কহো না প্যায়ার হ্যায়ের ২০ বছর পূর্তি :হৃত্বিকের প্রথম ছবির এই তথ্যগুলো জানেন?

  • ঠিক ২০ বছর আগে ১৪ জানুয়ারি মুক্তি পেয়েছিল পেয়েছিল হৃত্বিক-আমিশা জুটির প্রথম ছবি কহো না প্যায়ার হ্যায়। বক্স অফিসে সাফল্যের নয়া কীর্তি গড়েছিল পরিচালক রাকেশ রোশনের এই ফিল্ম। তবে এই ছবি সম্পর্কে বেশ কিছু তথ্য আপনাকে অবাক করবে!
দেখতে দেখতে বলিউডে দু দশক পার করে ফেললেন গ্রীক গড হৃত্বিক রোশন। আজ থেকে ঠিক ২০ বছর আগে আজকের দিনেই মুক্তি পেয়েছিল কহো না প্যায়ার হ্যায়। যে ছবির সঙ্গে বলিউড সফর শুরু হয়েছিল হৃত্বিক-আমিশা জুটির। সাফল্যের নয়া নজির গড়েছিল পরিচালক রাকেশ রোশনের এই ফিল্ম। তবে এই ছবি সম্পর্কে বেশ কিছু তথ্য আপনাকে অবাক করবে!
1/7দেখতে দেখতে বলিউডে দু দশক পার করে ফেললেন গ্রীক গড হৃত্বিক রোশন। আজ থেকে ঠিক ২০ বছর আগে আজকের দিনেই মুক্তি পেয়েছিল কহো না প্যায়ার হ্যায়। যে ছবির সঙ্গে বলিউড সফর শুরু হয়েছিল হৃত্বিক-আমিশা জুটির। সাফল্যের নয়া নজির গড়েছিল পরিচালক রাকেশ রোশনের এই ফিল্ম। তবে এই ছবি সম্পর্কে বেশ কিছু তথ্য আপনাকে অবাক করবে!
আমিশা প্যাটেল নন হৃত্বিকের বিপরীতে এই ছবিতে ডেব্যিউয়ের কথা ছিল করিনা কাপুরের। এমনকি ছবির শ্যুটিংও শুরু করে দিয়েছিলেন এই কাপুর কন্যা। এমনকি কহো না প্যায়ার হ্যায় ছবির একটি লং শটে রয়েওছেন তিনি। সম্প্রতি এক সাক্ষাত্কারে সেই রহস্যা ফাঁস করেন বেবো। করিনা জানান, সমুদ্রের ধারে পাথরের পাশে ব্লু জিনস এবং সোয়েটারে হৃত্বিকের সঙ্গে আমি ছিলাম, আমিশা নয়’। ছবির ফাইনাল এডিটে তা বাদ দেওয়া হয় নি।
2/7আমিশা প্যাটেল নন হৃত্বিকের বিপরীতে এই ছবিতে ডেব্যিউয়ের কথা ছিল করিনা কাপুরের। এমনকি ছবির শ্যুটিংও শুরু করে দিয়েছিলেন এই কাপুর কন্যা। এমনকি কহো না প্যায়ার হ্যায় ছবির একটি লং শটে রয়েওছেন তিনি। সম্প্রতি এক সাক্ষাত্কারে সেই রহস্যা ফাঁস করেন বেবো। করিনা জানান, সমুদ্রের ধারে পাথরের পাশে ব্লু জিনস এবং সোয়েটারে হৃত্বিকের সঙ্গে আমি ছিলাম, আমিশা নয়’। ছবির ফাইনাল এডিটে তা বাদ দেওয়া হয় নি।
কেন কহো না প্যায়ার হ্যায় ছেড়েছিলেন করিনা? করিনার কথায়, ছবিটি সুপারহিট হয়েছিল। আমি যদি সত্যি সেটাতে অভিনয় করতাম আমি নিঃসন্দেহে রাতারাতি সুপারস্টার হয়ে যেতাম। কিন্তু আমি সত্যি জানি না, আমি কি শুধুই একজন স্টার হতে চাই? প্রতি শুক্রবারই তো একজন নতুন তারকা জন্ম নেয়। আমি একজন অভিনেত্রী হতে চেয়েছিলাম। সেটা বোধহয় সম্ভব হয়েছে আমি কহো না প্যায়ার হ্যায়তে কাজ করিনি বলে।
