বাংলা নিউজ > ভোটের লড়াই > পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভা নির্বাচন 2021 > কয়েকটা দুষ্টু গরু হাম্বা হাম্বা ডেকে ইধার–উধার করছে:‌ দলত্যাগীদের কটাক্ষ মমতার
পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি সৌজন্য :‌ পিটিআই (PTI)
পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ফাইল ছবি সৌজন্য :‌ পিটিআই (PTI)

কয়েকটা দুষ্টু গরু হাম্বা হাম্বা ডেকে ইধার–উধার করছে:‌ দলত্যাগীদের কটাক্ষ মমতার

  • মমতা বলেন, ‘‌আমি মনে করি, যাঁরা তৃণমূলে থেকে তৃণমূলের খারাপ করে তাঁদের এই দলে থাকার প্রয়োজন নেই। তৃণমূল কংগ্রেস তাঁরাই করবে যাঁরা মানুষের কাজ করবে।’‌

সম্প্রতি তৃণমূল ছেড়ে বিজেপি–তে গিয়েছেন বর্ধমান পূর্বের সাংসদ সুনীল মণ্ডল, কালনার বিধায়ক বিশ্বজিৎ কুণ্ডুরা। এবার তাঁদের এলাকা কালনার সভা থেকেই দলত্যাগীদের ‘‌দুষ্টু গরু’‌ বলে কটাক্ষ করলেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি এদিন পুরনো প্রবাদ বাক্য ‘‌দুষ্টু গরুর থেকে শূন্য গোয়াল ভাল’‌র কথা মনে করিয়ে তোপ দাগেন দলত্যাগীদের বিরুদ্ধে।

নাম না করে শুভেন্দু অধিকারী, রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়দের মতো দলত্যাগীদের কটাক্ষ করে মমতা বলেন, ‘‌নিজেদের দুর্নীতি চাপা দেওয়ার জন্য কয়েকটা দুষ্টু গরু হাম্বা হাম্বা ডাকতে ডাকতে ইধার–উধার করে বেরাচ্ছে। তারা গেছে ভাল হয়েছে। পাপ বিদায় নিয়েছে। আমি মনে করি, যাঁরা তৃণমূলে থেকে তৃণমূলের খারাপ করে তাঁদের এই দলে থাকার প্রয়োজন নেই। তৃণমূল কংগ্রেস তাঁরাই করবে যাঁরা মানুষের কাজ করবে।’‌

মুখ্যমন্ত্রীর আরও অভিযোগ, ‘‌মা’‌ সমান তৃণমূলের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে দলত্যাগী ‘‌কুসন্তান’‌রা। তিনি এদিন উদাহরণ দিয়ে বলেন, ‘মা ছেলেদের খাইয়ে–দাইয়ে লালন–পালন করবে। আর তার পর মা যখন অসুস্থ হয়ে পড়বে বা মায়ের যখন খাদ্যের প্রয়োজন হবে তখন তুমি তাঁর সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করবে। এরকম কুসন্তান কখনও সুসন্তান হতে পারে না।’‌

এদিকে, কালনা ও সংলগ্ন এলাকার উন্নয়ন প্রসঙ্গে মুখ্যমন্ত্রী এদিন বলেন, ‘কালনা–কাটোয়া আমাদের কাছে অনেক পুরনো শহর। কালনাকে নদিয়ার শান্তিপুরের সঙ্গে যুক্ত করার জন্য ১১০০ কোটি টাকার সেতুর কাজ চলছে। এই সেতু তৈরি হয়ে গেলে মাত্র কয়েক মিনিটে আপনারা শান্তিপুর, নবদ্বীপে চলে যেতে পারবেন। নতুন করে ইসকনের মন্দির তৈরিতে ৭০০ একর জমি দেওয়া হয়েছে। নবদ্বীপকে হেরিটেজ শহর হিসেবে ঘোষণাও করা হয়েছে। আগামীদিনে কালনার জন্য নিশ্চয়ই ভাবব। কালনায় যত মন্দির আছে এত মন্দির আর কোথাও নেই।’‌

বন্ধ করুন