বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ ২০২১ > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > তৃণমূল সুপ্রিমোর হয়ে প্রচারে শরদ–তেজস্বী, চিঠি লিখে আপত্তি জানাল কংগ্রেস
তেজস্বী যাদব : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই)
তেজস্বী যাদব : মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই)

তৃণমূল সুপ্রিমোর হয়ে প্রচারে শরদ–তেজস্বী, চিঠি লিখে আপত্তি জানাল কংগ্রেস

  • তবে এটা চান না প্রদেশ কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্ব। তাই আপত্তির কথা জানিয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে শরদ পাওয়ার ও তেজস্বী যাদবকে।

এবার সশরীরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের পাশে দাঁড়াতে প্রচারে নামতে চান এনসিপি প্রধান শরদ পাওয়ার। এমনকী আরজেডি প্রধান তেজস্বী যাদবও তৃণমূল সুপ্রিমোকে সরাসরি সমর্থন করতে প্রচারে নামতে চান। এতদূর পর্যন্ত সব ঠিকই ছিল। তবে এটা চান না প্রদেশ কংগ্রেসের শীর্ষ নেতৃত্ব। তাই আপত্তির কথা জানিয়ে চিঠি দেওয়া হয়েছে শরদ পাওয়ার ও তেজস্বী যাদবকে। এই গোটা বিষয়টি মঙ্গলবার সাংবাদিক বৈঠক করে জানিয়েছেন রাজ্যের কংগ্রেস নেতা প্রদীপ ভট্টাচার্য। যে প্রদীপ ভট্টাচার্যের সঙ্গে ভাল সম্পর্ক মমতা বন্দ্যোপাধায়ের। সেখানে তিনি এই সমর্থনে বাধা হয়ে দাঁড়াচ্ছেন। বিধানসভা নির্বাচন শুরু হতে আর ১১ দিন বাকি। তার আগে এই ঘটনা শোরগোল ফেলে দিয়েছে বাংলায়।

কয়েকদিন আগেই কলকাতায় এসে নবান্নে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সঙ্গে বৈঠক করে গিয়েছিলেন আরজেডি প্রধান। এমনকী বাংলায় তৃণমূল কংগ্রেসের সঙ্গে জোট করবেন বলেও শোনা গিয়েছিল। কলকাতায় যত বিহারের বাসিন্দা রয়েছেন তাঁদেরও তিনি তৃণমূল কংগ্রেসকেই ভোট দেওয়ার জন্য আবেদন করেছিলেন। তাঁর দল আরজেডি পূর্ণ সমর্থন করবে বলে জানিয়েছিলেন তেজস্বী। সুতরাং একের পর এক সমর্য়ন পেয়ে তৃমমূল কংগ্রেসের বৃত্ত সম্পূর্ণ হতে চলেছিল। যেখানে ছেদ ফেলতে উদ্যোগ নিয়েছে কংগ্রেস।

এনসিপি প্রধান তথা প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী শরদ পাওয়ারও বাংলা নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসকে সমর্থনের কথা আগেই বলে রেখেছিলেন। এমনকী দীনেশ ত্রিবেদীর বিজেপির দিকে ঝোঁকার খবর তিনিই তৃণমূল কংগ্রেসকে দিয়েছিলেন। ঠিক হয়েছিল, দেশের এই দুই চর্চিত রাজনীতিবিদ তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে বিধানসভা ভোটে প্রচারে নামবেন। কিন্তু চাইছে না প্রদেশ কংগ্রেস নেতৃত্ব। প্রদীপ ভট্টাচার্যের পাশাপাশি অধীররঞ্জন চৌধুরীও এই বিষয়ে আপত্তি তুলেছেন বলে খবর।

এখন প্রশ্ন উঠছে, এনসিপি বা আরজেডি যদি মমতাকে সমর্থন করে, সেখানে কংগ্রেসের আপত্তি কোথায়? বিষয়টি হল—বিহারে প্রধান বিরোধী দল আরজেডি’‌র সঙ্গে জোটে রয়েছে বাম–কংগ্রেস। আবার মহারাষ্ট্রে এনসিপি, কংগ্রেস ও শিবসেনা জোট বেঁধে সরকার চালাচ্ছে। একুশের বিধানসভা নির্বাচনে বাম–কংগ্রেস জোট এই রাজ্যে বিজেপির এবং তৃণমূল কংগ্রেসের বিরুদ্ধে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। এই পরিস্থিতিতে শাসকদল তৃণমূল কংগ্রেসের হয়ে এনসিপি ও আরজেডি প্রধানরা প্রচার চালালে সমস্যা হতে পারে। তাই তাঁদের প্রচার করা নিয়ে আপত্তি তোলা হয়েছে প্রদেশ কংগ্রেসের পক্ষ থেকে। উল্লেখ্য, বাংলায় ও বিহারে কংগ্রেসের সঙ্গে বামেদের জোট থাকলেও কেরলে হতে চলা বিধানসভা নির্বাচনে একে অপরের বিরুদ্ধে লড়ছে বামফ্রন্ট–কংগ্রেস।

বন্ধ করুন