বাড়ি > বায়োস্কোপ > আমফান পরবর্তী বিপর্যয়ে নাজেহাল ঋতব্রত-শান্তিলাল,৬ দিন পরেও বিদ্যুৎ ফিরল না!
শান্তিলাল মুখোপাধ্যায় ও ঋতব্রত মুখোপাধ্যা (ছবি-ফেসবুক)
শান্তিলাল মুখোপাধ্যায় ও ঋতব্রত মুখোপাধ্যা (ছবি-ফেসবুক)

আমফান পরবর্তী বিপর্যয়ে নাজেহাল ঋতব্রত-শান্তিলাল,৬ দিন পরেও বিদ্যুৎ ফিরল না!

  • ঘূর্ণীঝড় আমফানের ৬দিন পরেও এখন বিদ্যুৎ পরিষেবা স্বাভাবিক হয়নি টলিগঞ্জ, বেহালার মতো শহর কলকাতার একাধিক জায়গায়।

বুধবার রাতে সাইক্লোন আমফানের জেরে লণ্ডভণ্ড হয়ে গিয়েছে মহানগরী কলকাতা সমেত দক্ষিণবঙ্গের প্রায় সবকটি জেলা। তবে পাঁচ দিন পেরিয়ে এখন পর্যন্ত রাজ্যের বহু জায়গায় বিদ্যুত্ পরিষেবা বিচ্ছিন্ন, মিলছে না পানীয় জল। তবে চিত্রটা শুধু জেলায় নয় মহানগরীতেও কোথাউ কোথাউ এখন বিদ্যুত পরিষেবা অমিল। এই বিপর্যয়ের হাত থেকে রেহাই পাচ্ছেন না টলিউড অভিনেতারাও। বেহালার সরশুনা এলাকার বাসিন্দা অভিনেতা শান্তিলাল মুখোপাধ্যায়। ১৪৪ ঘন্টা পেরিয়ে গেলেও এখন বিদ্যুত্ পরিষেবা স্বাভাবিক হয়নি তাঁর এলাকায়। স্বভাবতই সোশ্যাল মিডিয়ায় ক্ষোভ উগরে দিয়েছেন অভিনেতা। তাঁর মতে হয়ত কোনও প্রভাবশালী ব্যক্তিত্বের সঙ্গে পরিচয় না থাকাতে কিংবা সিইএসসি ও পুলিশের উপড় হিংসাত্মকভাবে চড়াও না হওয়াতেই তাঁর এলাকায় বিদ্যুত ফেরেনি। 

শান্তিলাল মুখোপাধ্যায়ের পুত্র তথা অভিনেতা ঋতব্রত মুখোপাধ্যায় সোমবার নিজের ফেসবুকের দেওয়ালে লেখেন, 'আমাদের বাড়ি যেখানে, সেই এলাকাটিকে কেউই নজর দেয়নি কোনোদিন।কোনো সরকার সাহেব না। হাতুড়ি সরকার, ফুল সরকার, বেলুন সরকার। যারা ছিল, যারা আছে, যারা আসবে, কেউই আমাদের নিয়ে বাদার্ড নন। এতটাই নেগলিজেবল অবস্থা যে আজ ৬দিন (১৪৪ ঘন্টা) হতে চলল, ইলেকট্রিসিটি নেই, জলের ব্যবস্থা নেই, নেটওয়ার্ক নেই, কোনো মতে ইন্টারনেট পাওয়া যাচ্ছে মাঝে-মধ্যে। ৬দিন পরেও কোনোরকম ব্যবস্থা নেই, কেউ কাজ করছে না এই অঞ্চলে। এবং 'ওপর মহলের' কারুর সাথে যোগাযোগ না থাকলে, বিদ্যুৎ পাওয়াও যাবে না। কোনো দলের ছত্রছায়ায় না আসার ফলস্বরূপ'।

ঋতব্রতর ফেসবুক পোস্ট শেয়ার করে তাঁর বন্ধু তথা জাতীয় পুরস্কার জয়ী অভিনেতা ঋদ্ধি সেন লেখেন, দয়া করে এই বিষয়টি একটু খতিয়ে দেখুন। এই ধরণের পরিস্থিতির জন্য আমরা কেউই প্রস্তুত ছিলাম না,হয়ত অনেকেই  নিজেদের সাধ্যমতো আমাদের সাহায্যের চেষ্টা করছেন কিন্তু সরশুনা, টলিগঞ্জ এবং আরও বেশকিছু এলাকা আজ দিন পরেও বিদ্যুত ফেরেনি, অভাবনীয়! দয়া করে এগিয়ে এসে সাহায্য করুন!

অন্যদিকে ঘূর্ণিঝড় আমফানের জেরে কলকাতা লাগোয়া এলাকার বিদ্যুৎ বিভ্রাটের দায় তাদের নয় বলে আগেই জানিয়েছেন কলকাতার মুখ্য প্রশাসক ফিরহাদ হাকিম। বলেছিলেন, সিইএসসির ব্যর্থতার দায় কলকাতা পুরসভা বা রাজ্য সরকারের হতে পারে না। সোমবার ফের একবার একই বল করলেন তিনি। বললেন, ‘সিইএসসিকে বলেছি, এনাফ ইজ এনাফ।’

বাংলার মানুষকে সাহায্য করুন

WEST BENGAL STATE EMERGENCY RELIEF FUND

(Part of Chief Minister Relief Fund)

https://wbserf.wb.gov.in/wbserf

A/C No: 628005501339

Bank: ICICI Bank

Branch: Howrah

IFSC Code: ICIC0006280

MICR Code: 700229010

SWIFT Code: ICICINBBCTS

 

বন্ধ করুন