বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ ২০২১ > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > গাইঘাটার তৃণমূল প্রার্থী সোনা পাচারকারী, দাবি মমতাবালা ঠাকুরের
রবিবার সাংবাদিক বৈঠকে মমতাবালা ঠাকুর। 
রবিবার সাংবাদিক বৈঠকে মমতাবালা ঠাকুর। 

গাইঘাটার তৃণমূল প্রার্থী সোনা পাচারকারী, দাবি মমতাবালা ঠাকুরের

  • তিনি বলেন, ‘ঠাকুরবাড়ির প্রতিপক্ষকে টিকিট দেওয়া দলের উচিত হয়নি। ধ্যানেশদা প্রার্থী সম্পর্কে যা বলেছেন তা সত্য। কাগজই কথা বলছে। এর থেকে বেশি কিছু বলবো না।’

তৃণমূলের প্রার্থীতালিকা নিয়ে দিকে দিকে বিক্ষোভের মধ্যে যুক্ত হল গাইঘাটার নামও। যে কেন্দ্রের মধ্যে পড়ে মতুয়াদের ঠাকুরনগর ঠাকুরবাড়ি। রবিবার সাংবাদিক সম্মেলন করে দল ছাড়লেন দলের আহ্বায়ক ধ্যানেশ গুহ। অভিযোগ করলেন, ওই কেন্দ্রের তৃণমূল প্রার্থী নরোত্তম বিশ্বাস সোনাপাচারে যুক্ত। ধ্যানেশবাবুর অভিযোগকে প্রকাশ্যে সমর্থন করেছেন মতুয়া ঠাকুরবাড়ির সদস্য তথা প্রাক্তন তৃণমূল সাংসদ মমতাবালা ঠাকুর। 

রবিবার সকালে সাংবাদিক বৈঠক করে দলত্যাগের ঘোষণা করেন গাইঘাটা পঞ্চায়েত সমিতির কর্মাধ্যক্ষ ধ্যানেশবাবু। তবে তার আগে হয় জমজমাটি নাটক। ধ্যানেশবাবুর আশীর্বাদ নিতে তাঁর বাড়িতে হাজির হন গাইঘাটার তৃণমূল প্রার্থী নরোত্তম বিশ্বাস। কিন্তু ধ্যানেশবাবু তাঁকে বাড়িতেই ঢুকতে দেননি। এর পর সাংবাদিক সম্মলেন করে তিনি দাবি করেন, ‘মুম্বই থেকে সোনা নিয়ে পালিয়ে এসেছেন তিনি। আর মুম্বই যাননি’। এমনকী কার কাছ থেকে তিনি কত সোনা নিয়েছেন তার বিস্তারিত তথ্য সাংবাদিকদের সামনে তুলে ধরেন তিনি। 

এর পর সাংবাদিক বৈঠকে বসেন মমতাবালা ঠাকুর। তিনি বলেন, ‘ঠাকুরবাড়ির প্রতিপক্ষকে টিকিট দেওয়া দলের উচিত হয়নি। ধ্যানেশদা প্রার্থী সম্পর্কে যা বলেছেন তা সত্য। কাগজই কথা বলছে। এর থেকে বেশি কিছু বলবো না।’

মমতাবালা বলেন, ‘আমি দলকে বলেছিলাম আমি স্বরূপনগর থেকে লড়তে চাই। কিন্তু পরে দেখি দল কোনও মতুয়াকেই টিকিট দেয়নি। তাই নিজেও ভোটে না লড়ার সিদ্ধান্ত নিই।’ এদিন ইঙ্গিতপূর্ণভাবে মমতাবালা বলেন, ‘মতুয়া বাড়িতে যে ভাগাভাগি হয়েছে তা যদি কেউ মিলিয়ে দিতে পারে তাহলে তো ভাল।’ 

এই নিয়ে নরোত্তম বিশ্বাস বলেন, ‘আমি সব কথা জেলা সভাপতি জ্যোতিপ্রিয় মল্লিককে জানিয়েছি। মানুষ বিচার করবে যে আমি পাচারকারী বা দুষ্কৃতী কি না।’

 

বন্ধ করুন