বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ ২০২১ > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > ভোট মিটতেই ফের উত্তপ্ত দত্তাবাদ, পরস্পরের বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ তৃণমূল - BJPর
দত্তাবাদে রাজনৈতিক সংঘর্ষের পর পুলিশের সামনে ক্ষোভ উগরে দেন স্থানীয়রা। 
দত্তাবাদে রাজনৈতিক সংঘর্ষের পর পুলিশের সামনে ক্ষোভ উগরে দেন স্থানীয়রা। 

ভোট মিটতেই ফের উত্তপ্ত দত্তাবাদ, পরস্পরের বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগ তৃণমূল - BJPর

  • পাল্টা তৃণমূলের দাবি, তৃণমূল নেতা নির্মল দত্তকে  খুন করতে এসেছিল বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। তৃণমূল কর্মীদের বাড়ি ভাঙচুর করেছে তারা। ঘটনাস্থলে বিধাননগর দক্ষিণ থানার পুলিশ থাকলেও কোনও পদক্ষেপ করেনি।

ভোটগ্রহণ মিটলেও হিংসার অন্ত নেই বিধাননগরে। শনিবার ভোটগ্রহণের পরদিনও তৃণমূল – বিজেপি সংঘর্ষে উত্তপ্ত হয়ে উঠল বিধাননগরের দত্তাবাদ। একদিকে যেমন দলীয় কর্মীদের মারধরের অভিযোগ তুলেছে বিজেপি। তেমনই দলের নেতাকে খুনের চেষ্টার অভিযোগে সরব হয়েছে তৃণমূল। 

বিজেপির দাবি, দত্তাবাদের ডিয়ার ক্লাবের কাছে বিজেপি এজেন্টসহ ৫ জন দলীয় কর্মীকে মারধর করে তৃণমূলি গুন্ডারা। মারধরে নেতৃত্ব দেন তৃণমূল নেতা তথা বিধাননগরের পুর প্রশাসকমণ্ডলীর সদস্য নির্মল দত্ত। ঘটনার সময় পুলিশ সামনে থাকলেও কোনও ব্যবস্থা নেয়নি বলে দাবি বিজেপির। 

স্থানীয় বিজেপি নেতৃত্বের কথায়, হার নিশ্চিত জেনে মারধর শুরু করেছে তৃণমূল। আর হামলায় নিশানা হয়েছেন বিজেপির বুথ এজেন্টরা। 

পাল্টা তৃণমূলের দাবি, তৃণমূল নেতা নির্মল দত্তকে  খুন করতে এসেছিল বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতীরা। তৃণমূল কর্মীদের বাড়ি ভাঙচুর করেছে তারা। ঘটনাস্থলে বিধাননগর দক্ষিণ থানার পুলিশ থাকলেও কোনও পদক্ষেপ করেনি। 

নির্মলবাবু বলেন, ‘আমি ভারতীয় বিদ্যাভবনের কাছে একটি দোকানে গল্পগুজব করছিলাম। তার মধ্যে একটি ছেলে আমাকে এসে গালিগালাজ করতে থাকে। আমি বারণ করতে কিছু ছেলেকে ডেকে নিয়ে এসে আগ্নেয়াস্ত্র বের করে। আমাকে লক্ষ্য করে গুলি চালানোর আগেই অন্যরা তাকে ধরে ফেলে। থানায় খবর দিলে পুলিশ এলেও অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কোনও ব্যবস্থা নেয়নি। এরা প্রত্যেকে বিজেপি আশ্রিত দুষ্কৃতী’।

ঘটনার পর এলাকায় উত্তেজনা ছড়িয়েছে। মোতায়েন হয়েছে বিশাল পুলিশবাহিনী।

 

বন্ধ করুন