বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ ২০২১ > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > তৃণমূলের অভিযোগে করোনা টিকার সার্টিফিকেট থেকে মোদীর ছবি সরানোর নির্দেশ কমিশনের
নরেন্দ্র মোদী। (ফাইল ছবি, সৌজন্য রয়টার্স)
নরেন্দ্র মোদী। (ফাইল ছবি, সৌজন্য রয়টার্স)

তৃণমূলের অভিযোগে করোনা টিকার সার্টিফিকেট থেকে মোদীর ছবি সরানোর নির্দেশ কমিশনের

কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছিল তৃণমূল।

করোনা ভ্যাকসিনের ডিজিটাল শংসাপত্রে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর ছবি ইস্যুতে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের জবাব তলব করেছিল নির্বাচন কমিশন। পশ্চিমবঙ্গ-সহ ভোটমুখী চার রাজ্য এবং কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলের শংসাপত্র থেকে সেই ছবি এবার সরানোর নির্দেশ দিল কমিশন। এমনটাই জানিয়েছেন বিষয়টির সঙ্গে অবহিত আধিকারিকরা।

নির্বাচনী নির্ঘণ্ট প্রকাশের পরেও করোনা টিকার এই শংসাপত্রে কেন প্রধানমন্ত্রীর ছবি দেওয়া থাকছে, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছিলেন বিরোধীরা।‌ বৃহস্পতিবার এই অভিযোগে কমিশনের দ্বারস্থ হয়েছিল তৃণমূলও। তারপরই এই নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রকের কী অবস্থান, তা জানতে চেয়েছিল কমিশন। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কমিশনের আধিকারিক সংবাদমাধ্যমে বলেছিলেন, ‘‌প্রথমে সত্যিটা কী, তা জেনে নেওয়া প্রয়োজন। স্বাস্থ্য মন্ত্রকের নির্দেশে প্রধানমন্ত্রীর ছবি শংসাপত্রে দেওয়া হয়েছিল কিনা, সেটা প্রথমে জানতে হবে। সেক্ষেত্রে সব পক্ষের মতামত জানাটা অত্যান্ত প্রয়োজন।’

যেহেতু করোনা টিকার শংসাপত্রে মোদীর ছবি নিয়ে পশ্চিমবঙ্গ থেকে অভিযোগ জমা পড়েছিল, সেজন্য রাজ্যের মুখ্য নির্বাচনী আধিকারিক আরিজ আফতাবের কাছ থেকেও এ নিয়ে সবিস্তার রিপোর্ট চেয়ে পাঠিয়েছিল কমিশন।

চলতি মাসের ২৭ তারিখ থেকে এরাজ্যে বিধানসভা নির্বাচনের ভোটগ্রহণ পর্ব শুরু হচ্ছে।বিগত ২৬ ফেব্রুয়ারি তার নির্ঘণ্ট ঘোষণা করে কমিশন। ভোট ঘোষণার দিন থেকেই নির্বাচনী আচরণবিধি চালু হয়ে হয়ে গিয়েছিল। তারপরও মোদীর ছবি-সহ করোনার শংসাপত্র বিলি নিয়ে আপত্তি জানায় তৃণমূল।

এই অভিযোগ নিয়ে সোমবার টুইটারে প্রথম সরব হয়েছিলেন তৃণমূলের রাজ্যসভার সাংসদ ডেরেক ও’ব্রায়েন। সোশ্যাল মিডিয়ায় তিনি লেখেন, ‘ভোটের দিন ঘোষণা হয়ে গিয়েছে। তার সত্ত্বেও প্রধানমন্ত্রীর ছবি করোনা টিকার নথিতে নির্লজ্জের মতো প্রকাশ করা হচ্ছে।' এই নিয়ে নির্বাচন কমিশনের কাছে অভিযোগ জানানোর হুঁশিয়ারি দিয়েছিলেন ডেরেক। এরপরেই বৃহস্পতিবার ফিরহাদ হাকিমের নেতৃত্বে তৃণমূলের একটি প্রতিনিধিদল কলকাতার নির্বাচন কমিশনের দফতরে গিয়ে এ বিষয় অভিযোগ জানিয়েছিলেন। শুধু করোনা টিকার শংসাপত্রেই নয়, পেট্রোল পাম্প ও সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত সরকারি বিজ্ঞাপনগুলোতে মোদীর ছবি নিয়েও আপত্তি তুলেছিল তৃণমূল নেতৃত্ব। অভিযোগ জমা দেওয়ার পরেই বিষয়টি খতিয়ে দেখতে উদ্যোগী হয়েছে কমিশন। যদিও বুধবারই নির্বাচনমুখী সমস্ত রাজ্যের পেট্রোল পাম্প থেকে মোদীর ছবি সরিয়ে নেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে কমিশন।

বন্ধ করুন