ইরফান খান
ইরফান খান

অবস্থা সংকটজনক ইরফান খানের,তবে 'লড়াই চালাচ্ছেন অভিনেতা',জানাল মুখপাত্র

  • কোলনে ইনফেকশন নিয়ে মুম্বইয়ের কোকিলাবেন ধীরুভাই অম্বানি হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি ক্যানসার জয়ী অভিনেতা ইরফান খান।

মঙ্গলবার বিকালে আচমকাই অভিনেতা ইরফান খানের গুরুতর অসুস্থতার খবর সামনে আসে। জানা যায়,মুম্বইয়ের কোকিলাবেন ধীরুভাই অম্বানি হাসপাতালের আইসিইউতে ভর্তি অভিনেতা ইরফান খান।

এরপর থেকেই অভিনেতার শারীরিক পরিস্থিতি নিয়ে নানা রকম জল্পনা চলছিল। এমনও খবর রটে যায় মৃত্যু হয়েছে অভিনেতার। গতকাল রাত ১টা নাগাদ ইরফান খানের টিমের তরফে একটি আনুষ্ঠানিক বিবৃতি জারি করা হয়,সেখানে তাঁর মুখপাত্র জানান,‘ইরফানের শারীরিক অবস্থা নিয়ে চরম জল্পনা মানুষজন তৈরি করছে যেটা অত্যন্ত হতাশাজনক ঘটনা। আমরা বুঝতে পারছি যে মানুষ চিন্তিত,কিন্তু তা বলে এই ঘটনা নিয়ে ভুয়ো খবর ছড়িয়ে প্যানিক তৈরি অর্থহীন,সেই কাজটাই অনেক সূত্র করছে-যা খুবই দুর্ভাগ্যজনক। ইরফান খুব শক্তিশালী মানুষ এবং এখনও লড়াই করছে। আমরা অনুরোধ জানাচ্ছি দয়া করে ভুয়ো খবরের জালে পা দেবেন না এবং যেসব কথোপকথন অর্থহীন তাতে অংশ নেবেন না। আমরা সবসময়ই ইরফানের স্বাস্থ্য নিয়ে সঠিক তথ্য দিয়ে এসেছি,আগামিতেও তেমনটাই করা হবে’।

কোলনে ইনফেকশন নিয়ে হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন ৫৩ বছর বয়সী এই অভিনেতা। মঙ্গলবার সন্ধ্যায় তাঁর হাসপাতালে ভর্তির খবর স্বীকার করে নিয়ে তাঁর মুখপাত্র জানিয়েছিল, ‘ইরফানের কোকিলাবেন হাসপাতালে হাসপাতালে ভর্তি হওয়ার খবর সত্যি। ইরফানের কোলনে ইনফেকশন হয়েছে।..আপাতত তিনি ICU-তে চিকিৎসকদের নজরদারিতে রয়েছেন। ইরফানের মনের জোর এবং সাহস অপরিসীম,সেই নিয়েই এতদিন ও লড়াই চালিয়েছে। আশাকরি, ওনার এই মনের জোর এবং শুভাকাঙ্খীদের প্রার্থনায় উনি শীঘ্রই সুস্থ হয়ে উঠবেন’।

২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারি মাসে ইরফান খানের নিউরো এন্ডোক্রিন টিউমারে আক্রান্ত হওয়ার খবর সামনে আসে, এরপর দীর্ঘ সময় লন্ডনে চিকিত্সা চলেছে ইরফান খানের। গত বছর এপ্রিলে ভারতে ফিরেছিলেন অভিনেতা। ক্যানসার যুদ্ধে জয়ী হলেও তারপর থেকেই ইরফান খান নিয়মিত চিকিত্সার মধ্যেই ছিলেন, কিন্তু আচমকাই পরিস্থিতি বিগড়ে যায়।

আপতত হাসপাতালে অভিনেতার সঙ্গে রয়েছেন তাঁর স্ত্রী সুতপা শিকদার ও দুইপুত্র বাবিল এবং অয়ন।

শনিবার ইরফানের মায়ের মৃত্যুর সামনে আসে। জয়পুরের বেনিওয়াল কান্ত কৃষ্ণ কলোনিতে থাকতেন তিনি। সেখানেই মৃত্যু হয় তাঁর। জানা গিয়েছিল বিদেশে রয়েছেন অভিনেতা। তাই যোগ দিতে পারবেন না অন্ত্যেষ্টিতে। পরে ভিডিয়ো কলের মাধ্যমে শেষবারের মতো মায়ের দর্শন সারেন অভিনেতা। যদিও মঙ্গলবার জানা গেল বিদেশে নয় মুম্বইতেই ছিলেন অভিনেতা।

শারীরিক অসুস্থতার জন্যই দীর্ঘ সময় ধরে রূপোলি পর্দা থেকেও দূরে ছিলেন ইরফান। বক্স অফিসে ইরফানের কামব্যাক ছবি ছিল আংরেজি মিডিয়াম। ১৩ মার্চ মুক্তি পেয়েছিল এই ছবি। তবে করোনার জেরে লকডাউন শুরুর আগেই তালাবন্ধ হয়ে যায় সিনেমাহল। ফলে বড়োপর্দায় মাত্র দু-তিনই প্রদর্শিত হয়েছে এই ছবি।আপতত ডিজিট্যাল প্ল্যাটফর্ম ডিজনি হটস্টারে স্ট্রিম হচ্ছে এই ছবি।


বন্ধ করুন