বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ ২০২১ > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > 'টাকা খাওয়ার জন্য ইঞ্জিনিয়ারিং দফতর চেয়েছিলেন রাজীব', অভিযোগ মমতার
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)
মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। (ফাইল ছবি, সৌজন্য পিটিআই)

'টাকা খাওয়ার জন্য ইঞ্জিনিয়ারিং দফতর চেয়েছিলেন রাজীব', অভিযোগ মমতার

রাজীবকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘‌ এখন মানু্ষের কাছে হাঁটু মুড়ে বসে ক্ষমা চা।'

ডোমজুড়ের সভা থেকে বিজেপি প্রার্থী রাজীব বন্দোপাধ্যায়কে তুলোধনা করলেন মমতা বন্দোপাধ্যায়। নাম না করেই রাজীবের বিরুদ্ধে টাকা নেওয়ার অভিযোগ তুললেন তিনি। বৃহস্পতিবার মমতা বলেন, ‘‌ মা—বোনেরা আমায় ক্ষমা করবেন, আমি গদ্দার-মীরজাফরকে এই কেন্দ্র থেকে মনোনয়ন দিয়েছিলাম। ওঁকে সেচমন্ত্রী করা হয়েছিল। তারপরই আমি বেশ কিছু অভিযোগ পেয়ে ওই দফতর থেকে সরিযে দিই। তারপর তাকে বন দফতরে পাঠিয়েছিলাম। আমায় ও কী বলেছিল জানেন? ‌তাকে ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের দায়িত্ব দিতে। যাতে সেখান থেকে টাকা খেতে পারে। আগে জানলে, দাঁড়াতেই দিতাম না।’‌ রাজীবকে উদ্দেশ করে তিনি বলেন, ‘‌ এখন মানু্ষের কাছে হাঁটু মুড়ে বসে ক্ষমা চা।’

‌নির্বাচন কমিশনে বিজেপির তাঁর বিরুদ্ধে নালিশ করার বিষয়ে মমতা বলেন, ‘‌ ১ লাখ নেতা গুণ্ডা নিয়ে তারা বাংলায় পড়ে আছে। গোটা দেশকে বেচে দিয়েছে। আমার বিরুদ্ধে নালিশ করে কোনও লাভ নেই। কত অভিযোগ দায়ের করেছে! নন্দীগ্রামের মানুষকে মুসলিম পাকিস্তানি বলছে ওরা! লজ্জা করে না। আমি হিন্দু, মুসলিম, শিখ, খ্রিষ্টান, আদিবাসী সবার সঙ্গেই রয়েছি। নরেন্দ্র মোদীও তো সভায় দাঁড়িয়ে ধর্ম নিয়ে কথা বলেছে, তাঁর বিরুদ্ধে তো কোনও অভিযোগ দায়ের হয়নি।‌ উত্তরপ্রদেশে যখন দাঙ্গা লেগেছিল, তখন তো সেখানে যাওনি। দাঙ্গা করে মানু্ষ খুন করেছে। ছদ্মবেশী শয়তান, বজ্জাত সরকার। মা—বোনেদের উপর অত্যাচার করে। আগে দিল্লি গিয়ে সামলাক। ভোট চাইতে আসলে, বলবেন আগে অ্যাকাউন্টে ১৫ লাখ টাকা দিন, তারপর ভোট দেব।’

‌বৃহস্পতিবার উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকেও কটাক্ষ করতে ছাড়েননি মমতা। তিনি বলেন, ‘‌মাথায় টিকা লাগিয়ে গেরুয়া বসন পরে নিলেই কেউ সাধু—সন্ন্যাসী হয়ে যায় না। বিজেপি ছলনা, রক্তবীজের দল। এদের মতো শয়তানের দল আর একটাও নেই।’

‌কেন্দ্রীয় বাহিনী প্রসঙ্গে এরপর মমতা বলেন, ‘‌ আমি কেন্দ্রীয় বাহিনীকে সম্মান করি। কিন্তু এমন কমান্ডারদের সম্মান করি না—যারা, বিজেপির কথা মতো ভোটারদের ভয় দেখাচ্ছেন। গ্রামে গিয়ে সেখানকার মানু্ষদের ভয় দেখাবেন না। অমিত শাহ বা আমারও কথা শুনবেন না। আপনারা আপনাদের কাজ করুন।’

‌তিনি জানান, ক্ষমতায় এলে বেকারদের ১০ লাখ টাকার ক্রেডিট কার্ড করে দেব। কোনও গ্যারেন্টার লাগবে না। সরকারই গ্যারেন্টার হবে। ১৮ বছরের উপরে যে মহিলারা বিধবা হবেন, তাঁরা মাসে ১,০০০ টাকা করে পাবেন। শিক্ষাক্ষেত্রে সমস্ত সুবিধাগুওলো একই থাকবে। এমনকী, পড়ুয়াদের ১০,০০০ টাকার স্মার্ট ফোন পাবে।’‌

বন্ধ করুন