এজাজ খান (ছবি-টুইটার)
এজাজ খান (ছবি-টুইটার)

সাম্প্রদায়িক উস্কানি মূলক মন্তব্যের জেরে গ্রেফতার অভিনেতা এজাজ খান

  • মানহানি, হিংসা ছড়ানোর মতো অভিযোগ এনে গ্রেফতার করা হয়েছে এই প্রাক্তন বিগ বস প্রতিযোগিকে। ফেসবুক লাইভে সেই মন্তব্য করেন অভিনেতা।

গ্রেফতার অভিনেতা এজাজ খান। ফেসবুক লাইভে সাম্প্রদায়িক উস্কানিমূলক মন্তব্যের জেরে শনিবার এই প্রাক্তন বিগ বস প্রতিযোগীকে গ্রেফতার করল মুম্বই পুলিশ। খার পুলিশ থানায় অভিনেতার বিরুদ্ধে মানহানি, হিংসা ছড়ানো, জারি নির্দেশিকার অবমাননার অভিযোগে ভারতীয় দণ্ডবিধির ১৫৩এ (দুই গোষ্ঠীর মধ্যে হিংসা ছড়ানো), ১২১ (ভারত সরকারের বিরুদ্ধে যুদ্ধঘোষণা করা) ছাড়াও ১১৭,১৮৮, ৫০১,৫০৪ এবং ৫০৫ (২) ধারায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। অভিযোগ প্রমাণিত হলে সর্বোচ্চ যাবজ্জীবন পর্যন্ত কারাদণ্ড হতে পারে এজাজ খানের। ফেসবুক লাইভে বিতর্কিত মন্তব্যের প্রেক্ষিতে এদিন খার থানায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য ডেকে পাঠানো হয়েছিল এজাজ খানকে। এরপর তাঁকে গ্রেফতার করা হয়।


ফেসবুক লাইভে এজাজ বলেছিলেন, 'এই দেশে যদি একটা পিঁপড়ে মরে তাহলে মুসলমান দায়ি, এদেশে ছবি হাতি মরে তাহলেও মুসলমান দায়ি। যদি দিল্লিতে ভূমিকম্প হয় তাহলেও মুসলমান দায়ি। মানে মুসলমান সব ঘটনার জন্যই দায়ি। কিন্তু কেউ কি একবারও ভেবে দেখেছেন এই চক্রান্তের পিছনে কে দায়ি'?

খার পুলিশের তরফে জানানো হয়েছে ফেসবুকের পাশাপাশি টুইটারেও বেশকিছু বিতর্কিত পোস্ট করেছে অভিযুক্ত, এজাজ খান। গোটা বিষয়ের তদন্ত শুরু হয়েছে। অভিনেতার আইনজীবী আদিল খাত্রি জানান, 'পুলিশ তাঁর বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ এনেছে, যা সম্পূর্ন অযৌক্তিক। ভারতীয় দণ্ডবিধির ১২১ ধারাটি (ভারত সরকারের বিরুদ্ধে যুদ্ধঘোষণা করা) অত্যন্ত গম্ভীর, যেহেতু দোষ প্রমাণিত হলে অভিযুক্তের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড হতে পারে!

আল্লাহ কে বন্দে, রক্ত চরিত্রের মতো হিন্দি ছবিতে অভিনয় করেছেন এজাজ খান। কাহানি আমারে মহাভারত কি, রহে তেরা আর্শীবাদের মতো ধারাবাহিকেও দেখা গেছে এজাজকে। বিগ বসের সাত নম্বর সিজনে অংশ নিয়েছিলেন এজাজ খান।


বন্ধ করুন