বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > অমিতাভ বচ্চনের ছেলে হওয়ার কী সুবিধে? অভিষেককে বুঝিয়েছিলেন যশ চোপড়া
অভিষেক বচ্চন। (ছবি সৌজন্যে - হিন্দুস্তান টাইমস)
অভিষেক বচ্চন। (ছবি সৌজন্যে - হিন্দুস্তান টাইমস)

অমিতাভ বচ্চনের ছেলে হওয়ার কী সুবিধে? অভিষেককে বুঝিয়েছিলেন যশ চোপড়া

  • অভিষেক জানালেন অমিতাভ বচ্চনের ছেলে হওয়ার কী তাবড় প্রাপ্তি এবং সুবিধে তাঁর কপালে জুটেছে তা তাঁকে ব্যাখ্যা করে বুঝিয়ে দিয়েছিলেন প্রয়াত কিংবদন্তি পরিচালক যশ চোপড়া।

বাবার প্রসঙ্গে কিছু বলতে গেলেই উত্তেজনায় টগবগিয়ে ফুটে ওঠেন অভিষেক বচ্চন। আর পাঁচজন হিন্দি ছবিপ্রেমী দর্শকের মতো তিনিও যে কিংবদন্তি অভিনেতা অমিতাভ বচ্চনের দারুণ ফ্যান সেকথা বহুবার প্রকাশ্যে জানিয়েছেন 'জুনিয়র বচ্চন'। বলেছেন, বাবা অমিতাভই তাঁর জীবনের সবথেকে বড় প্রেরণা। সম্প্রতি, 'দ্য রণবীর সিং পডকাস্ট' শো-য়ে হাজির হয়ে অভিষেক জানালেন অমিতাভ বচ্চনের ছেলে হওয়ার কী তাবড় প্রাপ্তি এবং সুবিধে তাঁর কপালে জুটেছে তা তাঁকে ব্যাখ্যা করে বুঝিয়ে দিয়েছিলেন প্রয়াত কিংবদন্তি পরিচালক যশ চোপড়া।

মুম্বইয়ের সাউথ লিবার্টি সিনেমা হলে আমার ডেবিউ ছবি 'রিফিউজি'র প্রিমিয়ার হয়েছিল। প্রায় গোটা বলিউড হাজির হয়েছিলেন সেই অনুষ্ঠানে। যখন হাজির হয়েছিলাম, দেখলাম যশ চোপড়া দাঁড়িয়ে রয়েছেন গেটের পাশে। তাঁকে প্রণাম করতেই আমাকে বুকে জড়িয়ে কয়েকটি কথা বলেছিলেন 'যশজী' যা আজও ভুলিনি আমি। উনি বললেন আজ শুধুমাত্র তোমার বাবার জন্য এই সন্ধ্যাটুকুর সাক্ষী থাকতে পারছো। তোমার বাবা তোমাকে এখানে নিয়ে এসেছেন। বিষয়টি মাথায় রেখো এবং সম্মান করো। আজ যদি এই ছবি দর্শকদের ভালো না লাগে কাল থেকে কেউ তোমাকে চিনবে না। পাত্তাটুকুও দেবে না। তোমার চাই ভালো লাগুক কিংবা না লাগুক এটাই সত্যি। মাথায় রেখো'।

অভভিষেক শুনেছিলেন সেকথা। বুঝেছিলেন আর কিছুদিন পরেও। একের পর এক তাঁর সব ছবি যখন বক্স অফিসে মুক্ত থুবড়ে পড়ছে তখন বহু ছবি প্রযোজক তাঁর থেকে মুখ ঘুরিয়ে নিয়েছিলেন। অভিষেকের কথায়, 'আমার ফোন কলের জবাব দেওয়া তো দূরে থাকে অনেকে আমার কলটুকুও তুলতেন না! তবে এটাও বুঝেছিলাম এর মধ্যে ব্যক্তিগত কিছু ছিল না। আসলে সবটুকুই লাভ লোকসানের ব্যাপার। তোমার ছবি যদি বাজারে বিক্রি হয়, তাহলে উল্টে তাঁরাই যোগাযোগ করবে। এটাই নিয়ম। এরকমই হয়'। বক্তব্য শেষে তিনি যোগ করেন যে  তাঁর বাবা প্রথম প্রথম মুম্বইয়ে এসে রাস্তার ধারে পাতা বেঞ্চে শুয়েও রাট কাটিয়েছেন। মাথার উপর আস্তানাটুকুও ছিল না। কলকাতার ভালো চাকরি ছেড়ে শূন্য থেকে এখানে শুরু করেছিলেন। সেই পরিশ্রমের জেরেই বলিপাড়ায় সুযোগ পেয়েছেন তিনি, জানালেন অভিষেক নিজে। তাই তোকোনওদিনই তিনি তাঁর কাজকে 'টেকেন ফর গ্র্যান্টেড' হিসেবে গ্রহণ করেননি। যতুটুকু তিনি পেয়েছেন, মাথায় করে রেখেছেন। 'বচ্চন' হওয়ার দৌলতে যে সুবিধেটুকু তিনি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে পেয়েছেন তা তাঁর মাথায় সবসময় থাকে।

বন্ধ করুন