বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ ২০২১ > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > কোচবিহার বিমানবন্দর আমি করে দিয়েছি, মমতার দাবিকে কটাক্ষ বিজেপির
কোচবিহার বিমানবন্দর। 
কোচবিহার বিমানবন্দর। 

কোচবিহার বিমানবন্দর আমি করে দিয়েছি, মমতার দাবিকে কটাক্ষ বিজেপির

  • পালটা এদিন জয়প্রকাশবাবু বলেন, ‘কোচবিহার বিমানবন্দর তৈরি করেছিলেন ওখানকার রাজারা। প্রায় ১০০ বছরের পুরনো ওই বিমানবন্দরের কথা রাজকুমারী গায়ত্রী দেবীর একাধিক লেখায় তার উল্লেখ রয়েছে।

কোচবিহার বিমানবন্দর আমি করে দিয়েছি। ফালাকাটায় ভোটপ্রচারে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই বক্তব্যের বিরোধিতা করল বিজেপি। শুক্রবার এক সাংবাদিক বৈঠকে বিজেপি নেতা জয়প্রকাশ মজুমদার বলেন, কোচবিহার এয়ারপোর্ট তৈরি করেছিলেন ওখানকার রাজারা। মুখ্যমন্ত্রী ঝুড়ি ঝুড়ি মিথ্যে কথা বলছেন, এটা বলতে আমাদের ভাল লাগে না। 

শুক্রবার ভোটপ্রচারে ফালাকাটায় মমতা ডুয়ার্স ও কোচবিহারের জন্য তাঁর সরকারের অবদান স্মরণ করাচ্ছিলেন। তখনই তিনি বলেন, ‘কোচবিহার বিমানবন্দর আমি করে দিয়েছি। বালুরঘাট বিমানবন্দর করে দিয়েছি’। মমতার এই মন্তব্যকে অসত্য বলে দাবি করেছে বিজেপি।

পালটা এদিন জয়প্রকাশবাবু বলেন, ‘কোচবিহার বিমানবন্দর তৈরি করেছিলেন ওখানকার রাজারা। প্রায় ১০০ বছরের পুরনো ওই বিমানবন্দরের কথা রাজকুমারী গায়ত্রী দেবীর একাধিক লেখায় তার উল্লেখ রয়েছে। ওই বিমানবন্দরটিকে কেন্দ্রীয় সরকার তার উড়ান প্রকল্পের আওতায় এনে বিমান পরিষেবা শুরু করতে চেয়েছিল। কিন্তু মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সরকার বিমানবন্দরের নিরাপত্তা সুনিশ্চিত করতে না পারায় তা সম্ভব হয়নি।’

সঙ্গে জয়প্রকাশবাবু বলেন, ‘ক্ষমতায় আসার ৬ মাসের মধ্যে দমদমের নাগেরবাজার উড়ালপুলের উদ্বোধন করে মমতা বলেছিলেন, আমি করে দিলাম। ওদিকে স্থানীয় লোক বলছে ১০ বছর ধরে সেখানে কাজ চলছিল। মুখ্যমন্ত্রী মিথ্যে কথা বলছেন এটা বলতে আমাদের ভাল লাগে না’।

গত কয়েক দশকে একাধিকবার ভর্তুকি দিয়ে কোচবিহার বিমানবন্দর থেকে বিমান চালানোর চেষ্টা করেছে রাজ্য ও কেন্দ্রীয় সরকার। কিন্তু যাত্রী না থাকায় সেই উদ্যোগ কোনও বারেই সফল হয়নি। 

 

বন্ধ করুন