বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ১৯ বছরে পাওয়া কোমরে গুরুতর চোট আজও বয়ে বেড়াচ্ছেন,জন্মদিনে জানালেন আমির কন্যা
বাবার সঙ্গে ইরা । ছবি সৌজন্যে - ট্যুইটার

১৯ বছরে পাওয়া কোমরে গুরুতর চোট আজও বয়ে বেড়াচ্ছেন,জন্মদিনে জানালেন আমির কন্যা

  • জন্মদিনে নিজের একটি ভিডিও শেয়ার করলেন আমির-কন্যা ইরা খান। ভিডিওতে নিজের মনের কথা উপুড় করে রাখলেন সবার সামনে। জানালেন কোমরে গুরুতর চোট পাওয়া ও তার পরবর্তী পরিস্থিতির কথাও।

২৩ শে পা রাখলেন আমির-কন্যা ইরা খান। জন্মদিন উপলক্ষে নেটমাধ্যমে নিজের একটি ভিডিও শেয়ার করলেন তিনি। ভিডিওতে নিজের নানা ব্যক্তিগত কথা শেয়ার করেছেন তিনি। কোনও রাখঢাক না রেখে মনের কথা উপুড় করে দিয়েছেন তিনি। ইরা জানিয়েছেন বরাবরই তিনি স্বাস্থ্য সচেতন। তাঁর যখন ১৯ বছর বয়স তখন শরীরচর্চা করতে গিয়ে কোমরে গুরুতর চোট পান তিনি। ডাক্তারি পরিভাষায় সেই আঘাতকে বলে,'স্লিপ ডিস্ক'। অবস্থা এতটাই বেগতিক হয়ে পরে যে একটা সময় ঠিক করে চলাফেরা পর্যন্ত করতে পারতেন না তিনি। বর্তমানেও হাঁটা চলা,ওঠা বসার মতো নানান ছোটখাটো ব্যাপারে বিভিন্ন সতর্কতা মেনে চলতে হয় তাঁকে। আমির-কন্যার গলায় তখন মনখারাপের সুর। ধীর গলায় তিনি জানান সামান্য একটা চেয়ার থেকেও ওঠার ব্যাপারে সাবধান থাকতে হয় তাঁকে। জোর করে নিজেকে টেনে তুলে দাঁড় হতে হয়। 

ইরা একনাগাড়ে বলে চলেন শেষ চার বছরে কখনওই টানা ১ মাসের বেশি সময় ধরে শরীরচর্চা চালিয়ে যেতে পারেননি তিনি। ওই চোটের কারণেই। বর্তমানে নিজেকে 'মোটা' বলতেও কোনও দ্বিধা নেই তাঁর। তবে নিজেকে 'মোটা' তকমা দিলেও এই শব্দের ব্যাখ্যা করেছেন তিনি। ইরার মতে 'মোটা' অর্থাৎ চলতি শব্দে স্থূলকায় নয়। নিজের ওপর প্রয়োগ করলে 'মোটা' শব্দের অর্থ তাঁর কাছে ভারি। শরীর যে তাঁর আগের তুলনায় বেশ ভারি হয়েছে তা তিনি নিজেও যথেষ্ট অনুভব করতে পারেন। তবে ভেঙে তিনি পড়েননি। সেকথাও তিনি নিজেই জানালেন। ইরা সেই ভিডিওতেই জানিয়েছেন তিনি এই মানসিক ও শারীরিক সমস্যা কাটিয়ে উঠবেনই। তার জন্য প্রস্তুতি নেওয়া শুরু করেছেন। এইমুহূর্তে তাঁর লক্ষ্য আগামী এক মাস একটি বিশেষ রুটিন মেনে জিমে শরীরচর্চা করা। প্রতিদিন নিয়ম মেনেই ওজন বাড়িয়ে একটি স্পেশ্যাল রুটিনে ব্যাম করবেন তিনি তাঁর বয়ফ্রেন্ড টপথ জিম ট্রেনার নুপুরের নজরদারিতে। ভিডিওর কমেন্টবক্সে প্রেমিকাকে উৎসাহ দিতে দেখা গেছে নূপুরকেও।

 

বন্ধ করুন