বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ‘লোকের যৌন জীবন নিয়ে প্রশ্ন করলে তোমার মা রাগ করে না?’, করণকে কটাক্ষ আমির-করিনার
আমির খান ও করিনা কাপুর এলেন ‘কফি উইথ করণ’-এ। 

‘লোকের যৌন জীবন নিয়ে প্রশ্ন করলে তোমার মা রাগ করে না?’, করণকে কটাক্ষ আমির-করিনার

  • ‘কফি উইথ করণ’-এর নতুন এপিসোডের প্রোমো শেয়ার করলেন করণ সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেখানে দেখা গেল কফি কাউচে বিরাজমান হয়েছেন ‘লাল সিং চাড্ডা’ জুটি আমির খান আর করিনা কাপুর। 

তারকাদের যৌন জীবন নিয়ে কেন এত কৌতুহল থাকে করণ জোহরের? ‘কফি উইথ করণ’-এ এসে এমন প্রশ্নই করে বসলেন আমির খান। শুনে মুখ হাঁ হয়ে যায় পরিচালক-প্রযোজকের। এখানেই শেষ নয়, আমিরের সঙ্গে কিছুটা সহমত হতে দেখা যায় করিনা কাপুর খানকেও।

মঙ্গলবার ‘কফি উইথ করণ’-এর নতুন এপিসোডের প্রোমো শেয়ার করলেন করণ সোশ্যাল মিডিয়ায়। যেখানে দেখা গেল কফি কাউচে বিরাজমান হয়েছেন ‘লাল সিং চাড্ডা’ জুটি। আর সেখানে সঞ্চালককেই রোস্ট করা শুরু করে দেন আমির খান আর করিনা কাপুর মিলে।

করণ প্রশ্ন করেন করিনাকে বাচ্চা হওয়ার পর সেক্স লাইফ কেমন থাকে! আর তাতে করিনার জবাব, এটা তো করণেরও জানা উচিত। কারণ তাঁর যে যমজ সন্তান আছে। আর তাতে জবাব আসে আমার মা এই শো দেখছে আমি আমার সেক্স লাইফ নিয়ে কথা বলতে পারব না। আর এতেই ট্রোল করে আমিরের প্রশ্ন, ‘তুমি অন্যের সেক্স লাইফ নিয়ে প্রশ্ন করলে তোমার মা রাগ করে না? কীসব প্রশ্ন করছে…’ আরও পড়ুন: বুকে গুলি লেগেছে মিঠাইয়ের, তাহলে হাতে প্লাস্টার কেন? জানুন এর পিছনের আসল গল্প

করিনা আবার আমিরকে রোস্ট করে বলেন, ‘তুমি কি ১০০-২০০ দিন লাগিয়ে একটা ছবির শ্যুট করো। অক্ষয় কুমারকে দেখো ৩০ দিনেই করে দেয়।’ এমনকী আমিরকে তাঁর ফ্যাশন সেন্সের জন্য মাইনাসেই মার্কিং করেন করিনা। বৃহস্পতিবার ডিজনি+হটস্টারে দেখা যাবে এই এপিসোড।

চলতি সিজনে করণের কফি কাউচে দেখা মিলেছে ‘রকি অর রানি কি প্রেম কাহানি’ জুটি রণবীর সিং-আলিয়া ভাটের। এসেছিলেন ‘লাইগার’-এর অনন্যা পাণ্ডে আর বিজয় দেবেরাকোন্ডা। অক্ষয় কুমার আর সামন্থাও এসেছেন ৭ নম্বর সিজনে। আরও পড়ুন: ‘ঝলক দিখলা যা’-র ১০ নম্বর সিজন তারকাখচিত, দেখুন কোন কোন তারকা যোগ দিলেন শো-তে

প্রসঙ্গত, বর্তমানে টুইটারে ট্রেন্ড করছে ‘বয়কট কফি উইথ করণ’। যা নিয়ে ইতিমধ্যেই নিজের বক্তব্য জাহির করেছেন আমির আর করিনা। ২০১৮ সালে আমিরের বলা ‘ভারতের সহনশীলতা ক্রমশ কমে যাচ্ছে’ মন্তব্যকে ঘিরেই ফের জলঘোলা করা হচ্ছে। আমির মিডিয়াকে জানিয়েছেন, ‘আমার এটা ভেবে আরও খারাপ লাগে যে এই ধরনের প্রচার যারা করছে তাঁরা অনেকেই মনে মনে বিশ্বাস করে আমি ভারতবর্ষকে ভালোবাসি না। এটা সত্যি নয়। বরং ভুল, মিথ্যে। দয়া করে আমার ছবি বয়কট করবেন না। দয়া করে দেখুন ছবিখানা।’

আর করিনার বক্তব্য, ‘এতগুলো প্ল্যাটফর্ম, মানুষের এত ধরণের বক্তব্য। সবচেয়ে ভালো হয় এই ধরনের কথা অদেখা করে যেতে পারলে। এরকম সব কথা নিয়ে ভাবতে বসলে তো জীবন চালিয়ে নিয়ে যাওয়াই মুশকিলের হয়ে পড়বে। এই জন্য আমি এসব জিনিস গায়ে মাখি না।’

 

বন্ধ করুন