বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ ২০২১ > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > মেদিনীপুরে কমিশনের ২ পর্যবেক্ষক, যাবেন নন্দীগ্রামে মমতার ‘হামলাস্থলে’
চোট পাওয়ার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
চোট পাওয়ার পর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

মেদিনীপুরে কমিশনের ২ পর্যবেক্ষক, যাবেন নন্দীগ্রামে মমতার ‘হামলাস্থলে’

  • মমতার চোটের ঘটনায় ষড়যন্ত্রের অভিযোগ জানাতে শুক্রবার মুখ্য নির্বাচন কমিশনারের দফতরে যাচ্ছে তৃণমূলের একটি প্রতিনিধি দল।

আজ (শুক্রবার) পশ্চিম মেদিনীপুরে এলেন রাজ্যের বিশেষ পর্যবেক্ষক অজয় নায়েক এবং পুলিশ পর্যবেক্ষক বিবেক দুবে। দুই মেদিনীপুর ও ঝাড়গ্রামের সঙ্গে আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠক করবেন। পাশাপাশি নন্দীগ্রামের বিরুলিয়া বাজারেও যাবেন তাঁরা। যেখানে গত বুধবার চোট পান মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

শুক্রবার সকালে হেলিকপ্টারে করে পশ্চিম মেদিনীপুরে আসেন নায়েক এবং দুবে। সেখানকার জেলাশাসকের দফতরে প্রথম দফায় পূর্ব মেদিনীপুর, পশ্চিম মেদিনীপুর এবং ঝাড়গ্রামের রাজনৈতিক দলের প্রতিনিধি দলগুলির সঙ্গে বৈঠক করবেন। দ্বিতীয় দফায় বৈঠক করবেন তিন জেলার পুলিশ সুপার এবং জেলাশাসকদের সঙ্গে। যে তিন জেলায় প্রথম দু'দফায় (আগামী ২৭ মার্চ এবং ১ এপ্রিল) ভোটগ্রহণ হবে। সূত্রের খবর, ভোটের আগে তিন জেলার সার্বিক পরিস্থিতি নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। আইন-শৃ্ঙ্খলা পরিস্থিতির উপর বাড়তি গুরুত্ব দেওয়া হবে। বিশেষত সদ্যই মমতা নন্দীগ্রামে আহত হওয়ার পর মুখ্যমন্ত্রীর নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে বড়সড় গলদ ধরা পড়েছে। সেই বিষয়টিও আলোচনায় উঠে আসতে পারে বলে মত সংশ্লিষ্ট মহলের।

জেলা প্রশাসনের কর্তাদের সঙ্গে বৈঠকের পাশাপাশি বিরুলিয়া বাজারেও যাবেন রাজ্যের বিশেষ পর্যবেক্ষক এবং পুলিশ পর্যবেক্ষক। তৃণমূল কংগ্রেসের অভিযোগ, ‘ষড়যন্ত্র’ করে সেখানেই মমতার উপর ‘হামলা’ চালানো হয়েছিল। সূত্রের খবর, গত বুধবার সন্ধ্যায় ঠিক কী হয়েছিল, তা খতিয়ে দেখবেন দুই দায়িত্বপ্রাপ্ত আধিকারিক। তা নিয়ে সন্ধ্যার মধ্যেই একটি রিপোর্টও পাঠানো হতে পারে বলে সূত্রের খবর।

একইসঙ্গে মমতার চোটের ঘটনায় ষড়যন্ত্রের অভিযোগ জানাতে শুক্রবার মুখ্য নির্বাচন কমিশনারের দফতরে যাচ্ছে তৃণমূলের একটি প্রতিনিধি দল। দলে থাকবেন সাংসদ কাকলি ঘোষ দস্তিদার, শান্তনু সেন, শতাব্দী রায়, সৌগত রায়-সহ ছ'জন। রাজ্যের প্রশাসনের দায়িত্ব নির্বাচন কমিশনের যাওয়ার পরেই যেভাবে মমতা উপর ‘হামলা’ হয়েছে, সেই বিষয়টিও তুলে ধরা হবে। সূত্রের খবর, ‘হামলা’-র প্রমাণ হিসেবে নরেন্দ্র মোদী, রাজ্য বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ-সহ আরও কয়েকজন বক্তৃতার অংশ।

বন্ধ করুন