বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Nusrat-Nikhil; নিখিল পুরুষের প্রতিও আকৃষ্ট? গুঞ্জন ছড়াতে নুসরতের বিরুদ্ধে গর্জে উঠল প্রাক্তন সঙ্গী
নিখিল মুখ খুললেন (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
নিখিল মুখ খুললেন (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)

Nusrat-Nikhil; নিখিল পুরুষের প্রতিও আকৃষ্ট? গুঞ্জন ছড়াতে নুসরতের বিরুদ্ধে গর্জে উঠল প্রাক্তন সঙ্গী

  • ‘ক্ষমতার অপব্যবহার করে নুসরত আমার ইমেজ নষ্ট করছে’,‘স্ত্রী’র অভিযোগের পালটা নিখিল।

নুসরত জাহান ও নিখিল জৈনের সম্পর্ক ফের নতুন মোড় নিল। দুজনের সম্পর্কের টানাপোড়েন যেন কিছুতেই থামছে না। গত কয়েকমাস ধরে নুসরত জাহান ও বিতর্ক যেন সমার্থক শব্দ হয়ে দাঁড়িয়েছে। নায়িকার ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে চর্চার শেষ নেই। নিখিল জৈনের সঙ্গে তাঁর ভাঙা ‘বিয়ে’, যশ দাশগুপ্তের সঙ্গে সহবাস এবং ঈশানের মা হওয়ার- সবকিছু নিয়েই তৈরি হয়েছে বিতর্ক।

এর মাঝে সোমবার এক প্রথম সারির সংবাদপত্রকে নুসরত জানান, নিখিলের সঙ্গে বিয়ের ঘটনা কোনওদিন অস্বীকার করেননি তিনি, তাঁর বিবৃতির ভুল ব্যাখা করা হয়েছে। আসলে ‘সহবাস’ শব্দের উল্লেখ নিখিল জৈন করেছেন, তাঁর তরফে পাঠানো আইনি নোটিসে। নিজের দাবির স্বপক্ষে সেই নোটিশের দুটি লাইন উল্লেখ করেছেন নুসরত। সেখানে লেখা রয়েছে, ‘in the circumstances the plaintiff is also not in a position to continue the relation or the union or the live in relationship.’ ‘লিভ ইন' বা ‘সহবাস’ শব্দটি নিখিল ব্যবহার করেছেন এটা নুসরতের ব্যাখা। 

এই নিয়ে নিখিল নিজের অবস্থান স্পষ্ট করেছেন। নিখিলের জানান, ‘আমি সহবাস শব্দটা ব্যবহার করব কী করে? আমি তো নিজে ওকে সিঁদুর পরিয়ে বিয়ে করেছিলাম!’ নিখিল স্পষ্ট বলেন, নুসরত যশ দাশগুপ্তের সঙ্গেই থাকতে চান সেটা বোঝবার পর তিনি আইনি নোটিস পাঠিয়েছিলেন। নিখিল জানান, বিষয়টি পুরো নোটিস দেখলেই স্পষ্ট হবে, সেখানে লেখা রয়েছেন তিনি নুসরতকে বিয়ে করেছিলেন।

আইনের মাধ্যমে যদি কারওর সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করতে হয়, সেখানে আইনি ভাষায় পরিষ্কার জানাতে হয় সেই ব্যক্তির সঙ্গে আবেদনকারীর কোন ধরনের সম্পর্ক, মিলন বা সহবাস করা সম্ভব নয়। সুতরাং ‘সহবাস’ শব্দটি আইনি ভাষায় ব্যবহার করা সম্পূর্ণরূপে সঙ্গত। 

হিন্দুস্তান টাইমস বাংলাকে এই প্রসঙ্গে নিখিল জানান, ‘এর আগেও মিডিয়াকে ব্যবহার করে বেশ কিছু কথা আমার নামে নুসরত বলেছে, এবার বিষয়টা খুব বোরিং এবং একঘেঁয়ে হয়ে যাচ্ছে। আমি আপতত নিজের জীবন এবং লক্ষ্যের উপর মনোযোগ দিয়েছি। আমি এক্কেবারেই চিন্তিত নই, যে ক্ষমতায় থাকা মানুষজন কীভাবে মিডিয়াকে হাতিয়ার করে আমার ইমেজ নষ্ট করছে’। নিখিল আরও বলেন, ‘মিথ্যা অভিযোগ আনা নুসরতের জন্য এখন ট্রেন্ড হয়ে গিয়েছে’। 

এদিন এক সংবাদমাধ্যমের প্রতিবেদনে দাবি করা হয়েছে, নিখিল উভয়কামী, এবং পুরুষ বন্ধুর সঙ্গে নিখিলের ঘনিষ্ঠতার জেরেই নাকি ভেঙেছে নুসরত-নিখিলের ‘বিয়ে’। গোটা ঘটনাকে ন্যক্কারজনক বলে দাবি করে নিখিল বলেন,'ও আমার ছোটবেলার বন্ধু।সেই ঘনিষ্ঠতা নিয়ে এত নোংরা ব্যাখ্যা করা হল?'

এর বেশি মন্তব্য করতে চান না নিখিল। যশ ও ঈশানকে নিয়ে সুখে থাকুন নুসরত, এটাই চান তিনি। কিন্তু নিখিল সম্পর্কে এই ‘রটনা’ কেন? তা ভেবে পাচ্ছেন না খোদ নিখিল। 

বন্ধ করুন