বাংলা নিউজ > ভোটযুদ্ধ ২০২১ > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > একশো পার করতে পারল না বিজেপি, সব কথা মিলিয়ে দিলেন প্রশান্ত কিশোর
প্রশান্ত কিশোর। ফাইল ছবি
প্রশান্ত কিশোর। ফাইল ছবি

একশো পার করতে পারল না বিজেপি, সব কথা মিলিয়ে দিলেন প্রশান্ত কিশোর

  • ২০১৯ সালে বিজেপি যেখানে ১৮টি আসন পেয়েছিল লোকসভা নির্বাচনে সেখানে বিধানসভা নির্বাচনে এমন ধরাশায়ী ফল হল কেন?‌ উত্তরে উঠে এসেছে, নেপথ্য নায়ক প্রশান্ত কিশোর।

একক সংখ্যাগরিষ্ঠ সরকার গড়ার পথে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এবং তাঁর তৈরি দল তৃণমূল কংগ্রেস। যা ট্রেন্ড দেখা যাচ্ছে তাতে বড় ব্যবধানে তাঁরাই জিততে চলেছে। যদিও এখনও সমস্ত ফলাফল আসেনি। কিন্তু এখন রাজ্য–রাজনীতিতে প্রশ্ন উঠতে শুরু করেছে, এই সাফল্য এলো কী করে?‌ ২০১৯ সালে বিজেপি যেখানে ১৮টি আসন পেয়েছিল লোকসভা নির্বাচনে সেখানে বিধানসভা নির্বাচনে এমন ধরাশায়ী ফল হল কেন?‌ উত্তরে উঠে এসেছে, নেপথ্য নায়ক প্রশান্ত কিশোর।

এই ভোটকুশলীকে লোকসভা নির্বাচনে পর দায়িত্ব দেয় তৃণমূল কংগ্রেস। যিনি শেষদিন পর্যন্ত আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে বলেছিলেন, ‘‌বিজেপি দুই অঙ্ক পেরোবে না। আর তৃণমূল কংগ্রেস একক সংখ্যাগরিষ্ঠ সরকার গড়বে। যদি বিজেপি দু’‌অঙ্ক পেরিয়ে যায় তাহলে আমি এই পেশা ছেড়ে দেবো।’‌ তার পর তাঁর দিকে একাধিক বাক্যবাণ ধেয়ে আসে। তখন ভোটকুশলীকে বলতে শোনা যায়, ‘‌আমি তো বলছি আমার কথা না মিললে এই পেশা ছেড়ে দেবো। বিজেপি নেতারা বলুন যে তাঁদের কথা না মিললে তাঁরা রাজনীতি ছেড়ে দেবেন।’‌ তারপর আর কেউ কথা বাড়ায়নি।

বিধানসভা নির্বাচনের ট্রেন্ড বলছে, এই মুহূর্তে ভারতীয় রাজনীতিতে সব থেকে বেশি ক্ষমতাশালী ব্যক্তি এই ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর। যিনি অঙ্ক কষে নির্বাচন জিতিয়ে বা হারিয়ে দিতে পারেন। এই বাংলার নির্বাচন ছিল তাঁর কাছে চ্যালেঞ্জের। আর মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের কাছে ছিল অস্তিত্ব রক্ষার লড়াই। তবে এই ভোটে সাফল্যের পর ভোটকুশলী প্রশান্ত কিশোর আইপ্যাক ছেড়ে দেবেন বলে জানিয়েছেন। খেলা হবে স্লোগান উঠেছিল বঙ্গে। যার গোলকিপার স্বয়ং মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। যিনি বিজেপিকে গোল করতে দিলেন না। আর কোচের ভূমিকায় দেখা গেল প্রশান্ত কিশোরকে। স্বাস্থ্যসাথী থেকে দুয়ারে সরকার প্রকল্প যাঁর মস্তিষ্কপ্রসূত।

বন্ধ করুন