বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > ‘হ্যাশ আছে নাকি ?’ বলিউডের মাদকযোগের জেরে এবার বিদ্রুপের শিকার অভিষেক
ফের ট্রোলের মুখে পড়লেন অভিষেক, দিলেন পালটা জবাবও
ফের ট্রোলের মুখে পড়লেন অভিষেক, দিলেন পালটা জবাবও

‘হ্যাশ আছে নাকি ?’ বলিউডের মাদকযোগের জেরে এবার বিদ্রুপের শিকার অভিষেক

  • এই প্রশ্নের উত্তরে জানুন কী জবাব দিলেন অভিষেক বচ্চন। 

অভিনেতা সুশান্ত সিংয়ের রহস্য মৃত্যুর সূত্রে ফোকাসে চলে আসা বলিউডের ড্রাগ যোগ নিয়ে বর্তমানে রীতিমতো সরগরম রাজনীতি থেকে টুইটার। মাদকচক্রের অ্যাক্টিভ সদস্য রিয়া চক্রবর্তী, দাবি এনসিবির। প্রায় গত একমাস ধরে বাইকুল্লা জেলে বন্দি রয়েছেন রিয়া, অন্যদিকে বলিউডের একাধিক প্রথমসারির নায়িকাকে ইতিমধ্যেই মাদককাণ্ডে জেরা করেছে এনসিবি। জিজ্ঞাসাবাদের কারণে ডেকে পাঠানো হয়েছিল দীপিকা পাডুকোন , রকুল প্রীত সিং , শ্রদ্ধা কাপুরের মতো তারকা অভিনেত্রীদের । আর এই আবহেই এবার মাদক সংক্রান্ত ট্রোলিংয়ের শিকার হলেন অভিষেক বচ্চন । টুইটারে এই নিয়ে তাকে খোঁচা দেন এক মহিলা ।

ওই মহিলা অভিষেককে প্রশ্ন করেন তাঁর কাছে কি হ্যাশ (এক ধরণের নিষিদ্ধ মাদক ) আছে নাকি ? উত্তরে বচ্চন পুত্র জানান , না নেই। আমি তো ওইসব ব্যবহার করি না। কিন্তু আমি আপনার সঙ্গে মুম্বই পুলিশের যোগাযোগ করিয়ে দিতে পারি, তাঁরা আপনার চাহিদা জেনে খুশি হয়ে আপনাকে সাহায্য করবে'।  এরপরে আর কথা বাড়াননি ওই মহিলা ।

এই প্রথমবার নয়,অভিষেককে হামেশাই নেটিজেনদের কটাক্ষ এবং আক্রমণের মুখে পড়তে হল। এর আগে কখনও অমিতাভের নাম করে আক্রমণ করা হয়, আবার কখনও ঐশ্বর্যর রোজগার নিয়ে কটাক্ষ করা হয় তাঁকে। সবকিছু মিলিয়ে বারবার নেট জনতার একাংশের আক্রমণের মুখে পড়তে হয়েছে বিগ বি পুত্রকে । সম্প্রতি আনলক ৫ এ সিনেমা হল খোলা নিয়ে নিজের উচ্ছ্বাস প্রকাশ করেও এক নেটিজেনের কটাক্ষের মুখে পড়েন তিনি ।

অন্যদিকে অভিষেকের মা তথা সাংসদ জয়া বচ্চন ইতিমধ্যেই পার্লামেন্টে বলিউডের ইন্ডাস্ট্রির গায়ে মাদক চক্রের সঙ্গে জড়িয়ে থাকার তকমা এঁটে দেওয়ার তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে বক্তব্য রেখেছেন । হালেই উত্তরপ্রদেশ সরকারের তরফে সুরক্ষার প্রশ্নে ওয়াই প্লাস ক্যাটেগরির নিরাপত্তা লাভ করা বিজেপি সাংসদ রবি কিষান, সংসদে প্রশ্ন তোলেন বলিউডের মাদকযোগ নিয়ে। সেখান থেকে ড্রাগ উপড়ে ফেলার এনসিবির প্রচেষ্টাকে সাধুবাদ জানান। প্রতিবাদে সংসদে বক্তব্য রাখেন অমিতাভ পত্নী যার পরে রীতিমতো গন্ডগোল শুরু হয়ে যায় । নাম না করেই এই বক্তব্যের পালটা দেন জয়া। তিনি রবি কিষাণ, কঙ্গনাদের দিকে আঙুল তুলে বলেন- ‘এরা যে থালায় খায়, সেই থালাই ফুটো করে’। তবে সুশান্তের মৃত্যুতে , পালঘর সাধু হত্যার মতো বিষয়ে মুখে প্রায় কুলুপ এঁটে থাকা জয়াকে ড্রাগ প্রসঙ্গে এতটা উত্তেজিত হতে দেখে অনেকেই তাঁর ইস্যু ভিত্তিক প্রতিবাদ নিয়ে সমালোচনা করেছেন ।

বন্ধ করুন