বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ ২০২১ > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় মুড়ে গেল নন্দীগ্রাম, বন্ধ সীমান্তে জারি ১৪৪ ধারা
নন্দীগ্রামে কেন্দ্রীয় বাহিনীর টহল। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
নন্দীগ্রামে কেন্দ্রীয় বাহিনীর টহল। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তায় মুড়ে গেল নন্দীগ্রাম, বন্ধ সীমান্তে জারি ১৪৪ ধারা

  • কেন্দ্রীয় বাহিনী এবং রাজ্য পুলিশ দিয়ে নিশ্চিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা করল নির্বাচন কমিশন।

কোনও ঝুঁকি নিতে চায়নি নির্বাচন কমিশন। তাই ১৪৪ ধারা জারি করল তারা। আজ বুধবার ও বৃহস্পতিবার এই ধারা বলবৎ থাকবে। শুধু নন্দীগ্রামই নয়, পূর্ব মেদিনীপুরের মোট ৯টি কেন্দ্রেই এই ১৪৪ ধারা জারি রাখা হয়েছে। একইসঙ্গে সিল করে দেওয়া হয়েছে নন্দীগ্রামের সীমান্তও। কেন্দ্রীয় বাহিনী এবং রাজ্য পুলিশ দিয়ে নিশ্চিদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা করল নির্বাচন কমিশন। দ্বিতীয় দফার নির্বাচনের আগে নন্দীগ্রাম এলাকায় বহিরাগত প্রবেশের অভিযোগ তুলেছে তৃণমূল কংগ্রেস। বুধবার সন্ধ্যায় কার্যত সেই অভিযোগকে কার্যত মান্যতা দিয়েই বাড়তি নজরদারির ব্যবস্থা করা হল। শুধু ৩০ জন মহিলা আধাসেনাই নন, শুভেন্দু অধিকারীর নিরাপত্তার দায়িত্বে থাকছে দুই সেকশন কেন্দ্রীয় বাহিনী। নিরাপত্তা বাড়ল সংযুক্ত মোর্চা সমর্থিত সিপিআইএম প্রার্থী মীনাক্ষী মুখোপাধ্যায়েরও। তাঁর জন্য চারজন সশস্ত্র নিরাপত্তাকর্মী মোতায়েন করা হয়েছে।

রাত পোহালেই দ্বিতীয় দফায় ভোটগ্রহণ রাজ্যের ৩০ কেন্দ্রে। ভোটগ্রহণ কেন্দ্রের ২০০ মিটার এবং ইভিএমগুলি যেখানে মজুত রাখা হয়েছে, সেই জায়গাগুলি বাদ দিয়ে নন্দীগ্রামের সর্বত্রই ১৪৪ ধারা জারি করেছে কমিশন। নেমেছে ২২ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী। নন্দীগ্রামের মোট ভোটার সংখ্যা ২ লক্ষ ৫৭ হাজার ৯৯৯। পূর্ব মেদিনীপুরের নিরাপত্তা নিশ্ছিদ্র করতে হলদিয়ায় পাঠানো হয়েছে আইপিএস অফিসার প্রবীণ ত্রিপাঠীকে। নন্দীগ্রামে থাকবেন খগেন্দ্রনাথ ত্রিপাঠী। সুন্দরবন অঞ্চলে ড্রোনের মাধ্যমে নজরদারি চালানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ওয়েব কাস্টিংয়ের ব্যবস্থা থাকছে এলাকার ৭৫ শতাংশ বুথে, নজরদারি চলবে আকাশপথেও। দিনভর নাকাচেকিং, প্রতিটি গাড়ির জিপিএস সিস্টেম আপগ্রেড করা হবে। এমনকী, আপদকালীন পরিস্থিতির জন্য প্রস্তুত রাখা হচ্ছে ২টি এয়ার অ্যাম্বুল্যান্সও।

দ্বিতীয় দফার নির্বাচনে ৩ হাজার ৪৯টি বুথে থাকছে সিসিটিভি ক্যামেরা রাখা হচ্ছে। মাইক্রো অবজার্ভার থাকবে ১ হাজার ৯১৫টি বুথে। ২৮৬টি বুথে ভিডিও ক্যামেরায় নজরবন্দি করা হবে ভোটগ্রহণ প্রক্রিয়া। ইতিমধ্যেই ৬৩২ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী থাকছে ৩০ কেন্দ্রে। রাজ্যে এই মুহূর্তে ৮০০ কোম্পানি কেন্দ্রীয় বাহিনী রয়েছে। আরও ২০০ কোম্পানি আসছে ৮ মার্চের মধ্যে। দ্বিতীয় দফায় মোট প্রার্থী ১৭১ জন। দক্ষিণ ২৪ পরগনায় প্রার্থীর সংখ্যা ১৯ জন। পূর্ব মেদিনীপুরে সবচেয়ে বেশি জন প্রার্থী রয়েছেন, ৫৮ জন। পশ্চিম মেদিনীপুরে ৪১ জন প্রার্থী রয়েছেন। বাঁকুড়ায় ৫৩ জন প্রার্থী।

জায়গায় জায়গায় রুটমার্চ করছে আধাসেনা। যাদের নামে পুলিশে অভিযোগ রয়েছে তাদের বা়ড়িতে গিয়ে সতর্কও করে দেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি বিশেষ নজর রাখা হচ্ছে জলপথে। এখনও পর্যন্ত মোট অভিযোগ জমা পড়েছে ১৩ হাজার ২০৭টি। তার মধ্যে ১১ হাজার ৯টি অভিযোগেই সত্যতা রয়েছে বলে জানিয়েছে কমিশন। সমস্ত অভিযোগ খতিয়ে দেখা হচ্ছে।

বন্ধ করুন