বাংলা নিউজ > ভোটের লড়াই > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > বাংলা 'বিবেকানন্দ ঠাকুর'-এর ভূমি, নবদ্বীপে নড্ডার মন্তব্য নিয়ে আক্রমণ তৃণমূলের
নবদ্বীপে বিজেপির সর্বভারতী সভাপতি জে পি নড্ডা। (ছবি সৌজন্য, টুইটার @JPNadda)
নবদ্বীপে বিজেপির সর্বভারতী সভাপতি জে পি নড্ডা। (ছবি সৌজন্য, টুইটার @JPNadda)

বাংলা 'বিবেকানন্দ ঠাকুর'-এর ভূমি, নবদ্বীপে নড্ডার মন্তব্য নিয়ে আক্রমণ তৃণমূলের

  • নবদ্বীপ থেকে বাঙালির ভাবাবেগ উস্কে দেওয়ার চেষ্টা করেছিলেন নড্ডা।

কে বাংলার সংস্কৃতির 'অপমান' করছে? তা নিয়ে দীর্ঘদিন ধরেই তৃণমূল কংগ্রেস এবং বিজেপির মধ্যে দড়ি টানাটানি শুরু হয়েছে। তারই রেশ ধরে শনিবার নবদ্বীপে দাঁড়িয়ে বাংলার সংস্কৃতি রক্ষার ইস্যুতে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে বিঁধেছিলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জে পি নড্ডা। তার পালটা দিল তৃণমূলও।

শনিবার চৈতন্যদেবের ভাবাবেগ উস্কে দিতে নবদ্বীপ থেকে বিজেপির ‘পরিবর্তন রথযাত্রা’-র সূচনা করেন নড্ডা। তার আগে নবদ্বীপ চটির মাঠে জনসভা করেন। সেখানে একাধিক ইস্যুতে মমতার সরকারকে তীব্র আক্রমণ শানান। বিজেপি বাংলার সংস্কৃতির অপমান করছে বলে তৃণমূল যে অভিযোগ তোলে, তারও উত্তর দেন নড্ডা। জানান, তাঁকে ‘বহিরাগত’ তকমা দিয়ে মমতা আদতে নিজের সংস্কৃতির পরিচয় দিয়েছেন নড্ডা। সেই রেশ ধরেই বাংলাকে স্বামী বিবেকানন্দ, রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর, অরবিন্দ, বঙ্কিমচন্দ্র ঠাকুরদের ‘ভূমি’ হিসেবে উল্লেখ করেন নড্ডা।

সেই বক্তব্যের একটি অংশ নিয়েই বিজেপির বিরুদ্ধে সরব হয়েছে তৃণমূল। শনিবার রাতের দিকে তৃণমূলের অফিসিয়াল টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে ২৫ সেকেন্ডের একটি ভিডিয়ো প্রকাশ করা হয়। তাতে নড্ডাকে বলতে শোনা যায়, ‘আর আপনারা জানেন, মমতাদি এখানকার সংস্কৃতি রক্ষার কথা বলেন। এটা পরিবর্তনের বিষয়। এটা অরবিন্দের ভূমি, এটা বিবেকানন্দ ঠাকুরের ভূমি।’ ভিডিয়োয় ফুটে ওঠে, 'বাংলার সংস্কৃতি ও মনীষীদের সম্মান জানাতে কবে শিখবে বিজেপি?' সঙ্গে টুইটারে লেখা হয়, 'কখনও তারা দেশের জাতীয় সংগীত ভুল গেয়ে বসেন আবার কখনও স্বামীজিকে 'বিবেকানন্দ ঠাকুর' বলেন। পশ্চিমবঙ্গে এসে এভাবে স্বামীজিকে নাইবা অপমান করতে পারতেন বিজেপির শ্রী জে পি নড্ডা। বাংলার মানুষ বুঝিয়ে দেবে বাংলার সংস্কৃতির আসল রক্ষাকারী কে!'

যদিও নড্ডার টুইটারে ভাষণের যে লাইভ লিঙ্ক পোস্ট করা হয়েছিল, তাতে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতিকে বলতে শোনা যায়, ‘আর আপনারা জানেন, মমতাদি এখানকার সংস্কৃতি রক্ষার কথা বলেন। এটা পরিবর্তনের বিষয়। এটা অরবিন্দের ভূমি, এটা বিবেকানন্দ ঠাকুরের ভূমি।’ তারপর কিছুটা থতমত খেয়ে নড্ডা বলেন, ‘এটা বিবেকানন্দজির ভূমি, এটা রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ভূমি, এটা বঙ্কিমচন্দ্র চট্টোপাধ্যায়ের ভূমি। এটা পূজনীয় মানুষদের ভূমি। এটা চৈতন্য মহাপ্রভুর ভূমি। এখানকার সংস্কৃতি আপনি সামলাতে পারবেন না মমতাদিদি। এখানকার সংস্কৃতির রক্ষা যদি কেউ করতে পারেন, সেটা করবেন বিজেপির লোকেরা। আপনি তো যেভাবে আমার নামের আগে বিশেষণ জুড়ে দেন, সেটা থেকেই বোঝা যায় আপনার সংস্কৃতি কী।'

বন্ধ করুন