বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ ২০২১ > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > বিধানচন্দ্র রায়ের পরিবর্তে শ্যামাপ্রসাদের নামে হাসপাতাল - মোদীর উদ্বোধনের পর বিক্ষোভ খড়গপুরে
বিধানচন্দ্র রায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য টুইটার)
বিধানচন্দ্র রায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য টুইটার)

বিধানচন্দ্র রায়ের পরিবর্তে শ্যামাপ্রসাদের নামে হাসপাতাল - মোদীর উদ্বোধনের পর বিক্ষোভ খড়গপুরে

  • ফের নাম বদলের রাজনীতি বাংলায়।

ফের নাম বদলের রাজনীতি বাংলায়। আর এই নিয়ে তোলপাড় হয়ে গেল খড়গপুর আইআইটি চত্ত্বর। কারণ সেখানে ৬৬তম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে ভার্চুয়ালি যোগ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী আত্মনির্ভরতার বার্তা দিয়েছিলেন। আর ছাত্রছাত্রীদের দিয়েছিলেন তিন মন্ত্র। তারইমধ্যে হাসপাতালের নাম বদলে গেরুয়া তকমা লাগিয়ে দেওয়ার প্রতিবাদে বিক্ষোভ দেখাল ডিএসও, তৃণমূল কংগ্রেস এবং একটি বামপন্থী সংগঠন। যা নিয়ে পালটা তোপ দেগেছে গেরুয়া শিবিরও।

বিধানসভা নির্বাচনের সূতিকালগ্নে বাংলায় মঙ্গলবার ভার্চুয়ালি উপস্থিত ছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। আর সেখানেই উদ্বোধন করলেন হাসপাতালের। আর নামকরণ হয়ে গেল শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় মেডিক্যাল সায়েন্স অ্যান্ড রিসার্চ। আর তা নিয়েই বিক্ষোভ শুরু হয় আইআইটি ক্যাম্পাসের বাইরে। আইআইটির তৈরি ৭৫০ শয্যার হাসপাতালটির প্রথমে নাম হওয়ার কথা ছিল বিধানচন্দ্র রায়ের নামে - বিসি রায় ইনস্টিটিউট অফ মেডিক্যাল সায়েন্স অ্যান্ড রিসার্চ হাসপাতাল। সেখানে এই নামকরণ হওয়ায় গেরুয়া রাজনীতি স্পষ্ট রয়েছে বলে মনে করেন ছাত্র সংগঠনের সদস্যরা।

জানা গিয়েছে, উদ্বোধনের কয়েকদিন আগে হঠাৎ নাম বদলে করা হয় শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় মেডিক্যাল সায়েন্স অ্যান্ড রিসার্চ! বিধানচন্দ্র রায়ের মতো কিংবদন্তি চিকিৎসকের নাম বদলে হঠাৎ‍ জনসঙ্ঘের প্রতিষ্ঠাতা শ্যামাপ্রসাদ মুখার্জির নামে কেন হাসপাতালের নামকরণ করা হল? এই প্রশ্ন তুলে বিক্ষোভ দেখায় এসইউসির ছাত্র সংগঠন ডিএসও। বিক্ষোভ দেখাতে গিয়ে পুলিশের সঙ্গে ধস্তাধস্তিতে জড়িয়ে পড়েন তাঁরা। এমনকী হুঁশিয়ারি দেওয়া হয় বৃহত্তর আন্দোলনের।

এরপরই বলরামপুরে আইআইটির নতুন হাসপাতালের সামনে বিক্ষোভ দেখায় তৃণমূল কংগ্রেসের ছাত্র সংগঠনও। তাদের দাবি, নাম বদল করা যাবে না। এটা গেরুয়াকরণ হচ্ছে৷ আইআইটির মেন গেটের সামনে বিক্ষোভ দেখায় ‘আমরা বামপন্থী’ নামে একটি সংগঠন। তবে বিধানসভা নির্বাচনের আগে এই নাম বদলের রাজনীতি ভোটবাক্সে প্রভাব ফেলবে বলে মনে করছেন রাজনৈতিক কুশীলবরা। যদিও আইআইটি কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তাঁদের বোর্ডের বৈঠকেই নামবদলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

বন্ধ করুন