বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > হেনস্থা মামলায় আলিপুর আদালতে জবানবন্দি মিমির-'আমি না এলে লোকটা ছাড়া পেয়ে যেত'
আলিপুর আদালতে গোপন জবানবন্দি দিলেন মিমি (ছবি-ফেসবুক)
আলিপুর আদালতে গোপন জবানবন্দি দিলেন মিমি (ছবি-ফেসবুক)

হেনস্থা মামলায় আলিপুর আদালতে জবানবন্দি মিমির-'আমি না এলে লোকটা ছাড়া পেয়ে যেত'

  • 'এদের মতো কিছু লোকের জন্যই আমার শহরের নাম, আমার প্রশাসনের নাম বদনাম হয়',জানালেন মিমি। 

কলকাতার প্রকাশ্য রাস্তায় ট্যাক্সিচালকের হাতে হেনস্থার শিকার হতে হয়েছিল খোদ তৃণমূল সাংসদ অভিনেত্রী মিমি চক্রবর্তীকে। গত সোমবার জিম থেকে ফেরবার বালিগঞ্জ এলাকায় যাদবপুরের সাংসদ তথা টলি নায়িকাকে উদ্দেশ্য করে কটূক্তি এবং অশ্লীল অঙ্গভঙ্গি করার অভিযোগ উঠেছে বাবা যাদব নামে এক ট্যাক্সিচালকের বিরুদ্ধে। মিমির অভিযোগের ভিত্তিতে সোমবার রাতেই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে গড়িয়াহাট থানার পুলিশ। আনন্দপুর থানা এলাকার উত্তর পঞ্চান্নগ্রাম থেকে গ্রেফতার হয় অভিযুক্ত। এই মামলাতেই শুক্রবার আলিপুর আদালতে গিয়ে গোপন জবানবন্দি দিলেন মিমি চক্রবর্তী।

অভিনেত্রী এবং সাংসদ হিসাবে হাজারো ব্যস্ততার মাঝেই একজন দায়িত্বশীল নাগরিক হিসাবে নিজের কর্তব্য এড়িয়ে যাননি মিমি। তাই এদিন নির্দিষ্ট সময়েই আলিপুর আদালতে পৌঁছেছিলেন অভিনেত্রী। তিনি বিচারবিভাগীয় ম্যাজিস্ট্রেটের কাছে গোপন জবানবন্দি দেন। এরপর বাইরে এসে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়ে নায়িকার সাফ বক্তব্য 'আজ আমার কোর্টে আসাটা খুব দরকার ছিল। কারণ আমি না এলে হয়ত ছাড়া পেয়ে যেত। এইভাবেই আমি মূক হয়ে থাকতে চাই না। এক দুটো মানুষের জন্য আমার শহরের বা আমার প্রসাশনের বদনাম হোক সেটা আমি চাই না।  আমি আজ ওকে ছেড়ে দিতে কাল ও অন্য কোনও মেয়ের গায়ে হাত দেওয়ার সুযোগ পেত। ভাবত সবাই তো এইভাবেই এড়িয়ে যায়, কিছু পরোয়া করবার দরকার নেই, আমি লাইসেন্স পেয়ে গেলাম। তাই এই মামলায় পুলিশি তদন্তে সহযোগিতা করতে আজ নিজে এসে জবানবন্দি করে গেলাম'।

ধৃত ট্যাক্সি চালকের বিরুদ্ধে ভারতীয় সংবিধানের ৩৫৪, ৩৫৪এ, ৩৫৪ডি এবং ৫০৯ ধারায় অভিযোগ দায়ের করেছে পুলিশ। আপাতত গড়িয়াহাট থানায় পুলিশ হেফাজতে রয়েছে বাবা যাদব নামের ওই ট্যাক্সি চালক। আগামী ২০ তারিখ আলিপুর কোর্টে তোলা হবে তাকে। পুলিশ সূত্রে খবর, অভিযুক্তকে জেল হেফাজতে পাঠানোর জন্য আবেদন জানাবেন মামলার দায়িত্বে থাকা অফিসার। 

বন্ধ করুন