ, ‘‌ভাইপো কুলতলির মাটিতে বড় বড় কথা বলে গিয়েছিলেন। সিবিআই, ইডি কাঁচকলা করবে!‌ এখন কী বলবেন বন্ধু?’‌

কয়লা কাণ্ডে তৃণমূল সাংসদ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের স্ত্রী রুজিরাদেবীকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে মঙ্গলবার তাঁদের বাড়িতে যান সিবিআই আধিকারিকরা। তাঁদের আসার কিছুক্ষণ আগেই কালীঘাটের ‘‌শান্তিনিকেতন’‌ (‌অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের বাসভবনের নাম)‌ থেকে বেরিয়ে যান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সিবিআই আসার আগেই এদিন সকালে অভিষেকের বাড়িতে গিয়েছিলেন সম্পর্কে তাঁর পিসি তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা। আর এই গোটা ঘটনার নাটকীয়তা নিয়ে এদিন চরম কটাক্ষ করলেন বিজেপি নেতা শুভেন্দু অধিকারী।

মঙ্গলবার দক্ষিণ ২৪ পরগনার কুলতলিতে বিজেপি–র ‘‌পরিবর্তন যাত্রা’‌র জনসভায় শুভেন্দু অধিকারী বলেন, ‘‌আজ আর দুয়ারে সরকার নয়, দুয়ারে সিবিআই। এর আগে মাননীয়া রাজীব কুমারকে বাঁচাতে ধর্না দিয়েছিলেন। আর আজ নিজের বউমাকে শেখাতে গিয়েছিলেন। বলতে গিয়েছিলেন, বৌমা, তুমি আমার কীর্তিমান ভাইপোর নামটা বলবে না।’‌

শুভেন্দুর দাবি, ১০০ কোটি টাকা দিয়ে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁর বাড়ি ‘‌শান্তিনিকেতন’‌ তৈরি করেছেন। বিজেপি নেতার কথায়, ‘২০১৪ সালের পর ১০০ কোটি টাকা দিয়ে প্রাসাদ বানিয়েছে। সিবিআইকে ধন্যবাদ। ওই বাড়িতে নোটিশ না দিতে গেলে আজ পশ্চিমবঙ্গের লোক ওই বাড়িটা দেখতে পেত না। এত বড় প্রাসাদ কেউ দেখতে পেত না।’‌

অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়কে শুভেন্দুর কটাক্ষ, ‘‌ভাইপো কুলতলির মাটিতে বড় বড় কথা বলে গিয়েছিলেন। সিবিআই, ইডি কাঁচকলা করবে!‌ এখন কী বলবেন বন্ধু?’‌ এদিন ফের শুভেন্দু হুঁশিয়ারি দেন, ‘‌আপনি অপেক্ষা করুন তোলাবাজ ভাইপো। আগে চেক দেখিয়েছিলাম। এবার লালার ডায়েরি দেখাব। ২০১৪ থেকে ২০২০ সাল পর্যন্ত কোথা থেকে কত টাকা তুলেছেন, সব আছে।’‌

ইতিমধ্যে কয়লা কাণ্ডে থাইল্যান্ডের দুটি ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টের লেনদেনের তথ্য জানতে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে শুরু করে দিয়েছে সিবিআই। আর এদিনই ফের শুভেন্দুর বক্তব্যে উঠে এল থাইল্যান্ডের কথা। তিনি বলেন, ‘বারুইপুরের সভায় ব্যাঙ্ককের রাজধানী থাইল্যান্ডের ব্যাঙ্কের চেক দেখিয়েছিলাম। লালার টাকা জমা হয়েছিল ম্যাডাম নারুলার অ্যাকাউন্টে। আমি কারও বোন বা বউ বলিনি। ঠাকুরঘরে কে, আমি কলা খাইনি। তার পরই ভাইপো এক সভায় বলল, আমার স্ত্রীকে টেনে আনছে।’‌ শুভেন্দু আরও বলেন, ‘‌বিদেশে টাকা পাচার করলে স্ত্রীর নাম উঠবে না? কানিমোঝিকেও জেল খাটতে হয়েছিল।’‌

বন্ধ করুন