3/7কেন কহো না প্যায়ার হ্যায় ছেড়েছিলেন করিনা? করিনার কথায়, ছবিটি সুপারহিট হয়েছিল। আমি যদি সত্যি সেটাতে অভিনয় করতাম আমি নিঃসন্দেহে রাতারাতি সুপারস্টার হয়ে যেতাম। কিন্তু আমি সত্যি জানি না, আমি কি শুধুই একজন স্টার হতে চাই? প্রতি শুক্রবারই তো একজন নতুন তারকা জন্ম নেয়। আমি একজন অভিনেত্রী হতে চেয়েছিলাম। সেটা বোধহয় সম্ভব হয়েছে আমি কহো না প্যায়ার হ্যায়তে কাজ করিনি বলে।
লিমকা বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম লিখিয়েছিল এই ছবি। পুরস্কার সংখ্যার নিরিখে বলিউড ছবির মধ্যে প্রথমে রয়েছে পরিচালক রাকেশ রোশনের এই ফিল্ম।
4/7লিমকা বুক অফ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডে নাম লিখিয়েছিল এই ছবি। পুরস্কার সংখ্যার নিরিখে বলিউড ছবির মধ্যে প্রথমে রয়েছে পরিচালক রাকেশ রোশনের এই ফিল্ম।
আমিশার মা আশা প্যাটেল ছবিতে রাজের মায়ের চরিত্রটিতে অভিনয় করেছিলেন। এই ছবিতে ডবল রোলে অভিনয় করেছিলেন হৃত্বিক। গবীর,অনাথ রোহিত এবং হুবহু রোহিতের মতো দেখতে রাজ। যে নিউজিল্যান্ডে বসবাসকারী সম্ভ্রান্ত পরিবারের ছেলে।
5/7আমিশার মা আশা প্যাটেল ছবিতে রাজের মায়ের চরিত্রটিতে অভিনয় করেছিলেন। এই ছবিতে ডবল রোলে অভিনয় করেছিলেন হৃত্বিক। গবীর,অনাথ রোহিত এবং হুবহু রোহিতের মতো দেখতে রাজ। যে নিউজিল্যান্ডে বসবাসকারী সম্ভ্রান্ত পরিবারের ছেলে।
ছবিতে হৃত্বিক অভিনীত রাজ চরিত্রটি বাঁ-হাতি হিসাবে পর্দায় দেখানো হয়েছিল। সেই কারণে নিজের অতিরিক্ত আঙুলটি লুকিয়ে রাখতে প্রতিটি দৃশ্যে গ্লাভস ব্যবহার করেছিলেন হৃত্বিক।
6/7ছবিতে হৃত্বিক অভিনীত রাজ চরিত্রটি বাঁ-হাতি হিসাবে পর্দায় দেখানো হয়েছিল। সেই কারণে নিজের অতিরিক্ত আঙুলটি লুকিয়ে রাখতে প্রতিটি দৃশ্যে গ্লাভস ব্যবহার করেছিলেন হৃত্বিক।
ছবিতে রোহিত(হৃত্বিক) সোনিয়ার(আমিশা) প্রথম দেখা হয় ট্রাফিক সিগন্যালে। কাকতালীয়ভাবে হৃত্বিক-সুজানের প্রথম দেখা একইভাবে। বাবা রাকেশ রোশন ছেলের লাভ স্টোরি জেনেই ছবির চিত্রনাট্য সাজিয়েছিলেন কিনা সেটা বলা মুশকিল!
7/7ছবিতে রোহিত(হৃত্বিক) সোনিয়ার(আমিশা) প্রথম দেখা হয় ট্রাফিক সিগন্যালে। কাকতালীয়ভাবে হৃত্বিক-সুজানের প্রথম দেখা একইভাবে। বাবা রাকেশ রোশন ছেলের লাভ স্টোরি জেনেই ছবির চিত্রনাট্য সাজিয়েছিলেন কিনা সেটা বলা মুশকিল!
অন্য গ্যালারিগুলি