বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ ২০২১ > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > বিজেপি ক্ষমতায় এলে বকেয়া সমেত PM কিসান প্রকল্পের টাকা মিটিয়ে দেবে সরকার: মোদী
রবিবার হলদিয়ায় দলীয় সভায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। 
রবিবার হলদিয়ায় দলীয় সভায় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। 

বিজেপি ক্ষমতায় এলে বকেয়া সমেত PM কিসান প্রকল্পের টাকা মিটিয়ে দেবে সরকার: মোদী

  • এখানকার সরকারের কৃষকদের সঙ্গে কী শত্রুতা রয়েছে। তার থেকে মাত্র ৬,০০০ কৃষকের নাম বেছে দিল্লিতে পাঠিয়েছে রাজ্য সরকার। আপনারা শুনলে আশ্চর্য হবেন, সেই ৬,০০০ কৃষকেরও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নম্বর কেন্দ্রকে দেয়নি রাজ্য সরকার।

বিজেপি ক্ষমতায় এলে পশ্চিমবঙ্গের কৃষকদের বকেয়া সমেত পিএম কিসান প্রকল্পের সুবিধা দেবে সরকার। রবিবার হলদিয়ায় এমনটাই ঘোষণা করলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এদিন তিনি বলেন, ‘ভারতীয় জনতা পার্টি ক্ষমতায় এলে মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠকে কৃষকদের জন্য দ্রুত সিদ্ধান্ত কার্যকরের ব্যবস্থা হবে।’

এদিন প্রত্যাশিতভাবেই পশ্চিমবঙ্গ সরকার ও মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে আক্রমণের নিশানা করেন নরেন্দ্র মোদী। দুর্নীতি থেকে আইন শৃঙ্খলা সমস্ত বিষয়ে রাজ্য সরকারকে বেঁধেন তিনি। তবে এদিন মোদীর সব থেকে বড় ঘোষণা ছিল পিএম কিসান নিয়ে। প্রধানমন্ত্রী জানান, বিজেপি রাজ্যে ক্ষমতায় এলে বকেয়া সমেত পিএম কিসানের টাকা কৃষকদের মিটিয়ে দেবে। বলে রাখি, রাজ্যের কৃষকরা ওই প্রকল্পের ১৪,০০০ টাকা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন বলে দাবি বিজেপির। 

এদিন প্রধানমন্ত্রী বলেন, ‘করোনার কঠিন সময়ে পশ্চিমবঙ্গের লক্ষ – কোটি কৃষক কোটি কোটি টাকা থেকে বঞ্চিত হয়েছেন। পিএম কিসান প্রকল্পের অধীনে এখনো পর্যন্ত দেশের ১০ কোটি কৃষকের অ্যাকাউন্টে ১.১৫ লক্ষ কোটি টাকা দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। দুঃখের সঙ্গে বলছি, এই তালিকায় পশ্চিমবঙ্গেরও লক্ষ লক্ষ কৃষকের নাম থাকতে পারতো। কিন্তু এখানকার একজন কৃষকও এই লাভ পাননি। কারণ এখানকার সরকার এই প্রকল্পে অংশগ্রহণ করেনি’।

মোদীর অভিযোগ, ‘এখন যখন পশ্চিমবঙ্গের কৃষকরা মমতাদিদিকে উচিত শিক্ষা দেবেন বলে সিদ্ধান্ত নিয়ে ফেলেছেন তখন শুধুমাত্র লোক দেখানোর জন্য দিন কয়েক আগে রাজ্য সরকার এই প্রকল্পে অংশগ্রহণ করতে চেয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে চিঠি পাঠিয়েছে। কৃষকদের অ্যাকাউন্টে টাকা গেলে মমতাদিদির কী সমস্যা জানি না। বাংলার ২৫ লক্ষ কৃষক পিএম কিসানের সুবিধা পেতে তৃণমূল সরকারের কাছে আবেদন জানিয়েছেন। জানি না এখানকার সরকারের কৃষকদের সঙ্গে কী শত্রুতা রয়েছে। তার থেকে মাত্র ৬,০০০ কৃষকের নাম বেছে দিল্লিতে পাঠিয়েছে রাজ্য সরকার। আপনারা শুনলে আশ্চর্য হবেন, সেই ৬,০০০ কৃষকেরও ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট নম্বর কেন্দ্রকে দেয়নি রাজ্য সরকার। তাই ওই ৬,০০০ কৃষককেও টাকা পাঠাতে পারছে না কেন্দ্র। ওদিকে একটা করে দিন পেরিয়ে যাচ্ছে’। 

এবিষয়ে তৃণমূলকেও বেঁধেন মোদী। বলেন, ‘মা-মাটি-মানুষের স্লোগান যারা দেয় তাদের অসংবেদশীলতা মানুষ দেখতে পাচ্ছে, বুঝতে পারছে। কৃষকদের দুর্দশা দূর করতে কারা কাজ করছে আর কারা তাদের সমস্যা নিয়ে রাজনীতি করছে তা গত ৬ বছর ধরে দেশবাসী দেখছেন’।

এর পরই কৃষকদের জন্য বড় ঘোষণা করেন মোদী। বলেন, ‘আমি মা গঙ্গার পাড়ে দাঁড়িয়ে বাংলার কৃষকদের এই প্রত্যয় দিতে চাই যে এই নির্বাচনের পরে ভারতীয় জনতা পার্টির সরকার আপনারা গড়বেনই। আর ভারতীয় জনতা পার্টির সরকার গঠনের পর মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠকে ভারত সরকারের কৃষকদের জন্য যে প্রকল্প রয়েছে তা দ্রুত কার্যকরী করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করা হবে। শুধু তাই নয়, আমি বাংলার কৃষকদের কথা দিচ্ছি দেশের অন্যান্য কৃষকরা যে সুবিধা পেয়েছেন, যার থেকে আপনারা এতদিন বঞ্চিত রয়েছেন সেই বকেয়া টাকাও ভারত সরকার বাংলার কৃষকদের দিয়ে দেবে’। 

এর আগে রাজ্য সফরে এসে রাজ্যে আয়ুষ্মান ভারত প্রকল্প চালুর আশ্বাস দিয়েছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি জেপি নডডা। জানিয়েছিলেন, বিজেপি ক্ষমতায় এলে মন্ত্রিসভার প্রথম বৈঠকেই গৃহীত হবে সিদ্ধান্ত।

 

বন্ধ করুন