বাড়ি > বায়োস্কোপ > 'সুশান্তকে সময় দিতে নিজের মূল্যবান কেরিয়ার বিসর্জন দিয়েছেন রিয়া', দাবি বন্ধুর
সুশান্ত সিং রাজপুত মৃত্যু মামলায় ইডির অফিসে জেরার পর রিয়া চক্রবর্তী (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই)
সুশান্ত সিং রাজপুত মৃত্যু মামলায় ইডির অফিসে জেরার পর রিয়া চক্রবর্তী (ফাইল ছবি, সৌজন্য এএনআই)

'সুশান্তকে সময় দিতে নিজের মূল্যবান কেরিয়ার বিসর্জন দিয়েছেন রিয়া', দাবি বন্ধুর

  •  রিয়ার এক বন্ধুর বক্তব্য, 'তদন্তের টানাপোড়েনে চোখের জল ফেলার অবকাশটুকুও হারিয়েছেন রিয়া।'

ক্রমশ ঘনীভূত হতে থাকা সুশান্ত সিং রাজপুতের মৃত্যু রহস্যের জট খুলতে কোমর বেঁধে নেমে পড়েছে সিবিআই। দীর্ঘ জেরার মুখে পড়তে হয়েছে প্রয়াত অভিনেতার পরিচিত কয়েকজনকে। তাঁর বান্ধবী রিয়া চক্রবর্তীর জন্যও কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা প্রশ্নপত্র তৈরি রেখেছে বলে খবর। সেই আবহেই রিয়ার হয়ে আসরে নামলেন অভিনেত্রীর কয়েকজন বন্ধু। 

‘হাফপোস্ট’-এর রিপোর্ট অনুযায়ী, রিয়ার বন্ধুরা দাবি করেছেন যে অভিনেত্রীর সঙ্গে সুশান্তের সম্পর্ক একেবারে স্বাভাবিক ছিল। অসুস্থ হওয়ার পরে প্রয়াত অভিনেতার অত্যন্ত যত্নও নিতেন রিয়া। সুশান্তের চিকিৎসার যাবতীয় সিদ্ধান্ত দু'জন একসঙ্গে নিতেন। এমনকী সুশান্তকে সময় দেওয়ার জন্য রিয়া কয়েকটি ছবির প্রস্তাবও ফিরিয়ে দিয়েছিলেন বলে দাবি তাঁদের। যদিও নিজেদের নাম প্রকাশ করতে রাজি হননি রিয়ার সেই বন্ধুরা।

সুশান্ত ও রিয়ার এক ‘কমন ফ্রেন্ড’ আবার দাবি করেছেন, ‘পারস্পরিক সম্মতির ভিত্তিতেই গত বছর পুরনো অ্যাপার্টমেন্ট ছেড়ে নতুন বাড়িতে থাকতে শুরু করেন তাঁরা (সুশান্ত ও রিয়া)। রিয়া মনে করতেন, পুরনো বাড়ি ছাড়লে সুশান্তের মানসিক স্বাস্থ্যের উন্নতি হবে। আর সুশান্ত চেয়েছিলেন, এমন কোনও বাড়িতে থাকতে যা খোলামেলা হবে, বড় টেরাস বা বারান্দা থাকবে। সুশান্তের মানসিক স্বাস্থ্যের কথা ভেবে বাড়ির অধিকাংশ আসবাবপত্রও পালটে ফেলা হয়েছিল । অত্যন্ত গোপনীয়তা অবলম্বন করে যাবতীয় কাজ করা হয়েছিল, যাতে তা কোনওভাবেই সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত না হয়ে যায়।’

রিয়ার অপর এক বন্ধু আবার বলেছেন, 'নিজেদের একটা খোলসে বন্দি করে ফেলেছিলেন সুশান্ত ও রিয়া। প্রায়শই শেষ মুহূর্তে কোনও পরিকল্পনা বাতিল করে দিতেন।সুশান্তকে সময় দেওয়ার জন্য রিয়া নিজের মূল্যবান কেরিয়ারকে বিসর্জন দিয়েছেন। ভালোবাসা না থাকলে তা কখনওই সম্ভব হতে পারে না।' 

কিন্তু সুশান্তের মৃত্যুর পর থেকে রিয়াকে নিয়ে যেভাবে চর্চা ও তদন্ত করা হচ্ছে, তা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন অভিনেত্রীর বন্ধুরা। রিয়ার কথা ভেবে দেখার অনুরোধ জানিয়ে এক বন্ধু বলেন, ‘মানবিকতা কি একেবারেই হারিয়ে গিয়েছে? সেই মেয়েটার কথা কেউ ভাবছেন না যে নিজের ভালোবাসাকে এভাবে চিরকালের জন্য হারিয়ে ফেললেন। তদন্তের টানাপোড়েনে চোখের জল ফেলার অবকাশটুকুও হারিয়েছেন রিয়া।'

রিয়ার প্রতি সহানুভূতির ঝুলি উপুড় করে দিলেও সুশান্তের পরিবারের বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন অভিনেত্রীর বন্ধুরা। তাঁদের দাবি, ‘সুশান্তের যে বাইপোলার সিনড্রোমজনিত সমস্যা আছে, তা কিছুতেই অভিনেতার পরিজনরা মেনে নিতে পারতেন না। সুশান্ত অবসাদগ্রস্ত থাকার সময়ও তাঁকে ও রিয়াকে একঘরে করে দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছিল। দু’জনের মধ্যে সম্পর্ক ছিন্ন করে দেওয়া হয়েছিল।'

বন্ধ করুন