বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ ২০২১ > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > প্রতি দফার ৭২ ঘণ্টা আগে প্রচার বন্ধের নির্দেশ, দৈনিক প্রচারের সময়েও কাটছাঁট ইসির
ফাইল ছবি
ফাইল ছবি

প্রতি দফার ৭২ ঘণ্টা আগে প্রচার বন্ধের নির্দেশ, দৈনিক প্রচারের সময়েও কাটছাঁট ইসির

  • নির্বাচন কমিশনের তরফে এদিন জানানো হয়, সন্ধ্যা ৭টা থেকে পরের দিন সকাল ১০টা পর্যন্ত কোনও রাজনৈতিক প্রচার করা যাবে না। তাছাড়া নির্বাচনের আগে সাইলেন্স পিরিয়ড ৪৮ ঘণ্টা থেকে বাড়িয়ে ৭২ ঘণ্টা করা হয়েছে।

করোনা আবহে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হচ্ছে পশ্চিমবঙ্গে। এই পরিস্থিতিতে এদিন রাজনৈতিক দলগুলির সঙ্গে বৈঠকে বসে নির্বাচন কমিশন। সেই বৈঠকে বাম-বিজেপি দাবি তোলে, বাকি তিন দফার নির্বাচন পূর্বনির্ধারিত সূচি অনুযায়ী অনুষ্ঠিত হোক। যদিও তৃণমূল কংগ্রেস দাবি তোলে যে তিন দফার নির্বাচন এক দফাতেই অনুষ্ঠিত হোক। এসবের মাঝেই সব রাজনৈতিক দলই কমিশনকে জানিয়েছিল, বিধি মেনেই প্রচার চালানো হবে। আর এরপরই এবার করোনা আবহে প্রচারের নয়া বিধি ঘোষণা করল নির্বাচন কমিশন।

দলগুলিকে করোনাবিধি মেনে প্রচার করার নির্দেশ দিল কমিশন। নির্বাচন কমিশনের তরফে এদিন জানানো হয়, সন্ধ্যা ৭টা থেকে পরের দিন সকাল ১০টা পর্যন্ত কোনও রাজনৈতিক প্রচার করা যাবে না। তাছাড়া নির্বাচনের আগে সাইলেন্স পিরিয়ড ৪৮ ঘণ্টা থেকে বাড়িয়ে ৭২ ঘণ্টা করা হয়েছে।

আগামীকাল রাজ্যে অনুষ্ঠিত হতে চলেছে পঞ্চম দফার নির্বাচন। এরপর বাকি রয়েছে আরও চার দফার ভোট। এই পরিস্থিতিতে আজ সর্বদল বৈঠক ডেকেছিল নির্বাচন কমিশন। সেই বৈঠকেই প্রোটোকল মেনে নির্বাচনী প্রচার এবং জনসভা চালিয়ে যাওয়ার পক্ষে আলোচনা হয়। তবে তিন দফাকে মিলিয়ে এক দফায় ভোটগ্রহণ নিয়ে এখনও পর্যন্ত কোনও সিদ্ধান্ত জানায়নি নির্বাচন কমিশন।

আজ সকাল থেকেই একটি জল্পনা উঠেছিল, করোনার কথা মাথায় রেখে দ্রুত নির্বাচন শেষ করতে চাইছে নির্বাচন কমিশন। তাই শেষ তিন দফার নির্বাচন (ষষ্ঠ দফা, সপ্তম দফা ও অষ্টম দফা) এক দিনে করাতে পারে কমিশন। এই আবহে বৈঠক নির্বাচন কমিশনের ডাকে বৈঠকে যোগ দেয় রাজনৈতিক দলগুলি। সেই বৈঠকে শেষ তিন দফার ভোট একদিনে করার জন্য কমিশনের কাছে আবেদন জানিয়েছিল তৃণমূল। অন্যদিকে বিজেপির তরফে তিন দফাতেই ভোট করানোর জন্য আবেদন করা হয়েছিল। অবশ্য কমিশনে সর্বদল বৈঠক শেষে ভোটের দফা কমানোর কোনও সম্ভাবনা নেই বলেই মনে করা হচ্ছে।

 

বন্ধ করুন