বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ ২০২১ > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > রানাঘাট উত্তর-পূর্ব বিধানসভা কেন্দ্র ২০২১ : ভোটের প্রার্থী, অতীতের ফলাফল - একনজরে সব তথ্য
১৭ এপ্রিল রানাঘাট উত্তর-পূর্বে ভোটগ্রহণ। (ছবি সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)
১৭ এপ্রিল রানাঘাট উত্তর-পূর্বে ভোটগ্রহণ। (ছবি সৌজন্য হিন্দুস্তান টাইমস)

রানাঘাট উত্তর-পূর্ব বিধানসভা কেন্দ্র ২০২১ : ভোটের প্রার্থী, অতীতের ফলাফল - একনজরে সব তথ্য

  • ১৭ এপ্রিল রানাঘাট উত্তর-পূর্বে ভোটগ্রহণ।

এই তফসিলি জাতি কেন্দ্রে এবারের তৃণমূলের প্রার্থী হলেন সমীরকুমার পোদ্দার। এই আসনে বিজেপির তরফে দাঁড়াচ্ছেন অসীম বিশ্বাস। অন্যদিকে, বাম-কংগ্রেস-ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টের (আইএসএফ) তরফে এই কেন্দ্রে দাঁড়াচ্ছেন আইএসএফের দীনেশচন্দ্র বিশ্বাস।

রানাঘাট চুর্ণী নদীর তীরে অবস্থিত একটি প্রাচীন জনপদ। রানাঘাটের রেল জংশনটি দেশভাগের আগে অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ ছিল। নদিয়া জেলার একটি মহকুমা শহর ও পৌরসভা এলাকা হল রানাঘাট। এটি শিয়ালদহ-লালগোলা শাখার একটি গুরুত্বপূর্ণ রেলওয়ে জংশন স্টেশন। এই শহরে পৌরসভা তৈরি হয় ১৮৬৪ সালে। মহকুমা শাসক ছিলেন বিখ্যাত কবি নবীনচন্দ্র সেন। শহরের প্রথিতযশা মানুষদের মধ্যে রয়েছেন রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের জীবনীকার প্রভাতকুমার মুখোপাধ্যায়, বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ কালীময় ঘটক, নদিয়া কাহিনীর রচয়িতা কুমুদনাথ মল্লিক, কলকাতার প্রাক্তন মেয়র সন্তোষকুমার বসু, অলিম্পিয়ান ফুটবলার নিখিল নন্দী, অনিল নন্দী, অজিত নন্দী-সহ প্রমুখ। শিল্প-সংস্কৃতির চর্চায় রাণাঘাটের জমিদার পালচৌধুরীদের বড় অবদান আছে। খেলাধুলো, নাটক, সাহিত্য পত্রিকা, বিজ্ঞান আন্দোলন এবং সংগীত জগতের নিজস্ব ঘরানাতে রানাঘাটের মানুষ বাংলার সংস্কৃতি জগতে অবদান রেখেছেন।

ভারতের সীমানা পুনর্নির্ধারণ কমিশনের নির্দেশিকা অনুসারে, ৮৯ নম্বর রানাঘাট উত্তর পূর্ব (তফসিলি জাতি) বিধানসভা কেন্দ্রটি আড়ংঘাটা, বাহিরগাছি, দত্তফুলিয়া, যুগলকিশোর, কমলপুর ও রঘুনাথপুর হিজুলি-২ গ্রাম পঞ্চায়েতগুলি রানাঘাট-২ সমষ্টি উন্নয়ন ব্লকের অন্তর্গত। তাছাড়া বাগুলা-১, বাগুলা-২, মামজোয়ান, রামনগর বড়চুপড়িয়া-১ ও রামনগর বড়চুপড়িয়া-২ গ্রাম পঞ্চায়েতগুলি হাঁসখালি সমষ্টি উন্নয়ন ব্লকের অন্তর্গত। রানাঘাট উত্তর-পূর্ব বিধানসভা কেন্দ্রটি ১৩ নম্বর রানাঘাট লোকসভা কেন্দ্রের (তফসিলি জাতি) অন্তর্গত। রানাঘাট পূর্ব ও পশ্চিম কেন্দ্রটি আগে নবদ্বীপ লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত ছিল।

২০১১ সালের নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের সমীর পোদ্দার তাঁর নিকটবর্তী প্রতিদ্বন্দ্বী সিপিআইএমের অর্চনা বিশ্বাসকে পরাজিত করেছিলেন। ২০১১ সালের নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের পার্থসারথি চট্টোপাধ্যায় তাঁর নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সিপিআইএমের মীনা ভট্টাচার্যকে পরাজিত করেছিলেন। ২০০৬ সাল পর্যন্ত রানাঘাট পূর্ব এবং রানাঘাট পশ্চিম দু’‌টি বিধানসভা কেন্দ্র ছিল। ২০০৬ সালের বিধানসভা নির্বাচনে সিপিআইএমের অলোককুমার দাস রানাঘাট পশ্চিম বিধানসভা কেন্দ্র থেকে জয়ী হয়েছিলেন। তাঁর নিকটবর্তী প্রতিদ্বন্দ্বী কংগ্রেসের শংকর সিংহকে পরাজিত করেন। ২০০১ সালে কংগ্রেসের শংকর সিং, সিপিআইএমের জ্যোতির্ময়ী শিকদার ও ১৯৯৬ সালে সিপিআইএমের সৌরেন্দ্রনাথ নাগকে পরাজিত করেছিলেন। ১৯৯১ সালে সিপিআইএমের সুভাষ বসু কংগ্রেসের নরেশচন্দ্র চাকীকে পরাজিত করেছিলেন। ১৯৮৭ সালে সিপিআইএমের গৌড়চন্দ্র কুণ্ডু কংগ্রেসের শরদিন্দু বিশ্বাস, ১৯৮২ সালে কংগ্রেসের বিনয় চট্টোপাধ্যায় ও ১৯৭৭ সালে কংগ্রেসের নরেশচন্দ্র চাকীকে পরাজিত করেছিলেন।

বন্ধ করুন