বাড়ি > বায়োস্কোপ > সোশ্যাল মিডিয়ায় লাগাতার ট্রোলিং,সুশান্তের আত্মহত্যা,ভেঙে পড়েছেন করণ জোহর!
ঘনিষ্ঠমহলসূত্রে খবর মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করণ জোহর (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)
ঘনিষ্ঠমহলসূত্রে খবর মানসিকভাবে বিপর্যস্ত করণ জোহর (ছবি-ইনস্টাগ্রাম)

সোশ্যাল মিডিয়ায় লাগাতার ট্রোলিং,সুশান্তের আত্মহত্যা,ভেঙে পড়েছেন করণ জোহর!

  • জীবনে কোনওদিন ট্রোল নিয়ে মাথা না ঘামানো করণ জোহরের বর্তমান পরিস্থিতি নাকি একদম ভিন্ন রকম,বলছেন পরিচালকের কাছের বন্ধু।

সুশান্ত সিং রাজপুতের আত্মহত্যা নাড়িয়ে দিয়েছে গোটা দেশকে। অভিনেতার মৃত্যু গিয়ে নেটিজেনজের রোষের মুখে বলিউডের একটা বড় অংশ। এই তালিকায় একদম উপরে রয়েছেন ধর্মা প্রোডাকশনের কর্ণধার, পরিচালক করণ জোহর। সুশান্তের মৃত্যুর পর বলিউডে যে নেপোটিজম বিতর্ক মাথাচাড়া দিয়েছে সেই নেপোটিজমের মূল কাণ্ডারী কেজো, এই কথাটা বলিউডে বরাবর প্রচলিত। 

মনের কথা মন খুলতে বলতেই ভালোবাসেন করণ জোহর,খুব বেশি রাখঢাক রাখেন না।সোশ্যাল মিডিয়াতেও প্রচন্ড অ্যাক্টিভ তিনি। অথচ সুশান্তের মৃত্যুর পর দিন থেকে আজ পর্যন্ত ইনস্টাগ্রাম,টুইটারে খোঁজ নেই করণের। 'টুডলস ভিডিয়ো' তো দূরে থাক, কোনও প্রচারমূলক পোস্ট বা কাউকে জন্মদিনের শুভেচ্ছা জানানো কিচ্ছুটি নেই। ইনস্টাগ্রামের কমেন্টবক্স লক করা,টুইটারে কার্যত সকলেই আনফলো করেছেন করণ। ইনস্টাগ্রামে করণের ফলোয়ার সংখ্যা কমেছে কয়েক লক্ষ,লাগাতার কমেই চলেছে। ধর্মা ফিল্মসের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টে উপচে পড়ছে বিদ্বেষে ভরপুর মেসেজ।

বলিউড হাঙ্গামায় প্রকাশিত এক রিপোর্টে বলা হয়েছে সুশান্তের মৃত্যু এবং তার পরবর্তী পরিস্থিতি নাড়িয়ে দিয়েছে করণ জোহরকে। ট্রোল নিয়ে আজ পর্যন্ত কোনদিনও পরোয়া করতেন না করণ জোহর। তবে পরিচালকের এক ঘনিষ্ঠ বন্ধু ওয়েবসাইটটিকে জানিয়েছে ‘ঘৃণা আর রোষ’ তিনি সইতে পারছেন না। কারণ শুধু তিনি একা নন, সোশ্যাল মিডিয়ায় মৃত্যুর হুমকি দেওয়া হচ্ছে তাঁর তিন বছরের যমজ সন্তান যশ আর রুহিকেও। মানসিকভাবে পুরোপুরি ভেঙে পড়েছেন করণ জোহর,এমনকি সকলের সঙ্গে কথা পর্যন্ত বলছেন না তিনি।

সূত্রের খবর এই বিতর্কের জেরেই মামি চলচ্চিত্র উত্সব থেকেও সরে দাঁড়িয়েছেন করণ। ইস্তাফাপত্র পাঠিয়েছেন ফেস্টিভ্যাল চেয়ারপার্সন দীপিকা পাড়ুকোনকে। দীপিকা অনেক বোঝালেও মন পালটায়নি করণের। অন্যদিকে টেলিভিশন ইন্ডাস্ট্রি সূত্রে খবর, করণের বিতর্কিত শো কফি উইথ করণের নতুন সিজন লকডাউনের আগে ঘোষণা করলেও সেই শো অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে চ্যানেল কর্তৃপক্ষ।

প্রসঙ্গত সুশান্তের শেষ রিলিজ ড্রাইভের প্রযোজক ছিলেন করণ জোহর।বারবার ড্রাইভের মুক্তি পিছিয়ে শেষমেষ ডিজিটাল প্ল্যাটফর্মে এই ছবির মুক্তি নিয়ে মনোমালিন্য হয়েছিল করণ-সুশান্তের তা বলিপাড়ায় কারুরই অজানা নয়। নেটফ্লিক্সে ড্রাইভের মুক্তি নিয়ে খুশি ছিলেন না সুশান্ত। ছবির প্রচার থেকে নিজেকে পুরোপুরিভাবে গুটিয়ে নিয়েছিলেন। 

সুশান্তের মৃত্যুর পর তাঁর ড্রাইভ প্রযোজক সোশ্যাল মিডিয়া পোস্টে লেখেন, আমি নিজেকে দুষছি তোমার সঙ্গে গত এক বছর যোগযোগ না রাখবার জন্য… আমার কখনও কখনও মনে হয় সত্যি তোমার কখনও কখনও একটা মানুষকে দরকার হয় তোমার জীবনটা ভাগ করে নেওয়ার জন্য..আমি হয়ত সেই ভাবনা নিয়ে তোমার সঙ্গে যোগাযোগ রাখিনি..এই ভুলটা আর জীবনে কোনওদিনও করব না..শুধু একটা সম্পর্ক গড়লেই হয় না এই কঠিন সময়েই এই সম্পর্কটার খেয়ালও রাখতে হয়'। ১৪ই জুন সুশান্তের মৃত্যুর পর এই কথাই ইনস্টা পোস্টে লেখেন করণ। তারপর থেকে গত  ২২ দিন ধরে সোশ্যাল মিডিয়া থেকে দূরে রয়েছেন করণ জোহর। 

বন্ধ করুন