বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ ২০২১ > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > ‘বড় বড় কথা ! গোখরো সাপ, পারলে খেয়ে যেও রেশন মোটা ভাত’, মিঠুনকে নিশানা মমতার
মিঠুন চক্রবর্তী এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)
মিঠুন চক্রবর্তী এবং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ছবি সৌজন্য পিটিআই)

‘বড় বড় কথা ! গোখরো সাপ, পারলে খেয়ে যেও রেশন মোটা ভাত’, মিঠুনকে নিশানা মমতার

  • এবারের ভোট প্রচারে তৃণমূলের বড় চমক দুয়ারে রেশন কর্মসূচি। ইদানিং ভোট প্রচারে বেরিয়ে সেই কর্মসুচিকেই বার বার কটাক্ষ করেছেন তৃণমূল ছেড়ে বিজেপিতে আসা অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী।

দুয়ারে রেশন কর্মসূচির ঘোষণাতে ভর করে এবারের ভোটে বাসিন্দাদের মন জয়ে নানা উদ্যোগ নিয়েছে তৃণমূল। আর তৃণমূলের এই কর্মসূচিকেই বার বার সমালোচনায় বিদ্ধ করেছেন সদ্য বিজেপিতে আসা অভিনেতা মিঠুন চক্রবর্তী। এই কর্মসূচিকে 'তৃণমূলের ললিপপ' বলেও কটাক্ষ করেছেন মিঠুন চক্রবর্তী।

দুয়ারে রেশন কর্মসূচি থেকে তৃণমূল নেতারা ব্যবসা করবেন বলেও বিজেপির নির্বাচনী সভা থেকে তোপ দেগেছেন মিঠুন চক্রবর্তী। এসব তো আছেই। এর সঙ্গেই বিজেপিতে যোগ দিয়েই ফিল্মের ডায়ালগ আউড়ে তিনি জানিয়ে দিয়েছিলেন জাত গোখরোর কথা। গত কয়েকদিন ধরেই ক্রমাগত চলছিল এই আক্রমণ। তবে এবার আর থেমে থাকলেন না তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। দমদমের সভা থেকে নাম না করে মমতার নিশানায় মিঠুন। মমতা বলেন, 'ওদের বড় বড় নেতা হয়েছে। তাঁরা নাকি গোখরো সাপ, কেউটে সাপ। তোমাকে একদিন এমপি করেছিল তৃণমূল। অত বড় বড় কথা বলো না। পারলে খেয়ে যেও রেশনের মোটা চালের ভাত'।

তবে রাজনৈতিক পর্যবেক্ষকদের মতে, একটা সময় মমতার গুডবুকে ছিলেন মিঠুন চক্রবর্তী। তাঁকে রাজ্যসভার সাংসদও করেছিল তৃণমূল। কিন্ত পরবর্তী সময় চিটফাণ্ড সংক্রান্ত বিষয়ে তৃণমূলের সঙ্গে দূরত্ব তৈরি হয়েছিল মিঠুনের। পরবর্তী সময়ে রাজ্যসভার সাংসদ পদ থেকেও ইস্তফা দেন তিনি। এরপর ভোটের ঠিক মুখে বিজেপির হাত ধরেন মিঠুন চক্রবর্তী। পুরোদস্তুর বাঙালী পোশাকে সজ্জিত হয়ে মিঠুন সেদিনই জানিয়ে দিয়েছিলেন তিনি জাত গোখরো। এরপরই বাংলার মাটি থেকে তৃণমূলকে উৎখাতের ডাক দিয়ে প্রাক্তন দলের বিরুদ্ধে সুর চড়ানোর শুরু করেছেন মিঠুন। এরপরই কার্যত এই প্রথমবার মিঠুনের নাম না করে দমদমের সভা থেকে তাঁর বিরুদ্ধে মুখ খুললেন খোদ তৃণমূল নেত্রী। 

বন্ধ করুন