বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > 'এটা কার বাচ্চা ?', প্রথমবার মা হওয়ার অভিজ্ঞতা ভাগ করলেন অভিনেত্রী মধুবনী
মধুবনী ও রাজার প্রথম সন্তান কেশব
মধুবনী ও রাজার প্রথম সন্তান কেশব

'এটা কার বাচ্চা ?', প্রথমবার মা হওয়ার অভিজ্ঞতা ভাগ করলেন অভিনেত্রী মধুবনী

প্রথমবারের জন্য মা হয়েছেন অভিনেত্রী মধুবনী গোস্বামী। স্বামী রাজার সঙ্গে তাঁদের প্রথম পুত্র সন্তান 'কেশব'-কে পরিবারে স্বাগত জানিয়েছেন তিনি। এবার নিজের মাতৃত্ব নিয়ে অভিজ্ঞতা ভাগ করে নিলেন তিনি ।

সদ্য মা হয়েছেন অভিনেত্রী মধুবনী গোস্বামী। স্বামী রাজার সঙ্গে আলোচনা করে নিজেদের পুত্র সন্তানের নাম 'কেশব' রেখেছেন তাঁরা।মা হওয়ার পর যে একধাক্কায় তাঁর জীবনটা পুরোপুরি বদলে গেছে সেকথা নিজেই জানালেন ছোটপর্দার এই জনপ্রিয় অভিনেত্রী। স্টার জলসা চ্যানেলে 'ভালোবাসা ডট কম ' ধারাবাহিকে 'ওম তোড়া ' হয়ে যে যাত্রা শুরু করেছিলেন রাজা ও মধুবনী বাস্তবে সেই যাত্রা যে আরও স্বপ্নীল হয়ে উঠলো তাঁদের প্রথম সন্তান জন্মানোর মাধ্যমে তা বলাই বাহুল্য। এই প্রসঙ্গে আনন্দবাজারকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে অভিনেত্রী বলেছেন,'কেশব আমার অনেক অভ্যাস বদলে দিয়েছে। রাজাকে তো প্রায় পুরোটাই পাল্টে দিয়েছে। এখন আমার সারাদিনের ধ্যান জ্ঞান ওই একরত্তিটার ওপরেই। ওর পরিচর্যার যেন কোনও খামতি না থাকে সেই খেয়াল রাখতে হয়।

মধুবনী ও রাজা। ছবি সৌজন্যে - ট্যুইটার
মধুবনী ও রাজা। ছবি সৌজন্যে - ট্যুইটার

 যদি বা আমার কেশবকে ঘড়ির কাঁটা ধরে ওষুধ খাওয়াতে সামান্য দেরি হয় রাজা রীতিমতো বকুনি দেয় আমাকে।' মধুবনী আরও জানান,  এই অতিমারীর সময়েও প্রতিদিন শ্যুটিং ফ্লোরে যেতে হচ্ছে বলে বাড়ি ফিরে ছেলেকে মাস্ক পরে কোলে নিচ্ছেন রাজা। প্রাণভরে আদর করার ইচ্ছে থেকেও বিরত রাখছেন নিজেকে। এমনকি ছোট্ট কেশবের স্বাস্থ্য ও সুরক্ষার কথা ভেবে এই করোনা পরিস্থিতিতে তাঁদের শোওয়ার ঘরও এখন আলাদা। একটি ঘরে মধুবনী ও কেশব থাকেন অন্যটিতে এক রাজা। যা নিয়ে দুঃখ ঝরে পড়ল মধুবনীর গলায়,' পাশাপাশিই তো আমাদের দু'জনের ঘর। তবু মনে হয় কত দূরত্ব।

কথায় কথায় উঠে এল কেশবের জন্ম নেওয়ার দিনটির কথা। 'নতুন মা' জানালেন হাসপাতালের বেডে সারারাত কাটানোর পর সকালে অপারেশন থিয়েটারে নিয়ে যাওয়া হলো তাঁকে। ইনজেকশন দিয়ে কোমর থেকে শরীরের নিচ পর্যন্ত সম্পূর্ণ অংশ অবশ করে দেওয়ার কিছুক্ষণ পরেই তাঁর চোখের সামনে তাঁর সন্তানকে আনা হলো।নিজের সন্তানকে প্রথমবারের জন্য দেখে হতভম্ব অভিনেত্রীর প্রথম প্রশ্ন ছিল,'এটা কার বাচ্চা ?' নিজের সন্তানকে প্রথমবারের জন্য দেখার অনুভূতি আজও তাঁর কাছে টাটকা হলেও শব্দের মাধ্যমে সেই অনুভূতি প্রকাশ করতে তিনি অপারগ বলেই জানালেন মধুবন্তী। কথা শেষে আরও জানা গেল আপাতত ছোট্ট কেশবকে নিয়েই মত্ত রাজা-মধুবনীর গোটা পরিবার। কেশবের মায়ের কথায়,' দাদু ঠাম্মার আদর খেতেই ব্যস্ত একরত্তি। আপাতত ওকে ঘিরেই ভবিষ্যতের স্বপ্ন তৈরি করছি আমরা।'

বন্ধ করুন