বাংলা নিউজ > ভোটের লড়াই > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > এক বিজেপি নেতা নয়, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে কৃষি আইন বাতিল করুন: মোদীকে আবেদন মমতার
ভিক্টোরিয়া মোমোরিয়ালে নেতাজি জন্মজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ছবি সৌজন্য : পিটিআই (PTI)
ভিক্টোরিয়া মোমোরিয়ালে নেতাজি জন্মজয়ন্তীর অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ছবি সৌজন্য : পিটিআই (PTI)

এক বিজেপি নেতা নয়, প্রধানমন্ত্রী হিসেবে কৃষি আইন বাতিল করুন: মোদীকে আবেদন মমতার

  • গতকাল, প্রজাতন্ত্র দিবসের দিন কৃষকদের ট্রাক্টর র‌্যালির জেরে দিল্লিতে যে অশান্ত পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছিল তার জন্য এদিনও কেন্দ্রকে দায়ী করেন মমতা।

এক সর্বভারতীয় সংবাদ চ্যানেলের সাক্ষাৎকারে সরাসরি প্রধানমন্ত্রীর কাছে ‘‌বিতর্কিত’‌ কৃষি আইন প্রত্যাহারের দাবি জানালেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। নরেন্দ্র মোদীর কাছে এদিন মমতার আবেদন, ‘আপনি এই দেশের প্রধানমন্ত্রী। এটা ভুলে যান যে আপনি বিজেপি–র একজন নেতা। আমার মনে হয় আপনার সমস্ত রাজনৈতিক দলের সঙ্গে বৈঠক করে কৃষি আইন প্রত্যাহার করা উচিত।’‌ তিনি আরও বলেন, ‘‌এর জন্য সংসদ অধিবেশনেরও প্রয়োজন নেই। ভার্চুয়াল বৈঠক করেই এই সিদ্ধান্ত নেওয়া যেতে পারে।’‌

একেবারে নরম সুরে এভাবেই বুধবার ‘‌ইন্ডিয়া টুডে’‌–র মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রীর কাছে নিজের এবং ‘‌কৃষি আইন’‌–এর অসংখ্য বিরোধীদের দাবি জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা। গতকাল, প্রজাতন্ত্র দিবসের দিন কৃষকদের ট্রাক্টর র‌্যালির জেরে দিল্লিতে যে অশান্ত পরিবেশের সৃষ্টি হয়েছিল তার জন্য এদিনও কেন্দ্রকে দায়ী করেন মম। তাঁর কথায়, ‘‌কৃষক আন্দোলন বরাবরই খুব শক্তিশালী হয়। তৃণমূল স্তর থেকেই উঠে আসে এই আন্দোলন। র‌্যালি করার অনুমতি কৃষকদের ছিল। সরকারও সে ব্যাপারে ভাল করেই জানত। তা সত্ত্বেও এটা রুখতে না পারা সম্পূর্ণ কেন্দ্রের ব্যর্থতা।’‌

তবে গতকাল যে হিংসা, সঙ্ঘর্ষের ঘটনা দেশের রাজধানীতে ঘটেছে তাকে বিন্দুমাত্র সমর্থন করেননি মুখ্যমন্ত্রী। এদিন সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘‌আমি হিংসার পক্ষে নই। আমি দিল্লির হিংসাত্মক ঘটনাকে সমর্থন করি না। আমি শান্তিপূর্ণ আন্দোলনে বিশ্বাসী।’‌ সিঙুর আন্দলনের সময় টানা ২৬ দিন অনশনের কথাও এদিন জানান মমতা। ‌কৃষি আইনের বিরুদ্ধে কেন্দ্রের বিপক্ষে ইতমধ্যে সুর চড়িয়েছে দেশের প্রায় সমস্ত বিরোধী দল। সে প্রসঙ্গে মমতা বলেন, ‘‌কেন এই আইন প্রত্যাহার করে নিচ্ছে না কেন্দ্র?‌ কৃষি আইনের বিরুদ্ধে এবং কৃষক আন্দোলনের পক্ষে উদ্ধব ঠাকরে, অরবিন্দ কেজরিওয়াল এবং আমি— আমরা সকলে মিলে একসঙ্গে রয়েছি।’‌

উল্লেখ্য, নতুন কৃষি আইন, যা নিয়ে এত বিতর্ক, তা কিন্তু রাজ্যসভা ও লোকসভার সদস্যদের সংখ্যাগরিষ্ঠ ভোটাভুটিতে সংসদে পাস হয়েছে। তবে মমতার মতে, ‘‌সংখ্যাগরিষ্ঠতা মানেই তা কাউকে মেরে ফেলার অধিকার দেয় না। সংখ্যাগরিষ্ঠতা মানেই কারও মৌলিক অধিকার ছিনিয়ে নেওয়ার অধিকার দেয় না।’ তিনি কৃষকদের আন্দোলনের পাশে দাঁড়িয়ে এদিন আরও বলেন, ‘‌কৃষকরা সঙ্ঘবদ্ধ হয়ে নিজেদের লড়াই নিজেরাই লড়ছে। সে অর্থে তাঁদের কোনও নেতা নেই। আমরা তো দূর থেকে সমর্থন করছি।’‌ একইসঙ্গে মমতা এদিন অভিযোগ করে বলেন, ‘‌খাদ্যের ওপর ভর্তুকি পাঠানো বন্ধ করে দিয়েছে কেন্দ্র।’‌

বন্ধ করুন