বাংলা নিউজ > বায়োস্কোপ > Lokkhi Kakima Superstar: ‘অপাদি এবার নিশ্চিন্ত, TRP নিয়ে এতটা চিন্তায় থাকত’, জানাল লক্ষ্মী কাকিমার বউমা
এ সপ্তাহে টিআরপি টপার লক্ষ্মী কাকিমা 

Lokkhi Kakima Superstar: ‘অপাদি এবার নিশ্চিন্ত, TRP নিয়ে এতটা চিন্তায় থাকত’, জানাল লক্ষ্মী কাকিমার বউমা

  • 'কাজের মুডই নেই, সবাই লাফাচ্ছি', জানালেন ‘হংসিনী’ ওরফে অভিনেত্রী শার্লি মোদক। কেমনভাবে উদযাপন চলছে সেটে? 

বৃহস্পতিবার মানেই টেলিপাড়ায় চাপা উত্তেজনা। টিআরপি তালিকায় কে শীর্ষস্থান দখল করবে সেই নিয়ে যত্ত কাণ্ড! এদিন টিআরপির রিপোর্ট কার্ড সামনে আসতেই সেলিব্রেশন মুডে লক্ষ্মী কাকিমা টিম। চ্যানেল টপার হয়েছিল আগেই, আর এইবার সোজা বেঙ্গল টপার! ৮.২ রেটিং নিয়ে প্রথম হল লক্ষ্মী কাকিমা। এই সুখবর জেনেই আমরা যোগাযোগের চেষ্টা করেছিলাম অভিনেত্রী অপরাজিতা আঢ্যর সঙ্গে, তিনি ফোনে অধরা। শ্যুটিং-এর মাঝেই ফোনে পাওয়া গেল লক্ষ্মী কাকিমার বউমা হংসিনীকে। কী বলছেন অভিনেত্রী শার্লি মোদক।

ফোন তুলতেই তাঁর গলায় ধরা উপর উচ্ছ্বাস। লক্ষ্মী কাকিমার প্রিয় বউমা হাঁস ওরফে শার্লি জানালেন, ''কাজের মুড নেই, সবাই লাফাচ্ছি। জীবনে প্রথমবার আমার কোনও সিরিয়াল বেঙ্গল টপার হল। ভাবতেই পারছি না। সিরিয়ালটা যখন শুরু হয়েছিল তখনই জানতাম একদিন না একদিন টপার হবই। এত তাড়াতাড়ি হবে ভাবি নি'।

সেলিব্রেশনের প্ল্যান কী? মুচকি হেসে অভিনেত্রীর জবাব,'আমাদের প্রযোজক (সুশান্ত দাস) কলকাতার বাইরে, তাই সেলিব্রেশন এখনই হচ্ছে না। আমরা ওঁনাকে ছাড়া ঠিক আনন্দ করতেই পছন্দ করি না। তবে বিকালে সবাই মিলে মিষ্টি খাওয়া হবে'।

আর লক্ষ্মী কাকিমা কী বলছেন? শার্লির কথায়, ‘অপাদি (অপরাজিতা আঢ্য) প্রচণ্ড খুশি। আগের সপ্তাহে চ্যানেল টপার হওয়ার পরও উনি খুব খুশি হয়েছিলেন। অপাদি আসলে খুব টেনশনে থাকেন বৃহস্পতিবার। শুরুরদিকে উনি বলতেন, এই দিনটাতে তোরা আমাকে (শ্যুটিং-এর) কল দিবি না। আমার খুব টেনশন হয়। গত কয়েক সপ্তাহে আমাদের টিম টিআরপি তালিকায় উপরের দিকে আছে, তারপর থেকে অপাদি একটু নিশ্চিন্ত। তা না হলে উনি এতটা ট্রমাটাইজড থাকেন টিআরপি নিয়ে। ফোন করে ওঁনাকে সকালবেলা আমরা টপে আছি বললেও উনি সেটাও বুঝতে পারেন না। কিছুটা ধাতস্থ হওয়ার পর বোঝেন আমরা সেরা হয়েছি, তখন খুব খুশি'।

সুশান্ত দাসের টেন্ট সিনেমার আওতায় তৈরি এই সিরিয়ালের টিম আগে জি বাংলার সুপারহিট মেগা ‘কৃষ্ণকলি’র সঙ্গে যুক্ত ছিল। পরিচালক বিজয় মাজি জানালেন, ‘আমরা দীর্ঘদিন নম্বর ১ ছিলাম, ফের হতে পেরেছি। এই অনুভূুতিটা ভাষায় ব্যক্ত করা যাবে না। আমরা দারুণ খুশি’। সঙ্গে যোগ করলেন, ‘এই সাফল্য কারুর ব্য়ক্তিগত সাফল্য নয়। যাঁরা গল্প লিখছেন, অভিনয় করছেন, সবার ক্রেডিট। আমার টিমে অপরাজিতা আঢ্য, দেবশংকর হালদারের মতো অভিজ্ঞরা রয়েছেন, নতুনরাও খুব ভালো কাজ করছেন… এটা টিম এফর্ট'।

সাফল্য়টা ধরে রাখাটাই বড় চ্যালেঞ্জ। সেই লক্ষ্যে অবিচল থাকতে চান পরিচালক। তাঁর কথায়, 'আমরা যেমনভাবে পরিশ্রম করেছি। আগামিদিনে আরও বেশি পরিশ্রম করব। আশা করছি আমরা সাবলীল-সরল গল্প দিয়ে দর্শকদের মন জেতার এইভাবেই চেষ্টা করব। আশা করি এই সাফল্য আমরা ধরে রাখতে পারব'।

বন্ধ করুন